শিরোনাম
রাঙ্গামাটির লংগদুতে সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত ২ মরদেহ রাঙ্গামাটি সদর হাসপাতালে স্কুলে ভর্তির টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেয়ার নির্দেশনা,ব্যাপক প্রতিক্রিয়া বিকল্প চিন্তা শেখ হাসিনার প্রতি নরেন্দ্র মোদির অবিরাম সমর্থনে বাংলাদেশ ক্ষুব্ধ অর্থনীতিকে ধারণ করার সক্ষমতা হারাচ্ছে ব্যাংকিং খাত : ফাহমিদা খাতুন ২৬ কোম্পানির বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা রাঙ্গামাটিতে ইউপিডিএফ সদস্যসহ ২ জনকে হত্যার প্রতিবাদে ২০ মে জেলায় অর্ধদিবস সড়ক ও নৌপথ অবরোধের ডাক রাঙ্গামাটির লংগদুতে সন্তু গ্রুপ কর্তৃক ইউপিডিএফ সদস্যসহ ২ জনকে গুলি করে হত্যার নিন্দা ও প্রতিবাদ রাঙ্গামাটিতে ব্রাশ ফায়ারে ইউপিডিএফের সদস্যসহ দুইজন নিহত এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পদ ৯৬,০০০ আবেদন ২৪,০০০ রিজার্ভ নিয়ে তিন হিসাব, চাপ বাড়ছে

পাকিস্তানের মসজিদে আত্মঘাতী হামলায় নিহতদের অধিকাংশই পুলিশ কর্মকর্তা

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩
  • ২৮০ দেখা হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক:- পাকিস্তানের পেশোয়ারে মসজিদে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এ পর্যন্ত ১০০ জনের মরদেহ পাওয়ার কথা জানিয়েছে স্থানীয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া আহত ২২৫ জনের বেশি। তাঁদের অনেকেই গুরুতর আহত অবস্থা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

পেশোয়ারের লেডি রিডিং হাসপাতালের মুখপাত্র মোহাম্মদ আসিম জানান, তাঁদের হাসপাতালে এখন পর্যন্ত ১০০ মরদেহ আনা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বিবৃতিতে এ কথা বলেন আসিম। সোমবারের ভয়াবহ হামলায় নিহতদের অধিকাংশই পুলিশ কর্মকর্তা বলেও জানান তিনি।

মৃতদেহ পরিবারের কাছে তুলে দেওয়ার কাজও শুরু হয়েছে। এর মধ্যেই বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তার দাফন সম্পন্ন হয়েছে। এ সময় তাঁদের কফিন পাকিস্তানি পতাকা দিয়ে ঢাকা ছিল।

সোমবার জোহরের নামাজের সময় দুপুর ১টা ৪০ মিনিটের দিকে এই বিস্ফোরণ ঘটে। ঘটনাস্থলে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা ছিলেন। পেশোয়ারের পুলিশ কর্মকর্তা ইজাজ খান স্থানীয় গণমাধ্যমকে বলেছেন, হামলার সময় ওই এলাকায় ৩০০ থেকে ৪০০ পুলিশ কর্মকর্তা দায়িত্বরত ছিলেন।

মৃতদেহ পরিবারের কাছে তুলে দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছেমৃতদেহ পরিবারের কাছে তুলে দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। ছবি: এএফপি
এদিকে হামলার দুই দিনের মাথায় বুধবারও মসজিদের ভেতরে উদ্ধারকাজ অব্যাহত রয়েছে। ধ্বংসস্তূপের নিচে যাঁরা চাপা পড়ে আছেন, উদ্ধারকারীরা তাঁদের বের করে আনার চেষ্টা করছেন।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ বলেছেন, পেশোয়ারের মসজিদে এই হামলার লক্ষ্যবস্তু ছিল পুলিশ। পাকিস্তানকে রক্ষার দায়িত্ব পালন করেন যাঁরা, তাঁদের লক্ষ্য করেই সন্ত্রাসীরা আতঙ্ক সৃষ্টি করতে চায় বলে মনে করেন তিনি। সোমবার হামলার পর হতাহতদের দেখতে হাসপাতালে যান শাহবাজ। এ সময় হতাহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান তিনি।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions