শিরোনাম
আগামীকাল সারা দেশে বিক্ষোভের ডাক,আসবে অবরোধও পাহাড় থেকে চীনে নারী পাচারকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে রাঙ্গামাটিতে মানববন্ধন প্রধানমন্ত্রীর নিকট পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এপিএ হস্তান্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ২৬ বছর পূর্তি উদযাপন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন চাইলে ঢাবিতে প্রবেশ করবে পুলিশ : বিপ্লব ‘জবাব ছাত্রলীগই দেবে’, কোটাবিরোধীদের রাজাকার স্লোগান নিয়ে কাদের আমেরিকা পালিয়েছেন ৪০০ কোটির পিয়ন আন্দোলনকারী-ছাত্রলীগ সংঘর্ষে উত্তপ্ত চট্টগ্রাম ঢাবিতে সাঁজোয়া যানসহ বিপুল সংখ্যক পুলিশের অবস্থান ঢাবির হলে বহিরাগত অবস্থানে নিষেধাজ্ঞাসহ ৫ সিদ্ধান্ত

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মুহিদ্দিন ইয়াসিন গ্রেপ্তার

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ৯ মার্চ, ২০২৩
  • ২৭০ দেখা হয়েছে

ডেস্ক রির্পোট:- মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মুহিদ্দিন ইয়াসিনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দেশটির আইনশৃঙ্খলাবাহিনী তাকে গ্রেপ্তার করেছে। তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ আনা হবে বলে জানিয়েছে মালয়েশিয়ার দুর্নীতি দমন সংস্থা।

এক বিবৃতিতে মালয়েশিয়ার দুর্নীতি দমন কমিশন (এমএসিসি) বলেছে, সাবেক প্রধানমন্ত্রী মুহিদ্দিনকে তার সরকার ক্ষমতায় থাকাকালীন চালু করা একটি অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার প্রকল্প নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের পর গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

২০২০ থেকে ২০২১ সালে ১৭ মাসের জন্য মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন মুহিদ্দিন ইয়াসিন। ক্ষমতার অপব্যবহার এবং অর্থপাচার সংক্রান্ত আইনে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হবে বলে জানিয়েছে এমএসিসি।

সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী ও তার দল ওই ব্ছরের নভেম্বরে ব্যাপক প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহিমের কাছে হেরে যাওয়ার পর দুর্নীতির তদন্তের মুখোমুখি হয়েছে।

করোনাভাইরাস মহামারি চলাকালীন কাজ পাওয়ার বিনিময়ে নির্মাণ ঠিকাদাররা মুহিদ্দিন ইয়াসিনের বারসাতু পার্টির অ্যাকাউন্টে অর্থ জমা দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এই অভিযোগের বিষয়ে বৃহস্পতিবার সকালের দিকে স্বেচ্ছায় দেশটির দুর্নীতি দমন কমিশনে জিজ্ঞাসাবাদে অংশ নিতে যান ৭৫ বছর বয়সী মুহিদ্দিন। এর আগে, বৃহস্পতিবার সকালের দিকে দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত বার্তা সংস্থা বারনামাকে এমএসিসির প্রধান আজম বাকি বলেছেন, শুক্রবার আদালতে হাজিরা দেবেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী মুহিদ্দিন ইয়াসিন।

এমএসিসির কার্যালয়ে যাওয়ার আগে মুহিদ্দিন ইয়াসিনকে নামাজ আদায় করতে দেখা যায়। এ সময় দলের কর্মী-সমর্থকরা তাকে ঘিরে রাখেন। পরে এমএসিসির কার্যালয়ে যাওয়ার সময় নিজের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে তাকে লক্ষ্যবস্তু করা হয়েছে।

একই অভিযোগের বিষয়ে বারসাতুর আরও কয়েকজন রাজনীতিবিদকে জিজ্ঞাসাবাদ এবং দু’জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions