শিরোনাম
শান্তিচুক্তির পর পার্বত্য চট্টগ্রামে কয়েক দশকের সংঘাতের অবসান হয়েছে– পার্বত্য সচিব বান্দরবানে কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের গুলিতে নিহত সেনা সদস্যের দাফন সম্পন্ন চট্টগ্রামে ১৫ দিনে সড়কে ঝরল ৬০ প্রাণ,দুর্ঘটনার কারণ ও সুপারিশ ভারতের নির্বাচনের প্রাক্কালে বাংলাদেশে মন্দিরে হামলা! সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তর্ক-বিতর্ক পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড! ব্যাংক থেকে টাকা তুলে নিচ্ছেন আমানতকারীরা চট্টগ্রামে ৩ দশমিক ৭ মাত্রার ভূমিকম্প অনুভূত দাবদাহ ও জলবায়ুর বিপর্যয়ে দেশ ‘ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাদের’ বিরুদ্ধে মামলায় যাচ্ছে মন্ত্রণালয় বান্দরবানে ব্যাংক ডাকাতিতে লুট ১৪ অস্ত্র ফেরত না দিলে শান্তি আলোচনা বন্ধ

মাংসসহ ২৯ পণ্যের দাম বেঁধে দিল সরকার

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় শনিবার, ১৬ মার্চ, ২০২৪
  • ৪৭ দেখা হয়েছে

ডেস্ক রির্পোট:- পাইকারি ও খুচরা পর্যায়ে ২৯টি পণ্যের মূল্য নির্ধারণ করে দিয়েছে সরকার। শুক্রবার (১৫ মার্চ) এ-সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে কৃষি বিপণন অধিদপ্তর। বিজ্ঞপ্তিতে স্বাক্ষর করেন ওই অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মাসুদ করিম।

সরকারের নির্ধারণ করা নতুন মূল্য অনুযায়ী, খুচরা পর্যায়ে এক কেজি গরুর মাংস ৬৬৪ টাকা ৩৯ পয়সা, খাসির মাংস ১ হাজার ৩ টাকা ৫৬ পয়সা, ব্রয়লার মুরগি ১৭৫ টাকা ৩০ পয়সা, সোনালি মুরগি ২৬২ টাকা দাম বেঁধে দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া প্রতি কেজি মুগ ডাল ১৬৫ টাকা ৪১ পয়সা, ৬৬ টাকা ৫০ পয়সা, আমদানি করা ছোলা ৯৮ টাকা ৩০ পয়সা, মসুর ডাল (উন্নত) ১৩০ টাকা ৫০ পয়সা, মসুর ডাল (মোটা) ১০৫ টাকা ৫০ পয়সা, খেসারির ডাল ৯২ টাকা ৬১ পয়সা দাম বেঁধে দেওয়া হয়েছে। তা ছাড়া দেশি পেঁয়াজ ৬৫ টাকা ৪০ পয়সা, দেশি রসুন ১২০ টাকা ৮১ পয়সা, আমদানি করা আদা ১৮০ টাকা ২০ পয়সা, শুকনা মরিচ ৩২৭ টাকা ৩৪ পয়সা, কাঁচামরিচ ৬০ টাকা ২০ পয়সা, বাঁধাকপি ২৮ টাকা ৩০ পয়সা, ফুলকপি কেজিপ্রতি ২৯ টাকা ৬০ পয়সা দাম নির্ধারণ করা হয়েছে। এ ছাড়া চাষ করা পাঙাশ ১৮০ টাকা ৮৭ পয়সা, কাতল মাছ (চাষ) ৩৫৩ টাকা ৫৯ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছে।

এদিকে প্রতি কেজি বেগুন ৪৯ টাকা ৭৫ পয়সা, শিম ৪৮ টাকা, আলু ২৮ টাকা ৫৫ পয়সা, টমেটো ৪০ টাকা ২০ পয়সা, মিষ্টিকুমড়া ২৩ টাকা ৩৮ পয়সা, জাহিদি খেজুর ১৮৫ টাকা ৭ পয়সা, চিড়া (মোটা) ৬০ টাকা, বেসন ১২১ টাকা ৩০ পয়সা, ডিম প্রতি পিস ১০ টাকা ৪৯ পয়সা, সাগর কলা প্রতি হালি ২৯ টাকা ৭৮ পয়সা বেঁধে দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, একটি পণ্য উৎপাদক পর্যায়ে সর্বোচ্চ দাম, পাইকারি বাজারে এবং ভোক্তা পর্যায়ে খুচরা দাম কত হবে সেটি নির্ধারণ করা হয়েছে। কৃষি বিপণন আইন, ২০১৮-এর ৪(ঝ) ধারার ক্ষমতাবলে কৃষি বিপণন অধিদপ্তর কৃষিপণ্যের যৌক্তিক মূল্য নির্ধারণ করেছে। পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত নতুন এ দামে কৃষিপণ্য ক্রয়-বিক্রয়ের অনুরোধ করা হলো।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions