শিরোনাম
বান্দরবানে কেএনএফের আস্তানায় যৌথ বাহিনীর অভিযান, নিহত ৩ রাঙ্গামাটির লংগদুতে সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত ২ মরদেহ রাঙ্গামাটি সদর হাসপাতালে স্কুলে ভর্তির টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেয়ার নির্দেশনা,ব্যাপক প্রতিক্রিয়া বিকল্প চিন্তা শেখ হাসিনার প্রতি নরেন্দ্র মোদির অবিরাম সমর্থনে বাংলাদেশ ক্ষুব্ধ অর্থনীতিকে ধারণ করার সক্ষমতা হারাচ্ছে ব্যাংকিং খাত : ফাহমিদা খাতুন ২৬ কোম্পানির বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা রাঙ্গামাটিতে ইউপিডিএফ সদস্যসহ ২ জনকে হত্যার প্রতিবাদে ২০ মে জেলায় অর্ধদিবস সড়ক ও নৌপথ অবরোধের ডাক রাঙ্গামাটির লংগদুতে সন্তু গ্রুপ কর্তৃক ইউপিডিএফ সদস্যসহ ২ জনকে গুলি করে হত্যার নিন্দা ও প্রতিবাদ রাঙ্গামাটিতে ব্রাশ ফায়ারে ইউপিডিএফের সদস্যসহ দুইজন নিহত এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পদ ৯৬,০০০ আবেদন ২৪,০০০

৩ টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাদের পদত্যাগ

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় রবিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২৩
  • ১৬৭ দেখা হয়েছে

ডেস্ক রির্পোট:- দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হওয়ায় মন্ত্রিসভার তিনজন টেকনোক্র্যাট (সংসদ সদস্য নন) সদস্য ও প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টারা পদত্যাগ করেছেন বলে জানা গেছে।

মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করা টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীরা হলেন—বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম।

মন্ত্রিসভার যেসব সদস্য সংসদ সদস্য নন, তাদের টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী বলা হয়। সংশ্লিষ্টরা আজ রোববার বিকেলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পদত্যাগপত্র জমা দেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক কর্মকর্তা জানান, মন্ত্রিসভার ৩ সদস্য ও প্রধানমন্ত্রীর ৬ উপদেষ্টার পদত্যাগপত্র নানা মাধ্যমে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পৌঁছেছে। পদত্যাগপত্র গৃহীত না হওয়া পর্যন্ত বিষয়টি প্রকাশ করা হচ্ছে না।

প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও ২৫ মন্ত্রী, ১৯ প্রতিমন্ত্রী এবং ৩ উপমন্ত্রী মন্ত্রিসভায় রয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীসহ মন্ত্রিসভার সদস্যসংখ্যা ৪৮ জন। তিনজনের পদত্যাগের ফলে সংখ্যাটি কমে ৪৫–এ দাঁড়াল।

মন্ত্রীর মর্যাদায় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা হিসেবে রয়েছেন—অর্থনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক–ই–ইলাহী চৌধুরী, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী, নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিক, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব আহমেদ ওয়াজেদ, বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান।

নির্বাচনকালীন সরকারে কোনো অনির্বাচিত প্রতিনিধি থাকা উচিত নয়—এ রকম সংসদীয় গণতন্ত্রের রীতির আলোকে মন্ত্রিসভার ৩ সদস্য এবং ৬ উপদেষ্টা পদত্যাগ করেছেন বলে জানা গেছে। যদিও ২০১৮ সালে টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীরা পদত্যাগ করলেও প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টারা পদত্যাগ করেননি। এবার প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টারাও পদত্যাগ করলেন।

নির্বাচনকালীন সরকারে টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাদের পদত্যাগের বিষয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের বলেন, ‘তফসিল ঘোষণার পর এসব পদ কেউ থাকে না, এটাই নিয়ম।’

এদিকে সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী রাজনৈতিক দলের মধ্য থেকে একাধিক ব্যক্তিকে মন্ত্রিসভায় অন্তর্ভুক্ত করা হতে পারে। এ ক্ষেত্রে বিরোধী দল জাতীয় পার্টি, জাসদ (ইনু), ওয়ার্কার্স পার্টিসহ ছোট দলগুলোর ভাগ্য খুলতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট মনে করছেন। নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র বলছে, নির্বাচনকালীন সরকারে জাতীয় পার্টির অন্তর্ভুক্তি চান জিএম কাদের। প্রধানমন্ত্রী যেমন ২০১৪ নির্বাচনে অঙ্গীকার করেছিলেন ঠিক একইভাবে জাতীয় সংসদে যেসব রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিত্ব রয়েছে তাদের সমন্বয়ে একটি নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করতে হবে, যেটিতে জাতীয় পার্টিসহ অন্য দলগুলো অন্তর্ভুক্ত রাখতে হবে।

সংবিধানে নির্বাচনকালীন সরকার বলে কিছু নেই। তবে ২০১৮ সালে জাতীয় নির্বাচনের আগেও টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীরা পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছিলেন। ওই সময়ে পদত্যাগ করা মন্ত্রীরা ছিলেন তৎকালীন ধর্মমন্ত্রী মতিউর রহমান (সম্প্রতি মারা গেছেন), বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান, প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম এবং ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। তাঁরা তফসিল ঘোষণার আগেই পদত্যাগ করেছিলেন।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions