তাইওয়ান চীনের কাছে আসবে নাকি আরও দূরে সরবে, জানা যাবে শিগগির

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় শনিবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ১৪১ দেখা হয়েছে

ডেস্ক রির্পোট:- পূর্ব এশিয়ার অন্যতম আলোচিত দেশ তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। একই সঙ্গে দেশটির পার্লামেন্ট নির্বাচনেরও ভোট গ্রহণ হলো আজ। এরই মধ্যে ভোট গ্রহণের সময় শেষ হয়েছে। এগিয়ে চলেছে গণনার কাজ। গণনা যতই এগিয়ে যাচ্ছে, ততই স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে তাইওয়ান আসলে কোন দিকে ঝুঁকে পড়বে বিষয়টি—চীনের দিকে, নাকি চীন থেকে আরও দূরে।

তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন তিনজন প্রার্থী। তাঁরা হলেন ক্ষমতাসীন ও চীনবিরোধী বলে পরিচিত ডেমোক্রেটিক প্রগ্রেসিভ পার্টি (ডিপিপি) থেকে নির্বাচিত বর্তমান ভাইস প্রেসিডেন্ট লাই চিং-তে, তাইওয়ানের বৃহত্তম বিরোধী দল কুওমিনতাংয়ের (কেএমটি) হউ ইউ-ইহ এবং তাইওয়ান পিপলস পার্টির (টিপিপি) নেতা ও তাইপেইয়ের সাবেক মেয়র কো ওয়েন-জে। পরের দুজন চীনের প্রতি সহানুভূতিশীল বলে পরিচিতি রয়েছে।

নির্বাচনের আগে থেকেই চীন বারবার লাই চিং-তেকে ‘বিপজ্জনক বিচ্ছিন্নতাবাদী’ বলে আখ্যা দিয়েছে। চীনের অভিযোগ, লাই আলোচনার জন্য চীনা আহ্বান বারবার প্রত্যাখ্যান করেছেন। তবে লাই বলেছেন, তিনি তাইওয়ান প্রণালিতে শান্তিরক্ষা এবং দ্বীপদেশটির প্রতিরক্ষা জোরদার করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

হউ চীন ও তাইওয়ানের জনগণের মধ্যে সরাসরি সম্পর্ক তৈরির পক্ষে। তিনি চান চীনের সঙ্গে আলোচনা আবারও শুরু করতে। হউ তাঁর রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ লাইকে তাইওয়ানের বিচ্ছিন্নবাদের সমর্থক বলে অভিহিত করেছেন। বিপরীতে লাই হউকে বেইজিংপন্থী বলে অভিযুক্ত করেছেন, তবে হউ এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন।

অপর প্রার্থী কো ওয়েন-জে তরুণদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয়। তিনি তাইওয়ানের জনগণের দৈনন্দিন জীবনের ওপর তাঁর মূল ফোকাস নির্ধারণ করেছেন। তিনিও তাইওয়ানকে চীনের সঙ্গে যুক্ত করার পক্ষে। তবে তিনি বলেছেন, এই একত্রীকরণ তাইওয়ানের গণতন্ত্র ও জীবনযাত্রার সুরক্ষার বিনিময়ে নয়, হতে হবে উইন-উইন পরিস্থিতিতে।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions