ডিসি সম্মেলনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের ঝুঁকি ভাতা দাবি!

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় শুক্রবার, ৫ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৬৪ দেখা হয়েছে

ডেস্ক রির্পোট:- এবারের ডিসি সম্মেলন ছিল গোপনীয়তা আর কড়াকড়ির চাদরে মোড়ানো। কী হচ্ছে আর কী আছে ডিসিদের প্রস্তাবে তা যেন প্রকাশ না পায়, সেটি নিশ্চিত করতে বাড়তি সতর্কতা নেয় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এত কঠোরতার পরও সাংবাদিকরা খুঁজে পেয়েছেন ডিসি সম্মেলনের কার্যপত্র। তাতেই উঠে এসেছে প্রশাসনের কর্তাদের জন্য নানা আবদার। এমনই একটি প্রস্তাব হলো, ‘নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের জন্য ঝুঁকি ভাতা দেওয়ার পদক্ষেপ গ্রহণ’।

ডিসি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় অধিবেশনে অর্থ বিভাগের কাছে এ প্রস্তাবের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরেন নড়াইলের জেলা প্রশাসক।
যুক্তিতে তিনি বলেছেন, ‘নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা নির্বাচনি দায়িত্ব পালন, দাঙ্গা-অবৈধ সমাবেশ ছত্রভঙ্গ, অবৈধ দখল উচ্ছেদ, বাজার মনিটরিংসহ নানা ঝুঁকিপূর্ণ কাজে নিয়োজত থাকেন; ঝুঁকি থাকা সত্ত্বেও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা ঝুঁকি ভাতার আওতাভুক্ত থাকেন না, এতে ঝুঁকিপূর্ণ কাজে দায়িত্ব পালনের উৎসাহ হারিয়ে ফেলেন তারা।’

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘সর্বশেষ দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ম্যাজিস্ট্রেট বা ম্যাজিস্ট্রেটের ক্ষমতাসম্পন্ন কর্মকর্তারা নির্বাচনের আগে ও পরের দুই দিনসহ মোট পাঁচ দিনের জন্য দিনে জনপ্রতি ৯ হাজার টাকা করে ভাতা পেয়েছেন। এ ছাড়া স্টাফ ভাতা হিসেবে তারা প্রতিজন প্রতিদিন পান আরও এক হাজার টাকা। অর্থাৎ একজন ম্যাজিস্ট্রেটের সম্মানী বা নির্বাচনের দায়িত্ব পালনের জন্য ভাতা দিতে নির্বাচন কমিশনের ব্যয় হয় ৫০ হাজার টাকা।’

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে দেওয়া ইসির চিঠির সূত্রমতে, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা নির্বাচনি এলাকায় ৩৭ দিন দায়িত্ব পালন করেন। এতে প্রায় শতকোটি টাকার মতো সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়।

এত সব সুবিধার পরও ঝুঁকি ভাতা প্রত্যাশাকে একটু বাড়াবাড়ি বলে আখ্যা দিয়েছেন বিশ্লেষকরা। তারা মনে করেন, সরকারি চাকরিবিধি অনুযায়ী প্রশাসনের এই দায়িত্ব পালন তার চাকরির অংশ।

জনপ্রশাসন বিশেষজ্ঞ সাবেক অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ ফিরোজ মিয়া বলেন, ‘যারা সত্যিকার অর্থে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করেন, তারাই ঝুঁকি ভাতা প্রত্যাশা করতে পারেন। যেমন ফায়ার সার্ভিসের কর্মী, বনরক্ষী, পুলিশ-আনসার বাহিনী।’

তিনি প্রস্তাবকারী আমলাদের কাছে প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের ঝুঁকি আসলে কোথায়? তারা কি কোনো অ্যাকশনে যান? তাদের সঙ্গে অভিযানে ফোর্স থাকে, রক্ষী থাকে, তাদের ঝুঁকি কোথায়?’ তিনি বলেন, ‘এসব বাড়াবাড়ি।’

বিশ্লেষকরা ঝুঁকিপূর্ণ কাজের উদাহরণ টেনে বলেন, সম্প্রতি রাতের আঁধারে পাহাড়ের মাটি কেটে পাচারে বাধা দেওয়ায় উখিয়ায় ডাম্প ট্রাকের চাপা দিয়ে সাজ্জাদুজ্জামান নামে একজন বন কর্মকর্তাকে হত্যা করা হয়েছে। এসব কাজ হচ্ছে ঝুঁকির। ওই সময় বনরক্ষী মোহাম্মদ আলী (২৭) আহত হন। গত ৩১ মার্চ রবিবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের হরিণমারা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত বন কর্মকর্তার সাজ্জাদুজ্জামান সজল (৩০) কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগের উখিয়া রেঞ্জের দোছড়ি বন বিটের বিট কর্মকর্তার দায়িত্বে ছিলেন।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের চেয়ারম্যান ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের জন্য এই ভাতা বরাদ্দ দেওয়া অবশ্যই বিতর্কিত একটি উদাহরণ হবে। অন্যান্য সেক্টরের অংশীজনরাও নিজেদের জন্য ভাতা চাওয়ার উপলক্ষ খুঁজে পাবেন। এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে সরকারকে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করতে হবে, সমাজ সংস্কারে বা রাষ্ট্রীয় প্রয়োজনে কাদের এই ভাতা পাওয়ার যৌক্তিকতা রয়েছে। সরকারি অর্পিত দায়িত্ব পালন এমনকি বাড়তি ভাতা পাওয়ার পরও ঝুঁকি ভাতা দেওয়া সমীচীন হতে পারে না।’

এদিকে গত বছরের জুলাই মাস থেকে সরকারি কর্মচারীদের জন্য ৫ শতাংশ আপৎকালীন বিশেষ ভাতা কার্যকর হয়। তবে রাষ্ট্রায়ত্ত কোম্পানির কর্মকর্তা-কর্মচারী, এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা এ সুবিধা পান না। নিয়মিত ইনক্রিমেন্টের পাশাপাশি আপৎকালীন ভাতা হিসেবে অতিরিক্ত এই ৫ শতাংশ পান সরকারি চাকরিজীবীরা। খবরের কাগজ

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions