শিরোনাম
রাঙ্গামাটির লংগদুতে সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত ২ মরদেহ রাঙ্গামাটি সদর হাসপাতালে স্কুলে ভর্তির টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেয়ার নির্দেশনা,ব্যাপক প্রতিক্রিয়া বিকল্প চিন্তা শেখ হাসিনার প্রতি নরেন্দ্র মোদির অবিরাম সমর্থনে বাংলাদেশ ক্ষুব্ধ অর্থনীতিকে ধারণ করার সক্ষমতা হারাচ্ছে ব্যাংকিং খাত : ফাহমিদা খাতুন ২৬ কোম্পানির বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা রাঙ্গামাটিতে ইউপিডিএফ সদস্যসহ ২ জনকে হত্যার প্রতিবাদে ২০ মে জেলায় অর্ধদিবস সড়ক ও নৌপথ অবরোধের ডাক রাঙ্গামাটির লংগদুতে সন্তু গ্রুপ কর্তৃক ইউপিডিএফ সদস্যসহ ২ জনকে গুলি করে হত্যার নিন্দা ও প্রতিবাদ রাঙ্গামাটিতে ব্রাশ ফায়ারে ইউপিডিএফের সদস্যসহ দুইজন নিহত এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পদ ৯৬,০০০ আবেদন ২৪,০০০ রিজার্ভ নিয়ে তিন হিসাব, চাপ বাড়ছে

গুলিতে নিহত নাজিমের লাশ রংপুরে ‘ওয় যে কয়ছলো রমজানোত বাড়িত আসবে’

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১৪ মার্চ, ২০২৩
  • ৩১২ দেখা হয়েছে

ডেস্ক রির্পোট:- ‘ওয় যে কয়ছলো রমজানোত বাড়িত আসবে। ভালো-মন্দ আন্দি খিলাইম। তাক আগোতে কেন আসিল? কথা কেন কওছে না? কী হইছে, ওঠে না কেন? ওমাক কি মারি ফেলাইছে? অখন মোর ছাওয়াগুলার কী হইবে?’ বলেই মূর্ছা যান চামেলী বেগম।

সেনা ওয়ারেন্ট অফিসার স্বামী নাজিম উদ্দিনের সঙ্গে চামেলী বেগমের সর্বশেষ কথা হয় গত শনিবার। পরদিন রোববার বিকেলে আসে তাঁর মৃত্যুর খবর। এ খবরে চামেলীর চারদিকে ঘোর অন্ধকার নেমে আসে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া নাইমুজ্জামান চঞ্চল ও এইচএসসি পড়ুয়া ছেলে আব্দুল্লাহ আল নোমান নীরবের ভবিষ্যৎ নিয়ে তিনি আর ভাবতে পারছেন না।

বান্দরবানের রোয়াংছড়িতে সেনাবাহিনীর টহল দলের ওপর কুকি-চিন ন্যাশনাল আর্মির (কেএনএফ) গুলিতে নিহত নাজিম উদ্দিনের লাশ আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রংপুরের মডার্ন এলাকার আশরতপুর কোর্টপাড়ার নিজ বাড়ি আসে। স্বামীর লাশ দেখে বারবার মূর্ছা যাচ্ছেন তাঁর স্ত্রী চামেলী বেগম।

জানা গেছে, গত রোববার বেলা ১টার দিকে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে জাতীয় শিশু ও স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় মা ও শিশুদের বিনা মূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দেওয়ার উদ্দেশে যাওয়া নিরাপত্তায় নিয়োজিত সেনা দলের সঙ্গে ছিলেন নাজিম উদ্দিন। এ সময় কুকি-চিন ন্যাশনাল আর্মির গুলিতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি। আহত হন আরও দুজন।

আজ বেলা ১১টা ১৫ মিনিটে হেলিকপ্টারযোগে নিজাম উদ্দিনের মরদেহ রংপুর ক্যান্টনমেন্টে নিয়ে আসা হয়। এরপর সেখান থেকে সেনাবহরে করে তাঁর লাশ নিজ বাড়িতে নেওয়া হয়।

রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় নাজিম উদ্দিনের লাশ দাফনরাষ্ট্রীয় মর্যাদায় নাজিম উদ্দিনের লাশ দাফন। ছবি: আজকের পত্রিকা
নাজিমের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, স্বজনদের কান্নায় পুরো এলাকা ভারী হয়ে উঠেছে। বাড়িজুড়ে চলছে শোকের মাতম। পাড়া, প্রতিবেশী ভিড় করেছেন নাজিমকে এক মুহূর্ত দেখার জন্য।

নাজিম উদ্দিনের ছোট ভাই আজিম উদ্দিন বলেন, ‘১৯৯১ সালে ভাই সেনাবাহিনীতে যোগদান করেন। দুই মাস আগেও ছুটিতে এসেছিলেন। শনিবার ভাবির সঙ্গে কথা হয়েছে এবার রমজানে বাড়ি আসবেন। কিন্তু ভাই যে এভাবে আসবেন তা আমরা কেউ আশা করিনি। ভাইকে যারা গুলি করেছে, তাদের সঠিক বিচার করা হোক।’

প্রতিবেশী শাহজাহান মিয়া বলেন, ‘নাজিম অত্যন্ত ভালো মানুষ ছিলেন। ছুটিতে বাড়িতে এলে আমাদের খোঁজখবর নিতেন। তাঁর এভাবে চলে যাওয়া মেনে নেওয়া যায় না। এখন নাজিমের স্ত্রী-সন্তানের কী হবে। আল্লাহ যেন তাদের প্রতি সহায় হন।’

রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেন, ‘নাজিম উদ্দিন শহীদ হয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার বিশেষ অনুরোধ থাকবে, তাঁর এতিম সন্তানদের লেখাপড়ায় সহায়তা করা এবং পরিবারটিকে রাষ্ট্রীয় সব সুযোগ-সুবিধা যেন নিশ্চিত করা হয়।আজকের পত্রিকা

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions