সংরক্ষিত আসনে এবার নতুন মুখের প্রাধান্য

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ৩০ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ৭৭ দেখা হয়েছে

ডেস্ক রিরোট:- জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে প্রার্থী মনোনয়নে দলের ত্যাগী নেত্রীদের প্রাধান্য দেবে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। একাদশ সংসদে যারা সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন, তাদের দু-চারজন ছাড়া সবাই বাদ পড়বেন। ফলে সংরক্ষিত আসনে এবার নতুন মুখের প্রাধান্য দেখা যাবে। দলের কেন্দ্রীয় কমিটির গুরুত্বপূর্ণ একাধিক নেতা এমনটি জানিয়েছেন।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান কাজী জাফর উল্যা বলেন, প্রার্থী বাছাইয়ে অনেক কিছু বিবেচনায় নেওয়া হবে। একজনকে বারবার সংসদ সদস্য করা হবে না। যারা আগে হতে পারেননি, যাদের বাবা-মা অনেক দিন ধরে দলের জন্য অবদান রেখেছেন, এমন অনেককে বিবেচনায় নেওয়া হবে। যারা জোটের প্রার্থীকে আসন ছেড়ে দিয়েছেন বা মনোনয়ন পেয়েও জিততে পারেননি, তাদেরও কাউকে কাউকে বিবেচনায় নেওয়া হবে।

আজ মঙ্গলবার দ্বাদশ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশন বসবে। শিগগিরই সংরক্ষিত ৫০ আসনের প্রার্থী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সরাসরি ভোটে নির্বাচিত সংসদ সদস্যরা সংরক্ষিত আসনের প্রার্থী নির্বাচন করবেন। রাজনৈতিক দল, জোট বা স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যদের সংখ্যার অনুপাতে এ আসন বণ্টন করা হয়ে থাকে। প্রতি ছয় আসনের বিপরীতে একটি সংরক্ষিত আসন বণ্টন করা হয়। দ্বাদশ সংসদে আওয়ামী লীগের ২২৩ জন সংসদ সদস্য রয়েছেন। স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য আছেন ৬২ জন। স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যরা প্রায় সবাই আওয়ামী লীগের সঙ্গে সম্পৃক্ত। ফলে তারা সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদেরই সমর্থন দিচ্ছেন। সব মিলিয়ে আওয়ামী লীগ এবার মোট ৪৮টি সংরক্ষিত আসনে প্রার্থী মনোনয়ন দিতে পারবে।

গত রবিবার স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে স্বতন্ত্ররা তাদের প্রাপ্য সংরক্ষিত আসনগুলোতে প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়ার দায়িত্ব শেখ হাসিনার ওপরে ন্যস্ত করেন। দলীয় একাধিক সূত্র জানায়, গতকাল সোমবার ৫৫ জন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগকে সমর্থন জানিয়েছেন। আজ মঙ্গলবার বাকিদের সমর্থন দেওয়ার কথা রয়েছে। গতকাল জাতীয় সংসদ ভবনে হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপনের কার্যালয়ে গিয়ে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যরা তাদের সমর্থন জানিয়ে স্বাক্ষর দিয়ে আসেন।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় গুরুত্বপূর্ণ একাধিক নেতা জানান, স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যরা চাইলে নিজেরাই সংরক্ষিত আসনের প্রার্থী মনোনয়ন দিতে পারতেন। তাদের অনেকের কাছেই মনোনয়নপ্রত্যাশীরা তদবির করেছেন। মনোনয়নপ্রত্যাশীদের অনেকে কোটি টাকার বিনিময়ে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যদের সমর্থন চেয়েছেন বলেও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে খবর আছে। তবে শেষ পর্যন্ত এসব লোভ সংবরণ করে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যরা দলের নেতৃত্বের প্রতি আনুগত্য দেখিয়েছেন। এ বিষয়টিকে আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী পর্যায় খুবই ইতিবাচকভাবে দেখছে।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় একাধিক সূত্র জানায়, সংরক্ষিত আসনে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের অনেকেই দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে দৌড়ঝাঁপ করছেন। সম্প্রতি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন দলের সহযোগী সংগঠনগুলোর অর্ধশতাধিক মনোনয়নপ্রত্যাশী। বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রতিনিধিরাও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, চলচ্চিত্র অভিনেত্রীদেরও অনেকে দৌড়ঝাঁপ করছেন।

আওয়ামী লীগ সংসদীয় বোর্ডের একজন নেতা জানান, এতদিন মনোনয়নপ্রত্যাশীদের অনেকের ধারণা ছিল স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যরা তাদের মতো করে প্রার্থী মনোনয়ন দেবেন। সে কারণে অনেকেই স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যদের পেছনে ছুটেছেন। রবিবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে স্বতন্ত্র এমপিদের বৈঠকের পর সবার কাছে স্পষ্ট হয় যে স্বতন্ত্রদের প্রাপ্য আসনগুলোতেও আওয়ামী লীগই প্রার্থী মনোনয়ন দেবে। ফলে যারা এতদিন স্বতন্ত্রদের পেছনে ছুটেছেন, তারাও এখন আওয়ামী লীগের নেতাদের কাছে যাচ্ছেন।

জাতীয় সংসদের হুইপ ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেন, আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, দলের ত্যাগী নেত্রীদের মূল্যায়ন করা হবে। যাদের পরিবারের আওয়ামী লীগের জন্য অবদান আছে, তাদের মধ্য থেকেও সংসদ সদস্য করা হবে। বিভিন্ন পেশার কয়েকজন প্রতিনিধিকে সংসদে স্থান দেওয়ার আভাস দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।
খবরের কাগজ

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions