ভারতকে খুশি করার জন্যেই সরকার ইফতারে নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে : ইসলামী আন্দোলন

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ২২ মার্চ, ২০২৪
  • ৪৬ দেখা হয়েছে

ডেস্ক রির্পোট:- ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রিন্সিপাল মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী বলেছেন, আওয়ামী লীগের হাতে দেশ, ইসলাম ও মানবতা কোন কিছুই নিরাপদ নয়। তারা ভারতেকে খুশি করতে ৯২ ভাগ মুসলমানের চিন্তা চেতনার বিরুদ্ধে আঘাত দেয়া শুরু করেছে। ভারতকে খুশি করার জন্যেই সরকার ইফতারে নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে। ভারতে চলমান মুসলিম নিধন এবং বাংলাদেশে মুসলমানদের ধর্মীয় প্রোগ্রামে বিধিনিষেধ একইসূত্রে গাঁথা। ভারতের আশীর্বাদে ক্ষমতায় এসে ভারতকে খুশি করার জন্যেই সরকার অপরিণামদর্শী খেলায় মেতে ওঠেছে।

তিনি বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উপস্থিতিতে ঢাবির অনুষ্ঠানে ভারতীয় জাতীয় সংগীত দিয়ে প্রোগ্রাম শুরু সরাসরি স্বাধীনতার বিরুদ্ধে আঘাত। স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশের মাটিতে এমন কাজ করার কি করে সাহস পেল তা সরকারকে স্পষ্ট করতে হবে। তিনি বলেন, সাধারণ মানুষ আজ নিত্যপণ্যের দামে দিশেহারা। মানুষের কষ্ট এ ফ্যাসিস্ট সরকার দেখছে না।

আজ শুক্রবার বাদ জুমা বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ইফতার-কিরাত মাহফিল ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানে হামলা এবং নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সংগঠনের ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা মুহাম্মদ ইমতিয়াজ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন দলের যুগ্ম-মহাসচিব ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, সহকারি মহাসচিব ও নগর উত্তর সভাপতি প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ, প্রচার ও দাওয়াহ সম্পাদক মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম, যুবনেতা মাওলানা নেছার উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, আব্দুল আউয়াল মজমুদার, মাওলানা নুরুল ইসলাম নাঈম, মাওলানা আরিফুল ইসলাম, ডা. শহিদুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট মশিউর রহমান, মুফতী ফরিদুল ইসলাম ইসলাম, মুফতি হাফিজুল হক ফাইয়াজ, আব্দুর রহমান ।

প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ বলেন, শেখ হাসিনার কর্মকান্ড ক্রমেই ইসলামবিরোধী হিসেবে জাহির হচ্ছে। তারা ধরাকে শরাজ্ঞান তুল্য করে যাচ্ছে তাই করছে। বর্তমান সরকারের কর্মকান্ডে ধর্মনিরপেক্ষতা ফুটে উঠছে। হিন্দুত্বাদের জয়ধ্বনি সর্বত্র দেখা যাচ্ছে। দেশের প্রায় সকল শীর্ষস্থানে একটি বিশেষ ধর্মাবলম্বীদের নিয়োগ দিয়েছে। মনে রাখবেন বিশেষ ধর্মাবলম্বীরা আপনাকে রক্ষা করতে পারবে না। তিনি ইসলামবিরোধী কর্মকান্ড থেকে ফিরে আসার আহ্বান জানান। ইফতার ও কোরআন মাহফিলে হামলা করে নমরুদ, ফেরাউন টিকেনি শেখ হাসিনাও টিকতে পারবে না।

সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা ইমতিয়াজ আলম বলেন, ধর্মীয় অনুষ্ঠানাদীতে বাধানিষেধ ও দলীয় ক্যাডার দিয়ে হামলা করে সরকার সরাসরি ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। ইফতার-কিরাত মাহফিলে হামলা ও বাধা দিয়ে তারা মূলত দেশটাকে অসভ্যতায় রূপান্তর করতে চায়। ঢাবিতে ইফতার মাহফিলে হামলা দেশের মানুষ মেনে নিবে না। ভারতের দালালদের দেশ থেকে বের হয়ে যাওয়ার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, এক সাগর রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীন দেশে স্বাধীনতার মাসে ভারতের জাতীয় সংগীত নিয়ে টানাটানি কেন? বাংলাদেশ যাদের ভালো লাগে না তারা ভারতে চলে যান, তবু বাংলাদেশে বসে ভারতের গান গাওয়ার দুঃশাহস দেখাবেন না।

পরে একটি বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বায়তুল মোকাররম উত্তর গেট, পল্টন মোড়, বিজয়নগর হয়ে পুনরায় পল্টন মোড়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যের মাধ্যমে সমাপ্ত হয়।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions