শিরোনাম
২৩ বাংলাদেশি নাবিকের মুক্তি,মুক্তিপণ দিতে হলো ৫০ লাখ ডলার পুকুরপাড়ে বসে নারীদের গোসলের ভিডিও ধারণ করা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ২০ রাঙ্গামাটির সাজেকে রিসোর্ট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পানির সংকট রাঙ্গামাটিতে বৈশাখের খরতাপে অস্থির জনজীবন,তাপমাত্রা ৩৮ডিগ্রী সেলসিয়াস খাগড়াছড়িতে ত্রিপুরাদের তৈবুংমা-অ-খুম বগনাই উৎসব উদযাপন খাগড়াছড়িতে মারমা সম্প্রদায়ের মাহা সাংগ্রাই-এ জলোৎসবে রঙ্গিন বান্দরবানে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় নববর্ষের উৎসব পালন বান্দরবানে আসামি ধরতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে পুলিশ সদস্য আহত রাঙ্গামাটিতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপন উপজেলা নির্বাচন নিয়ে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের শঙ্কা থেকেই যাচ্ছে

সংসদের প্রথম অধিবেশন শেষ হচ্ছে আজ

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৫ মার্চ, ২০২৪
  • ৫৭ দেখা হয়েছে

ডেস্ক রির্পোট:- দ্বাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন শেষ হচ্ছে আজ মঙ্গলবার। চলতি অধিবেশনের ২২তম দিনে বিকেল পৌনে ৫টার দিকে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হবে অধিবেশন কার্যক্রম। এর আগে গত ৩০ জানুয়ারি শুরু হওয়া এই অধিবেশনে আজসহ মোট কার্যদিবসের সংখ্যা ২২। নবগঠিত এই সংসদের স্থায়ী কমিটি গঠিত হয়েছে ৫০টি। পুনর্গঠিত হয়েছে ৪৯টি স্থায়ী কমিটি।

সংসদ সচিবালয় সূত্রে জানা গেছে, শেষ দিনের অধিবেশনে সংসদে উত্থাপিত দুটি বিল আইন হিসেবে পাস হতে যাচ্ছে। আইন দুটি হলো- আইনশৃঙ্খলা বিঘ্নকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) আইন, ২০০২ ও অফশোর ব্যাংকিং আইন। ২০২৪ এর আগে গত ২৯ ফেব্রুয়ারি দ্রুত বিচার আইনটি অধিকতর সংশোধনকল্পে বিল হিসেবে উত্থাপন করা হয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের পক্ষে আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক সংসদে বিলটি উত্থাপন করেন। পরে বিলটি অধিকতর পরীক্ষার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়।

যাচাই-বাছাই শেষে তারপর সংসদে উত্থাপিত বিলটি দ্রুত বিচার আইন হিসেবে স্থায়ী করতে পাসের সুপারিশ করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। কমিটির সুপারিশ সংক্রান্ত বিলের প্রতিবেদনটি ৩ মার্চ সংসদ অধিবেশনে জমা দেন ওই কমিটির সভাপতির অনুপস্থিতিতে সংসদীয় কমিটির সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল।

সংসদে পাস হতে যাওয়া অপর বিলটি হলো- অফশোর ব্যাংকিং আইন ২০২৪, দেশে প্রথমবারের মতো পাস হতে যাওয়া এই বিলটি গত ২ মার্চ সংসদে উত্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

প্রশ্নোত্তর পর্ব
গত জুন পর্যন্ত মেট্রোরেলের আয় ১৮ কোটির বেশি: সেতুমন্ত্রী
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, মেট্রোরেল চালু হওয়ার পর থেকে গত বছর জুন পর্যন্ত মোট আয় হয়েছে ১৮ কোটি ২৮ লাখ ৬ হাজার ৫১৪ টাকা। আওয়ামী লীগের সদস্য এম. আবদুল লতিফের এক প্রশ্নের লিখিত উত্তরে মন্ত্রী এ তথ্য জানান। এর আগে বিকেলে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে শুরু হয় সংসদের অধিবেশন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ২০২২ সালের ২৮ ডিসেম্বর মেট্রোরেলের উত্তরা উত্তর থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত অংশ এবং ২০২৩ সালের ৪ নভেম্বর আগারগাঁও থেকে মতিঝিল পর্যন্ত অংশ প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করেন। এখন শুক্রবার ছাড়া প্রতিদিন সকাল ৭টা ১০ মিনিট থেকে রাত ৮টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত উত্তরা উত্তর থেকে মতিঝিল পর্যন্ত মেট্রোরেল বাণিজ্যিকভাবে নির্ধারিত সময়সূচি অনুযায়ী নিয়মিত চলাচল করছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, অডিট ফার্মের নিরীক্ষা করা ২০২২-২৩ অর্থবছরের চূড়ান্ত হিসাব অনুযায়ী গত বছরের জুন মাস পর্যন্ত মোট আয় ১৮ কোটি ২৮ লাখ ৬ হাজার ৫১৪ টাকা। প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অনুসরণে এমআরটি লাইন-৬ মতিঝিল থেকে কমলাপুর পর্যন্ত ১ দশমিক ১৬ কিলোমিটার বর্ধিত করার জন্য নির্মাণকাজ পুরোদমে এগিয়ে চলছে। এ পর্যন্ত কাজের সার্বিক অগ্রগতি ২৫ ভাগ। আগামী বছর জুন মাসে এ অংশ চালুর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

সড়ক দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য তহবিল
সরকারদলীয় এমপি মোরশেদ আলমের প্রশ্নের জবাবে সড়ক পরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানান, সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮-এর আওতায় সড়ক দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের জন্য গঠিত আর্থিক সহায়তা তহবিলে গত ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত ১৩৩ কোটি ৯৫ হাজার ৮৮৮ টাকা জমা পড়েছে। তহবিল হতে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ যাবৎ ২১৪ জন সড়ক দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের ৯ কোটি ৪৪ লাখ টাকার আর্থিক সহায়তার চেক দেওয়া হয়েছে।

সরকারদলীয় এমপি আলী আজমের প্রশ্নের জবাবে সেতু মন্ত্রী বলেন, বরিশাল-ভোলা সড়কের তেঁতুলিয়া ও কালাবদর নদীর ওপর ১০ দশমিক ৮৬ কিলোমিটার দীর্ঘ সেতু তৈরির জন্য সম্ভাব্যতা সমীক্ষা পরিচালনা করা হয়েছে। ভবিষ্যতের সেতু নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের জন্য প্রণীত মাস্টারপ্ল্যানের মধ্যে প্রস্তাবিত সেতুটি অন্তর্ভুক্ত আছে।

দুই বছরে ১৭০ রেল দুর্ঘটনা: রেলপথ মন্ত্রী
সরকারদলীয় সংসদ এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে রেলপথ মন্ত্রী জিল্লুল হাকিম বলেন, ২০২২ সালের জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত রেলপথে ১৭০টি দুর্ঘটনা ঘটেছে এবং এ ঘটনায় ৪৯ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।

নিজাম উদ্দিন হাজারির প্রশ্নের জবাবে রেলপথ মন্ত্রী বলেন, বিনা টিকিটে ট্রেন ও ট্রেনের ছাদে ওঠা বন্ধ করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ রেলওয়ের গুরুত্বপূর্ণ স্টেশনগুলোতে ফেন্সিং নির্মাণ করা হয়েছে। এতে টিকিটবিহীন যাত্রী প্রবেশ অনেকাংশে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়েছে। যাত্রীদের স্বচ্ছন্দে ভ্রমণ নিশ্চিত করার জন্য বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা সমন্বয়ে নিয়মিত টিকিট চেকিং কর্মসূচি প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

সরকারদলীয় এমপি বেগম সুলতানা নাদিরার প্রশ্নের জবাবে রেলপথ মন্ত্রী বলেন, পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণের জন্য সমীক্ষা প্রকল্পটি ২০২২ সালের জুনে শেষ হয়েছে। অর্থায়নের জন্য উন্নয়ন সহযোগী অনুসন্ধানের জন্য ২০২২ সালের ৫ এপ্রিল প্রকল্পের পিডিপিপি রেলপথ মন্ত্রণালয় হতে ইআরডি এবং পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়েছে। উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা নির্ধারিত হলে ভাঙা হতে পায়রা হয়ে কুয়াকাটা পর্যন্ত রেলপথ নির্মাণের বিনিয়োগ প্রকল্প গ্রহণ করা হবে।

অর্ধেকের বেশি নারী বাল্যবিয়ের শিকার: সিমিন হোসেন রিমি
দেশে বর্তমানে অর্ধেকের বেশি নারীর বাল্যবিয়ে হয় বলে সংসদে জানিয়েছেন মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী সিমিন হোসেন রিমি। জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মুজিবুল হক চুন্নুর টেবিলে উপস্থাপিত প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে বাল্যবিবাহের হার ১৫ বছরের নিচে ১৫ দশমিক ৫০ শতাংশ এবং ১৮ বছরের নিচে ৫১ দশমিক ৪০ শতাংশ। প্রতিমন্ত্রী বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে ১৭টি পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন। বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে ৬৪টি জেলায় বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে মনিটরিং কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ২০১৫ সাল থেকে আগস্ট ২০২৩ পর্যন্ত ১২ হাজার ১৫০টি বাল্যবিবাহ রোধ করা গেছে। একই সময়ে বাল্যবিবাহ রোধে ৪৩ হাজার ৭৭৭টি উঠান বৈঠক করা হয়েছে।

মামুনুর রশীদ কিরনের প্রশ্নের জবাবে সিমিন হোসেন রিমি বলেন, জীবন বাঁচাতে সাঁতার প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আওতায় ৫ লাখ ৯ হাজার ৮৭০ শিশুকে সাঁতার প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। প্রকল্পের আওতায় ৮ বিভাগের ১৬টি জেলার ৪৫টি উপজেলায় ১ থেকে ৫ বছর বয়সী শিশুদের জন্য ৮ হাজারটি শিশুযত্ন কেন্দ্র স্থাপন ও পরিচালনা এবং ৬ থেকে ১০ বছর বয়স শিশুদের জন্য সাঁতার প্রশিক্ষণ প্রদানসহ অভিভাবকদের জন্য প্যারেন্টিং কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions