শিরোনাম
২৩ বাংলাদেশি নাবিকের মুক্তি,মুক্তিপণ দিতে হলো ৫০ লাখ ডলার পুকুরপাড়ে বসে নারীদের গোসলের ভিডিও ধারণ করা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ২০ রাঙ্গামাটির সাজেকে রিসোর্ট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পানির সংকট রাঙ্গামাটিতে বৈশাখের খরতাপে অস্থির জনজীবন,তাপমাত্রা ৩৮ডিগ্রী সেলসিয়াস খাগড়াছড়িতে ত্রিপুরাদের তৈবুংমা-অ-খুম বগনাই উৎসব উদযাপন খাগড়াছড়িতে মারমা সম্প্রদায়ের মাহা সাংগ্রাই-এ জলোৎসবে রঙ্গিন বান্দরবানে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় নববর্ষের উৎসব পালন বান্দরবানে আসামি ধরতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে পুলিশ সদস্য আহত রাঙ্গামাটিতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা নববর্ষ উদযাপন উপজেলা নির্বাচন নিয়ে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বের শঙ্কা থেকেই যাচ্ছে

বান্দরবানে থানচির তিন খুমে ভ্রমণ নিরুৎসাহিত করছে প্রশাসন

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
  • ৪৩২ দেখা হয়েছে

বান্দরবান:- বান্দরবানের থানচি উপজেলার তিন্দু ইউনিয়নের দুর্গম ৭ ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডে অবস্থিত আমিয়াখুম, ভেলাখুম, সাতভাইখুমসহ তাজিংডং পর্যটনকেন্দ্র ভ্রমণ নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। ম্যাজিস্ট্রেট ও নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মামুন জানিয়েছেন, নিরাপত্তার কারণে দুর্গম এ তিনটি খুমে পর্যটকদের ভ্রমণ নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। তবে নাফাখুম, রেমাক্রী খুম, রাজা পাথর, বংড, তিন্দু মুখ, ডিম পাহাড়, কুমারী ঝরনা, ছাংওঢং ঝরনা, তংমাতুঙ্গী, রংরাংডং, লাংলোক ঝিরি ভ্রমণে কোনো বিধিনিষেধ নেই।

গতকাল বুধবার সকালে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে পর্যটক পথপ্রদর্শক সমবায় সমিতির সদস্য ও কমিটির নেতাদের সঙ্গে এক জরুরি মতবিনিময় সভায় এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়। জানা যায়, ২৫ ফেব্রুয়ারি ভেলাখুমে ভ্রমণে যাওয়া ২২ পর্যটককে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা কয়েক ঘণ্টা জিম্মি করে রাখে। সে সময় পর্যটকদের কাছ থেকে নগদ ১ লাখ ৮১ হাজার টাকা ও ১৫টি স্মার্টফোন ছিনতাই করা হয়। এ ধরনের ঘটনা যেন আর না ঘটে সে জন্য স্থানীয় প্রশাসন দুর্গম তিন খুমে ভ্রমণ নিরুৎসাহিত করেছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মামুন জানিয়েছেন, বান্দরবান জেলার সাত উপজেলার মধ্যে থানচি উপজেলা পর্যটনে সম্ভাবনাময়। জায়গাটির সৌন্দর্য অসাধারণ। ভূমিরূপের কারণে এখনো পর্যটনকেন্দ্রগুলোতে যোগাযোগের ক্ষেত্রে সড়কপথ নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি।

নৌপথ কিংবা ট্রেকিং করে যেতে হয়। পর্যাপ্ত বিজিবি ক্যাম্পও নেই সেখানে। কিছু কিছু জায়গায় সড়কে নির্মাণকাজ চলছে। অভ্যন্তরীণ সড়কগুলোতে কাঁচা, আরসিসি, ইটের সোলিং বা কার্পেটিং নির্মাণ হয়ে গেলে পর্যটকদের ভ্রমণের কোনো অসুবিধা থাকবে না। তখন সর্বাধিক নিরাপত্তা দিতেও অসুবিধা হবে না। তত দিন ভ্রমণকারীদের ধৈর্য ধরার অনুরোধ করেন তিনি।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions