শিরোনাম
২৩ বাংলাদেশি নাবিকের মুক্তি,মুক্তিপণ দিতে হলো ৫০ লাখ ডলার পুকুরপাড়ে বসে নারীদের গোসলের ভিডিও ধারণ করা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ২০ রাঙ্গামাটির সাজেকে রিসোর্ট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পানির সংকট রাঙ্গামাটিতে বৈশাখের খরতাপে অস্থির জনজীবন,তাপমাত্রা ৩৮ডিগ্রী সেলসিয়াস খাগড়াছড়িতে ত্রিপুরাদের তৈবুংমা-অ-খুম বগনাই উৎসব উদযাপন খাগড়াছড়িতে মারমা সম্প্রদায়ের মাহা সাংগ্রাই-এ জলোৎসবে রঙ্গিন বান্দরবানে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় নববর্ষের উৎসব পালন বান্দরবানে আসামি ধরতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে পুলিশ সদস্য আহত রাঙ্গামাটিতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপন উপজেলা নির্বাচন নিয়ে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের শঙ্কা থেকেই যাচ্ছে

চ্যালেঞ্জ এবার উপজেলায়,সংশোধিত বিধিমালায় মন্ত্রণালয়ের সায়

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ১৫ মার্চ, ২০২৪
  • ৩৫ দেখা হয়েছে

ডেস্ক রির্পোট:- প্রায় নির্বিঘ্নে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পার করলেও ভোট নিয়ে ব্যস্ততা কমছে না নির্বাচন কমিশনের (ইসি)। ময়মনসিংহ ও কুমিল্লা সিটি করপোরেশনসহ স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ের ২৩১টি নির্বাচন হয়ে গেল ১১ মার্চ। ইসির সামনে এবার সারা দেশে উপজেলা নির্বাচন আয়োজনের চ্যালেঞ্জ। আগামী ৪ মে থেকে চার ধাপে অনুষ্ঠিত হবে এই নির্বাচন। সিইসি কাজী হাবিবুল আউয়াল রাশিয়া থেকে দেশে ফেরার পর আগামী সপ্তাহে ঘোষণা করা হবে পূর্ণাঙ্গ তপশিল। সংসদ নির্বাচনের কেনাকাটার সময় একই সঙ্গে উপজেলা নির্বাচনের জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম কিনে রেখেছে কমিশন। প্রস্তুত রয়েছে ব্যালট পেপার ছাপানোর কাগজও। তবে এবার কতগুলো উপজেলায় ইভিএম আর কতগুলোতে ব্যালটে ভোট হবে—তা এখনো ঠিক হয়নি বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

সূত্র জানায়, বড় কোনো অনিয়ম ও সহিংসতা ছাড়াই দুই সিটিসহ স্থানীয় সরকারের অনেক নির্বাচন সফলভাবে শেষ করার পর ৪৮১টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দিকে নজর দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এ নির্বাচনের বিস্তারিত তপশিল ঘোষণা করতে মঙ্গলবার কমিশন বৈঠক ডাকা হয়েছিল। তবে ইসি সচিবের অসুস্থতার কারণে সেটি স্থগিত করা হয়। এরপর প্রধান নির্বাচন কমিশনার রাশিয়া সফরে গেছেন। তিনি দেশে ফিরলেই আগামী সপ্তাহে কমিশন সভায় তপশিল চূড়ান্ত করে তা ঘোষণা দেওয়া হবে।

উপজেলা নির্বাচনের সার্বিক প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বলেন, ‘এরই মধ্যে কমিশন চার ধাপে উপজেলা নির্বাচনের তালিকা প্রকাশ করেছে। উপজেলা নির্বাচনের বিস্তারিত সূচি শিগগির ঘোষণা করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন ও তপশিলের মাঝে ৪০ থেকে ৪২ দিন সময় রাখা হয়। সেটা পরবর্তী কমিশন সভায় নির্ধারণ করা হবে।’

ইসির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী ৪ মে প্রথম ধাপে ১৫৩টি, ১১ মে দ্বিতীয় ধাপে ১৬৫টি, ১৮ মে তৃতীয় ধাপে ১১১টি ও চতুর্থ ধাপে ২৫ মে ৫২টি; মোট ৪৮১টি উপজেলায় ভোট গ্রহণ করা হবে। রমজান এবং এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার কথা বিবেচনায় রেখেই এসব তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানানো হয়। উপজেলা নির্বাচন সামনে রেখে আগারগাঁওয়ের নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে (ইটিআই) প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণ কর্মসূচি এরই মধ্যে শুরু হয়েছে। ২৬ উপজেলা কর্মকর্তাকে নিয়ে প্রথম ব্যাচের এই প্রশিক্ষণ শুরু হয়। পর্যায়ক্রমে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট অন্যদেরও প্রশিক্ষণের আওতায় আনা হবে।

ইসি সূত্র জানায়, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সামনে রেখে নির্বাচন ও আচরণ বিধিমালায় এরই মধ্যে ব্যাপক সংশোধন আনা হয়েছে। এ নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি বাড়াতে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ছাড় দিয়ে ব্যাপকভাবে উৎসাহিত করা হয়েছে। এ নির্বাচনে যাতে অধিক সংখ্যক স্বতন্ত্র প্রার্থী অংশ নিতে পারেন সেজন্য প্রার্থীর মনোনয়নপত্রের সঙ্গে ২৫০ ভোটারের সমর্থনসূচক স্বাক্ষরযুক্ত তালিকা সংযুক্তির বিষয়টি বাতিল করা হয়েছে। এ ছাড়া নির্বাচনী পোস্টার, নির্বাচনী প্রচারণা এবং প্রার্থীদের জামানতসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে বড় ধরনের সংশোধন আনা হয়েছে। স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ভোটারের সমর্থন তুলে দেওয়াসহ ইসির সংশোধিত প্রস্তাবে এরই মধ্যে মন্ত্রণালয় সায় দিয়েছে। এখন অন্যান্য প্রক্রিয়া শেষে প্রজ্ঞাপন জারি হলেই বিষয়টি কার্যকর হবে।

এ বিষয়ে ইসি সচিবালয়ের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বলেন, ‘স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ক্ষেত্রে ভোটারদের নির্দিষ্ট সংখ্যক বাধ্যতামূলক স্বাক্ষরের বিষয়টি মন্ত্রণালয়ের ভেটিং হয়ে গেছে। আমাদের আরও কিছু প্রস্তাব ছিল সবই ভেটিং হয়ে এসেছে। এখন সেগুলো আমরা আবার দেখে মন্ত্রণালয়ে পাঠাব। তারপর প্রজ্ঞাপন জারি হবে।’

ইসি সূত্র জানায়, জাতীয় নির্বাচন ও দুই সিটি ভোটের পর উপজেলা নির্বাচন চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন। বড় ধরনের কোনো বিতর্ক ছাড়াই এসব নির্বাচন শেষ করতে চান তারা। সেজন্য নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণেও বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। একই দিনে একই জেলার সব উপজেলার নির্বাচন না দিয়ে ধাপে ধাপে ভোটের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। যাতে জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েনে কোনো সমস্যা দেখা না দেয়।

এদিকে জাতীয় নির্বাচন এবং সদ্য অনুষ্ঠিত স্থানীয় সরকারের কয়েকটি নির্বাচনে ভোটার খরার বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে ভাবিয়ে তুলেছে। সেজন্য উপজেলা নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি বাড়াতে প্রতীকবিহীন এ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের ব্যাপকভাবে উৎসাহিত করা হচ্ছে। সেই লক্ষ্যে প্রার্থীদের বিশেষ ছাড় দিয়ে ভোটারদের স্বাক্ষরের বিষয়টি তুলে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি নির্বাচন পরিচালনা বিধিমালা ও আচরণ বিধিমালায় বড় ধরনের সংশোধনী এনেছে কমিশন। নির্বাচন কমিশনের এরকম একগুচ্ছ প্রস্তাব আইন মন্ত্রণালয় থেকে গত বুধবার ভেটিং হয়ে এসেছে বলে জানা গেছে। এগুলোর মধ্যে—চেয়ারম্যান প্রার্থীর জামানত ১০ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ লাখ টাকা; ভাইস চেয়ারম্যানের জামানত ১০ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৭৫ হাজার টাকা করার বিধান; জামানত বাজেয়াপ্তের ক্ষেত্রে প্রদত্ত ভোটের ১৫ শতাংশ প্রাপ্তি; অনলাইনে মনোনয়নপত্র দাখিল; প্রতি ইউনিয়নে একটি এবং পৌরসভার প্রতি তিনটি ওয়ার্ডের জন্য একটি নির্বাচনী ক্যাম্প; পোস্টার, ব্যানার সাদা-কালো অথবা রঙিন করা; প্রতীক বরাদ্দের আগে ডিজিটাল মাধ্যমে প্রচার; পাঁচজনের বেশি কর্মী বা সমর্থককে নিয়ে জনসংযোগ না করা; নির্বাচনী ক্যাম্প বা অফিসের আয়তন ৬০০ বর্গফুটের বেশি না করা; প্রচারে একটির বেশি শব্দযন্ত্র বা জনসভায় চারটির বেশি শব্দযন্ত্র ব্যবহার না করা; শব্দ বর্ধনকারী যন্ত্রের শব্দের মান মাত্রা ৬০ ডেসিবলের বেশি না থাকা; প্রচারে প্লাস্টিকের ব্যবহার না করা; সমভোটের ক্ষেত্রে লটারির মাধ্যমে ফলাফল নির্ধারণ; চেয়ারম্যান এবং ভাইস চেয়ারম্যানের নির্বাচনী ব্যয় ২৫ লাখ টাকা এবং নারী সদস্যদের এক লাখ টাকা; তৃতীয় লিঙ্গের পরিচয়ে মনোনয়নপত্র দাখিলের সুযোগ; নির্বাচনের ফলাফল স্থগিত ও ফের ভোট গ্রহণে কমিশনকে ক্ষমতা প্রদানের প্রস্তাব করেছিল ইসি। এসব প্রস্তাব অনুমোদন হলে ষষ্ঠ উপজেলা নির্বাচন হবে সংশোধিত আইনে।

উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে প্রশাসন ও ইসির নিজস্ব কর্মকর্তাদের রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ দিলে সেক্ষেত্রে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগের সিদ্ধান্ত দিয়েছে ইসি। তবে জেলা নির্বাচন অফিসারকে যদি রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হয়, সেক্ষেত্রে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগের কথা বলেছে ইসি। সম্প্রতি ইসির আনুষ্ঠানিক সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এদিকে উপজেলায় ইভিএমে ভোট গ্রহণ করা নিয়ে দোটানায় রয়েছে নির্বাচনে কমিশন (ইসি)। কতগুলো উপজেলায় ইভিএমে আর কতটিতে ব্যালটে ভোট হবে—তা নিয়ে সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি সাংবিধানিক এ সংস্থাটি। এ নির্বাচনে অধিকাংশ উপজেলায় ইভিএমে ভোট গ্রহণ করা নিয়ে নির্বাচন কমিশনারদের মধ্যেও মতবিরোধ দেখা দিয়েছে। অনেক প্রার্থী ইসির কাছে ইভিএমে ভোট গ্রহণ করার দাবি জানিয়েছেন। আবার অনেকেই উপজেলা নির্বাচনে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের দাবিও জানিয়েছেন। ইসির এক কর্মকর্তা জানান, তপশিল ঘোষণার সময় কোন উপজেলায় ইভিএম এবং কোন উপজেলায় ব্যালট পেপারে ভোট গ্রহণ হবে, সেই তালিকা প্রকাশ করা হতে পারে। তবে যেখানেই ব্যালটে ভোট হবে, সেই উপজেলার ভোট কেন্দ্রে সকালে যাবে ব্যালট পেপার।

ইসি সূত্র জানিয়েছে, ইসির হাতে এখন দেড় লাখ ইভিএম আছে। এর মধ্যে অনেকই অকেজো। সদ্য সমাপ্ত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৬০ থেকে ৭০ আসনে ব্যবহারের জন্য ইভিএমগুলো প্রস্তুত করার পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার হয়নি। তাই দুই সিটি এবং উপজেলা নির্বাচনে এসব ইভিএম ব্যবহারের পরিকল্পনা নিয়েছে কমিশন। এজন্য কিউসি করবে কমিশন। এরপর কতগুলো ইভিএম ব্যবহার উপযোগী সে অনুযায়ী কোন ধাপে কত উপজেলায় ইভিএম ব্যবহার হবে সেই সংখ্যা নির্ধারণ করবে সাংবিধানিক এই সংস্থাটি।

দেশে ৪৯৫টি উপজেলা পরিষদ রয়েছে। সর্বশেষ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন শুরু হয়েছিল ২০১৯ সালের ১০ মার্চ। পাঁচ ধাপের ওই ভোট শেষ হয় জুন মাসে। আইন অনুযায়ী, উপজেলা পরিষদের মেয়াদ শুরু হয় প্রথম সভার দিন থেকে। পরবর্তী পাঁচ বছর নির্বাচিত পরিষদ দায়িত্ব পালন করে। মেয়াদপূর্তির আগের ১৮০ দিনের মধ্যে নির্বাচনের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ২০১৫ সালে স্থানীয় সরকার নির্বাচনের আইন সংশোধন করে দলীয় প্রতীকে ভোটের বিষয়টি যুক্ত করা হয়। আর ২০১৭ সালের মার্চে প্রথমবার তিন উপজেলায় দলীয় প্রতীকে ভোট হয়। ২০১৯ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ চেয়ারম্যান পদ বাদে বাকি দুটি পদ উন্মুক্ত রাখে। এবার উপজেলায় নৌকা প্রতীক না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটি।কালবেলা

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions