রাঙ্গামাটির কাকড়াছড়ি সাসনা বৌদ্ধ বিহারে ধাতু জাদির থিড স্থাপন ও উৎর্সগ অনুষ্ঠান

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় শনিবার, ২ মার্চ, ২০২৪
  • ১৩১ দেখা হয়েছে

চাইথোয়াইমং মারমা,রাজস্থলী:- রাঙ্গামাটি জেলা রাজস্থলী উপজেলা ৩নং বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়নের অর্ন্তগত কাকড়াছড়ি পাড়া সাসনা বৌদ্ধ বিহারে সিরিসাঙলা ছুতংব্রে ধাতু জাদির থিড স্থাপন ও উৎর্সগ সংস্কারত সীমাঘর বিশ্রামঘর ও নবর্নিমিত গেইট উৎর্সগ অনুষ্ঠান উদ্বোধন করা হয়েছে।
১ মার্চ শুক্রবার সকালে মঙ্গল ঢোল বাজিয়ে জাতীয় ও ধর্মীয় পতাকা সহ ধ্বজা উক্তোলন মাধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করা হয়েছে।এসময় উপস্থিত উদ্বোধক নাইক্যছড়া আগা পাড়া ডাকবাংলা অনাথ আশ্রমের প্রতিষ্ঠাতা উ: খেমা চারা মহাথেরো ডাকবাংলা বৌদ্ধ গুরু অধ্যক্ষ ওয়ানাই চারা সহ তিন পার্বত্য জেলা হতে বিভিন্ন বৌদ্ধ বিহারে প্রধান ভিক্ষু গণ দায়ক ও দায়িকা বিভিন্ন পেশাজীবীরা শত শত নারী ছোট বড় উপস্থিত ছিলেন। আর ও বিশেষ অতিথি ৩নং বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আদোমং মারমা। বৌদ্ধ ধর্মের অনুযায়ী পার্বত্য চট্রগ্রামে বসবাসরত মারমা সমাজে গৌতম বুদ্ধের শাসন অনুসরন করে মঙ্গল ঢোল বাজিয়ে জাতীয় ও ধর্মীয় পতাকা ধর্মীয় ধ্বজা উক্তোলন,জাদিতে বুদ্ধ মূর্তির জীবন্যাস থিড স্থাপন ভিক্ষু সংঘের আপ্যায়ন দুপুর ১২ টা আগত নারী পুরুষ অতিথি দেরকে দুপুরে আহার ভোজন প্রদান করা হয়। বিকাল ২ টা ধর্ম দেশনা করেন বিভিন্ন বৌদ্ধ বিহার হতে আগত অতিথি ভিক্ষুবৃন্দ, কাকড়াছড়ি সাসনা বৌদ্ধ জাদী উৎর্সগ কমিটি আহবায়ক কারবারী সুইক্যচিং মারমা জানান,বিকাল ৪ টা জাদি বিশ্রামাগার সীমাঘর ও গেইট উৎসর্গ করা হবে।
এটি অত্র এলাকার প্রথম বিভিন্ন সাজসজ্জা বৌদ্ধ ধর্মের অনুযায়ী শান্তি শৃঙ্খলা পরিবেশের মাধ্যমে নবনির্মিত জাদিকে সাজানো হয়েছে। এটা জাদি দেখার জন্য ৩ পার্বত্য জেলা হতে হাজার বৌদ্ধ ধর্মের লম্বীরা মিলন পরিনত সমাগম হয়েছে। কয়েকজন নামপ্রকাশ অনিচ্ছুক ধর্মপ্রাণ দায়ক দায়িকারা গণমাধ্যম কে বলেন রাজস্থলী উপজেলা ৩ নং বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়নের সর্ব প্রথম মারমা সম্প্রদায়ের থিড স্থাপন জাদি উৎর্সগ অনুষ্ঠান সাজসজ্জা বাস্তব দেখে নিজে খু্বই আনন্দিত উপলদ্বি করেছি। আগামী তে আরো বৌদ্ধ জাতি সাসনা সারাদুনিয়া ছড়িয়ে যাক,ও বিভিন্ন এলাকার এ ধরনের সুন্দর অনুষ্ঠান হোক সকলে আশা করছি। জয় হোক বৌদ্ধ চেতনা জাতি। অহিংসা পরম ধর্ম কর্ম সেবাই পরম ধর্ম। জগতে সকল প্রাণী সুখী হোক। জাদি উৎর্সগ সদস্য সচিব অংসুইহলা মারমা বলেন, আমরা আজকের অনুষ্ঠান সুন্দর পরিবেশের শেষ করতে পারি সকলে কাছে কামনা করছি। এর পর শেষান্তের সন্দ্যা ৭ টা মারমা ঐতিহ্যবাহি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান জ্যাত মধ্যে দিয়ে শেষ করা হবে।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions