খাগড়াছড়িতে ধর্ষণ চেষ্টাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় রবিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
  • ৭৫ দেখা হয়েছে

খাগড়াছড়ি:- খাগড়াছড়ির চৌংড়াছড়িতে গত শুক্রবার ৯ ফেব্রুয়ারি দুজন বখাটে ছেলে কাটিংটিলা এলাকার শাহাদাত হোসেন প্রকাশ সাজু (২৫) ও টুলু মিয়া (২২) কর্তৃক মারমা (৫৬) নারীকে ধর্ষণচেষ্টার প্রতিবাদ ও অভিযুক্ত আসামিদের গ্রেফতার করে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ মারমা স্টুডেন্ট কাউন্সিল।

রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টায় খাগড়াছড়ি সরকারি স্কুল মাঠ থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। বিক্ষোভ মিছিলটি প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা শহরের শাপলা চত্বরে এসে শেষ হয়। পরে মুক্তমঞ্চে সমাবেশ করা হয়।

সমাবেশে বিএমএসি খাগড়াছড়ি জেলা’র সাধারণ সম্পাদক উক্যনু মারমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন ত্রিপুরা স্টুডেন্ট ফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নয়ন ত্রিপুরা,বাংলাদেশ মারমা স্টুডেন্ট কাউন্সিলের কেন্দ্রীয় কমিটি’র প্রতিনিধি সাচিং মং মারমা, কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ-সভাপতি মংসাই মারমা, টিএসএফর কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক অঞ্জুলাল ত্রিপুরা, খাগড়াছড়ি জেলা কমিটি’র সভাপতি চিংসা মারমা, বিএমএসসি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাহিত্য ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক সাথোয়াইঅং মারমাসহ বিএমএসসি’র অঙ্গ-সহযোগী সংগঠন ও সচেতন শিক্ষার্থীরা।

বিক্ষোভ সমাবেশে বিক্ষোভকারীরা বলেন, পাহাড়ের ইদানীং ধর্ষকদের উৎপাত বেড়ে যাচ্ছে। গত শুক্রবার ৯ ফেব্রুয়ারি নদীতে পাতিল ধোয়ার সময় পিছন দিক থেকে কাটিংটিলা এলাকার বখাটে শাহাদাত হোসেন প্রকাশ সাজু (২৫) ও টুলু মিয়া (২২) তাঁকে ঝাপটে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা করে। আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার করে সর্বোচ্চ শাস্তির প্রদানের জন্য প্রশাসনের নিকট জোর দাবি জানান তারা। পরবর্তীতে যেন এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে সেজন্য আসামিদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির দাবি জানান তারা।

উল্লেখ্য যে, গত শুক্রবার ৯ ফেব্রুয়ারি বিকাল ২টায় মারমা নারী (৫৬) তাঁর নিজ বাড়ির আনুমানিক ১০০ গজ দক্ষিণে পাহাড়ি ঝর্ণার নিচে কুয়া থেকে বোতল দিয়ে পানি আনতে ও পাতিল ধোয়ার জন্য যান। পাতিল ধোয়ার সময় পিছন দিক থেকে কাটিংটিলা এলাকার আসামি শাহাদাত হোসেন প্রকাশ সাজু (২৫) ও টুলু মিয়া (২২) তাঁকে ঝাপটে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় তিনি চিৎকার করলে আসামিরা তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হয়। পরে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে তিনি চিৎকার দিলে তাঁর স্বামী শুনতে পেয়ে ঘটনাস্থলের দিকে এগিয়ে যান এবং আসামিদের দেখতে পান। এ সময় তাঁর স্বামী আসামিদেরকে ধর ধর বলে ধাওয়া দিলে তারা দৌড়ে পালিয়ে যায়।

এ সময় আসামিদের মধ্যে ১ জন মোবাইল সেট ঘটনাস্থলে ফেলে পালিয়ে যায়।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions