শিরোনাম
হেলমেটের মান নির্ধারণ হবে কবে? উপজেলা নির্বাচনে মন্ত্রী-এমপিদের আত্মীয়দের সরে দাঁড়ানোর নির্দেশ আ.লীগের, আছে শাস্তির বার্তাও রাঙ্গামাটির চন্দ্রঘোনায় পরোয়ানাভুক্ত ৭ আসামি গ্রেফতার খাগড়াছড়ির পানছড়িতে চেংগী নদীতে ডুবে শিশুর মৃত্যু রাঙ্গামাটিতে বজ্রপাতে আরও এক নারীর মৃত্যু মালিকদের লুটপাটে বেসরকারি অনেকগুলো ব্যাংক ধ্বংসের মুখে ফারাক্কার প্রভাবে পদ্মা নদী এখন বিলে পরিনত হয়েছে ভয়-উৎকণ্ঠায় দিন কাটছে মিয়ানমার সীমান্তবাসীর বিশ্বের প্রভাবশালী ১০০ ব্যক্তির তালিকায় স্থান, কে এই বাংলাদেশি নারী? বান্দরবানের রুমা-থানচিতে ব্যাংকে হামলা: ১৮ নারীসহ ৫৩ জনের রিমান্ড মঞ্জুর

বান্দরবানে অনুমোদন ছাড়াই ভবন সম্প্রসারণের অভিযোগ

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় বুধবার, ১০ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ১২৮ দেখা হয়েছে

বান্দরবান:- বান্দরবানে অনুমোদন ছাড়াই নকশা বদল করে পৌর মাছ ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির ভবন সম্প্রসারণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। পিলার থাকলেও ঢালু পাহাড় হওয়ায় ভবনটির নিচের অংশে দেয়াল ছিল না। এখন দেয়াল দিয়ে কক্ষ করা হচ্ছে। ওপরের তলায় অর্থাৎ সমিতির মূল ভবনের ভেতরও দেয়াল ভেঙে নতুনভাবে করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা।

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, যেকোনো জমির ওপর পাকা ভবন করতে হলে মাটি পরীক্ষাসহ সংশ্লিষ্ট সব ধরনের পরীক্ষা করতে হয়, যা বাধ্যতামূলক। তবে পাহাড়ি ঢালু জমিতে হলে ভবনের ভিত্তির গভীরতা বাড়িয়ে রাখতে হয়। যাতে ভূমিকম্পসহ বর্ষাকালে পাহাড়ধসের মতো ঘটনায় ভবন রক্ষা পায়। অন্যথায় ঢালু জমির ভবনে অঘটনের ঝুঁকি থেকে যায়। তবে সরকারি অর্থায়নে করা ভবনের নকশা পরিবর্তনে অনুমোদন নিতে হয়। না হলে তা বৈধ হয় না বলে মনে করেন উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলীরা।

ভবনের সাইনবোর্ড অনুযায়ী, এটি নির্মাণ করেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড। ২০১৮-২০২০ দুই অর্থবছরে ভবনটি নির্মাণ করা হয়।

এ বিষয়ে বান্দরবান পৌর মাছ ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সভাপতি মো. আবু তাহের বলেন, ‘সমিতির সদস্যরা যাতে পরিবার নিয়ে থাকতে পারে এজন্য মূল ভবনসহ নিচতলায় রুম করা হচ্ছে। ওপরে সম্প্রসারণ করা হলেও টিনের চাল দেয়া হবে। যাতে ওজন না বাড়ে।’ পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ের কথা জানালে নির্মাণকালে ১৫-২০ লাখ টাকার বেশি ব্যয় হয়নি বলে দাবি তার।

তবে বিষয়টি জানেন না পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের বান্দরবান ইউনিটের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বিন মো. ইয়াসির আরাফাত। তিনি বলেন, ‘চাইলেই সরকারি অর্থায়নে করা ভবনের নকশা পরিবর্তন করা যায় না। এজন্য অনুমোদন নিতে হয়। না হলে তা অবৈধ। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’বণিক বার্তা

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions