শিরোনাম
উপজেলা পরিষদ নির্বাচন,প্রথম ধাপে বিনা ভোটে ২৬ প্রার্থী নির্বাচিত রাঙ্গামাটির ৪ উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ রাঙ্গামাটিতে বৃহস্পতিবার সড়ক ও নৌপথ অবরোধ–ইউপিডিএফ পাহাড়ে আগর বাগান বাড়লেও বাজার ব্যবস্থাপনার অভাব মিটার নেই, সংযোগ নেই তবুও বিদ্যুৎ বিল ৬ লাখ ৬৯ হাজার টাকা চুয়েটের দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় কাপ্তাই সড়ক অবরোধ, বিক্ষোভ ‘রূপান্তর’ বিতর্ক: জোভান-মাহিসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন খান ইউনিসের এক গণকবরেই মিলল ৩০০ লাশ কেন্দ্রের নির্দেশ উপেক্ষা করে নির্বাচনে বিএনপির ৩৮ জন বান্দরবানে ব্যাংক ডাকাতি: রুমা ছাত্রলীগ সভাপতিসহ ৭ জন কারাগারে

বিরোধীদের শোডাউন আজ আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ নিয়ে মুখোমুখি

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় শনিবার, ২৭ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ১০২ দেখা হয়েছে

ডেস্ক রিরোট:- ঢাকায় আজ কালো পতাকা মিছিল করবে বিএনপি ও সমমনা দলগুলো। এই কর্মসূচির মধ্যদিয়ে রাজপথে নিজেদের শক্তি আবার জানান দিতে চায় সরকারবিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। এজন্য নেয়া হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি। কারণ নির্বাচনের পর রাজপথে সর্বোচ্চ লোক সমাগম ঘটিয়ে বড় শোডাউন করতে চায় তারা। ইতিমধ্যে সকল ধরনের প্রস্তুতিও শেষ করেছে বিএনপি। ওদিকে বিরোধীদের কর্মসূচির দিন রাজধানীতে শান্তি সমাবেশ করবে আওয়ামী লীগ। নির্বাচনের পর বিএনপি ও আওয়ামী লীগের এই পাল্টা-পাল্টি কর্মসূচিকে ঘিরে রাজনীতিতে আবারো উত্তাপ এবং উৎকণ্ঠা বাড়ছে। তবে বিএনপি নেতারা বলছেন, তারা শান্তিপূর্ণভাবেই মিছিল করবে। এতে কোনো বিশৃঙ্খলা হবে না। এই নির্দেশনা সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের দেয়া হয়েছে।
ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপি’র ওয়ার্ড ও থানা পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মিছিলে সর্বোচ্চ নেতাকর্মীদের নিয়ে উপস্থিত হতে নির্দেশনা দিয়েছেন বিএনপি’র হাইকমান্ড।

কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে মহানগরের ওয়ার্ড ও থানা পর্যায়ের ভার্চ্যুয়াল ও জুম মিটিংসহ ব্যক্তিগতভাবেও কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন বিএনপি’র সিনিয়র নেতারা। পাশাপাশি নেতাকর্মীরা সরাসরি এবং আলাদা আলাদাভাবেও বসে মিটিং করছেন। বিএনপি’র পাশাপাশি দলটির অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরাও সর্বোচ্চ প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। তারাও সর্বোচ্চ কর্মীদের নিয়ে কর্মসূচিতে যোগ দিবেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে মহানগর বিএনপি’র এক শীর্ষ নেতা বলেন, বিএনপি’র প্রতিটি অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের কালো পতাকা হাতে ও মাথায় বেঁধে এবং হাতে নিয়ে সর্বোচ্চ নেতাকর্মীদের উপস্থিতি দেখাতে বলা হয়েছে। কোন সংগঠন কতো লোক নিয়ে কর্মসূচিতে যোগ দেয় তার রিপোর্টও তৈরি করে বিএনপি’র হাইকমান্ডের কাছে জমা দেয়া হবে। সেই অনুযায়ী সংগঠনগুলোর বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে। ওদিকে টাঙ্গাইল বাদে ঢাকা বিভাগীয় সকল জেলাগুলো কেন্দ্রীয় বিএনপি’র সঙ্গে রাজধানীতে কালো পতাকা মিছিলে সম্পৃক্ত হবে। সকল জেলা থেকে সর্বোচ্চ নেতাকর্মীদের নিয়ে এই কর্মসূচিতে যোগ দিতেও বিএনপি’র হাইকামান্ড থেকে নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে।

বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী বলেন, বিএনপি’র মিছিলে লোক সমাগম খুবই ভালো হবে। এজন্য ইতিমধ্যে ঢাকা মহানগরসহ বিএনপির অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আশা করছি, কালো পতাকা মিছিলে সর্বোচ্চ লোক সমাগম ঘটবে।

দ্রব্যমূল্যের সীমাহীন ঊর্ধ্বগতি, চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ সকল রাজবন্দির মুক্তি, সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও অবৈধ সংসদ বাতিলসহ একদফা দাবি আদায়ে এই কালো পতাকা মিছিল করবে বিএনপি। পাশাপাশি সরকারবিরোধী সমমনা দল এবং জোটগুলোও শনিবার পৃথক পৃথকভাবে একই দাবিতে ঢাকায় বিভিন্ন স্থানে এই কর্মসূচি পালন করবে। বেলা ২টায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বিএনপি’র কালো পতাকা মিছিল শুরু হবে। তাদের মিছিলটি নয়াপল্টন থেকে কাকরাইল, মালিবাগ হয়ে মগবাজার মোড়ে গিয়ে শেষ হবে। মিছিলে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্যসহ কেন্দ্রীয় এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত থাকবেন। আর সারা দেশে যেসব জেলাগুলোর সঙ্গে মহানগর আছে, সেসব জেলাগুলোও আজ এই কর্মসূচি এক সঙ্গে পালন করবে বলে বিএনপি’র দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে। শান্তি সমাবেশ প্রসঙ্গে নিতাই রায় চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগ তো উত্তপ্ত করে রাখে। বিএনপি কর্মসূচি দিলেই তারা পাল্টা কর্মসূচি দেয়। এরমধ্যে গ্রেপ্তার, মামলা ও হয়রানি তো চলছেই। দেশে গণতন্ত্র থাকলে এটা হতো না।

গণফোরাম একাংশের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী বলেন, আমাদের কর্মসূচি আছে। আমরা আমাদের কর্মসূচি পালন করবো। কিন্তু আওয়ামী লীগ এখন আর রাজনৈতিক দল নাই। তারা একটি সন্ত্রাসী দল। তাদের মধ্যে রাজনৈতিক সংস্কৃতি নেই। গত ১৫ বছর ধরে তারা যা করেছে এখনো তাই করছে।

এদিকে বেলা সাড়ে ১২টায় বিজয় নগর পানির ট্যাংকি সামনে ১২ দলীয় জোট, বিকাল সাড়ে ৩টায় মতিঝিলে গণফোরাম ও বাংলাদেশ পিপলস পার্টি, বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী সমমনা জোট এবং একই সময় বিজয় নগর পানির ট্যাংকির সামনে থেকে কালো পতাকা মিছিল করবে এলডিপি। এ ছাড়া বিকাল সাড়ে ৩টায় বিজয় নগর দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করবে এবি পার্টি।

অন্যদিকে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগও এদিন পাল্টা কর্মসূচি দিয়ে মাঠে থাকার ঘোষণা দিয়েছে। বিকাল ৩টায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এই শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এই কর্মসূচিতে ব্যাপক লোক সমাগমের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শান্তি সমাবেশ সফল করার সঙ্গে সম্পৃক্ত নেতারা। শান্তি সমাবেশ প্রসঙ্গে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ মানবজমিনকে বলেন, মহানগরের দক্ষিণের অন্তর্গত সব ওয়ার্ড নেতাকর্মীদের সমাবেশে উপস্থিত থাকার নির্দেশা দেয়া হয়েছে। বিএনপি তাদের কর্মসূচির নামে রাজধানীতে যাতে কোনো ধরনের অরাজকতা বা আগুন সন্ত্রাস করতে না পারে, সে বিষয়ে আমরা সতর্ক রয়েছি।মানবজমিন

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions