শিরোনাম

নৌকায় ভোট দিলে পিষে মারার হুমকি আ.লীগ নেতার

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ৯৩ দেখা হয়েছে

নোয়াখালী:- নৌকা প্রতীকে ভোট দিলে পিষে ফেলার হুমকি দিয়েছেন নোয়াখালী-৩ (বেগমগঞ্জ) আসনের বেগমগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. এ বি এম জাফর উল্যাহ। স্বতন্ত্র প্রার্থী মিনহাজ আহমেদ জাবেদের পক্ষে এক উঠান বৈঠকে তিনি এ ধরনের বক্তব্য দেন। জাফর ট্রাক প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রধান নির্বাচনী সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করছেন।

এ বক্তব্য দেওয়ায় জাফর উল্যাহকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করার জন্য কার্যকরী কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নিয়ে জেলা কমিটিতে সুপারিশ করা হয়েছে। আর ওই বক্তব্যের প্রতিবাদে গত মঙ্গলবার রাতে বেগমগঞ্জ বিসিক শিল্পনগরীতে নিজের একটি কারখানার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মামুনুর রশিদ কিরন। তিনি অভিযোগ করেন, কয়েকদিন ধরে উনিসহ (জাফর) বেশ কয়েকজন উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা করতে গিয়ে দলের লোকজনকেই বিভিন্নভাবে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছেন। সবশেষ গত সোমবার বিকেলে কাদিরপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থীর একটি উঠান বৈঠকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের হুমকি দিয়ে বক্তব্য দেন জাফর উল্যাহ।

উঠান বৈঠকে জাফর উল্যাহ বলেন, ‘আজ গণসংযোগের শেষ দিন, নির্বাচনের আগে এটিই সমাপনী দিন কাদিরপুর ইউনিয়নের জন্য। অতএব বলছি, কাদিরপুরের একটা লোকও যদি ডান-বাম করেন তাঁদের খ্যাদাই (তাড়িয়ে) দিবেন। যেগুলো ওরে (নৌকার প্রার্থী) ভোট দিবে মনে করবেন, ওদেরও কাদিরপুরে থাকার অধিকার নাই। তাড়িয়ে দিবেন এখান থেকে। দুই-একটা কালসাপ আছে। এদের চিহ্নিত করে নির্বাচনের দিন ছেঁচি (পিষে) দিবেন।’

এ বিষয়ে নৌকার প্রার্থী কিরন বলেন, ‘উনার এমন বক্তব্য সংগঠনবিরোধী। উনি স্বতন্ত্র প্রার্থীর ভোট করতেই পারেন, সেটা তাঁর ইচ্ছা; কিন্তু নিজ দলের নেতা-কর্মীদের এভাবে ভয়ভীতি দেখানো সংগঠনবহির্ভূত এবং সরাসরি আচরণবিধি লঙ্ঘন। আমরা এ বিষয়ে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ইলেকটোরাল অনুসন্ধান কমিটির কাছে অভিযোগ করেছি। এ ছাড়াও জাফর উল্যাহকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করার জন্য কার্যকরী কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নিয়ে জেলা কমিটিতে সুপারিশ করা হয়েছে।’

বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে ডা. এ বি এম জাফর উল্যাহ বলেন, মূলত তাঁকে হেনস্তা করা এবং তাঁদের প্রার্থীকে নিয়ে ভোটারদের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়ানোর জন্য পুরো ভিডিও না দিয়ে খণ্ডিত অংশ ছড়ানো হয়েছে।

এই আসনের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মহিনুল হাসান বলেন, এমন কোনো অভিযোগ এখনও কেউ করেননি। অভিযোগ পেলে তদন্তে সত্য প্রমাণিত হলে নিয়ম অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions