শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ২৫ জুন, ২০২১, ০৫:৪৪:৫৬

সৌন্দর্যের রাণী পার্বত্য সুন্দরী "রাঙ্গামাটি"

 সৌন্দর্যের রাণী পার্বত্য সুন্দরী

মাহফুজ হোসেন খান,তুহীন:- ১০ ভাষাভাষীর ১১টি জনগোষ্ঠীর নিজস্ব সাংস্কৃতিক, নৃতাত্ত্বিক কৃষ্টির এই সবুজে গালিছা বিছানো প্রাকৃতিক কার্পেটে মোড়ানো ছিমছাম শহরটির অন্যতম এক প্রাধান আকর্ষন "রাঙ্গামাটি ঝুলন্ত ব্রীজ", যাকে নামকরণ করা হয়েছে "সিম্বল অব রাঙ্গামাটি" নামে। রাঙ্গামাটি শহরের শেষপ্রান্তে কর্ণফুলী হ্রদের (পৃথিবীর একমাত্র কৃত্রিম লেক, যার তলায় পাহাড় রয়েছে) কোল ঘেঁষে ১৯৮৬ খ্রিস্টাব্দে গড়ে উঠেছে ‘পর্যটন হোলিডে কমপ্লেক্স'। এলাকাটি 'ডিয়ার পার্ক' নামে পরিচিত। আর এই ডিয়ার পার্কের দুই পাশের পাহাড়কে সংযোজিত করেছে ঝুলন্ত সেতু। ৩৩৫ ফুট দীর্ঘ মনোহরা ঝুলন্ত সেতু - যা কমপ্লেক্সের গুরুত্ব ও আকর্ষণ বহুগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে। নয়নাভিরাম বহুরঙা এই ঝুলন্ত সেতুটি দুইটি বিচ্ছিন্ন পাহাড়ের মধ্যে গড়ে দিয়েছে হৃদ্দিক সম্পর্ক। সেতুটি পারাপারের সময় সৃষ্ট কাঁপুনি এনে দেবে ভিন্ন দ্যোতনা। এখানে দাঁড়িয়েই কাপ্তাই হ্রদের মনোরম দৃশ্য অবলোকন করা যায়। কাপ্তাই লেকের সৌন্দর্যে মুগ্ধ হতে বাধ্য। ওপারেই রয়েছে আদিবাসী গ্রাম। ইচ্ছে হলেই ঘুরে আসা যায় আদিবাসী জীবনযাপনের ক্ষয়িষ্ণু চালচিত্র দেখার জন্য। রাঙ্গামাটি জেলার অন্যান্য আকর্ষণীয় ও দর্শনীয় স্থানগুলো হলো- উপজাতীয় জাদুঘর, পেদা টিং টিং, টুকটুক ইকো ভিলেজ, যমচুক, রাইক্ষ্যং পুকুর, নির্বাণপুর বন ভাবনা কেন্দ্র, রাজবন বিহার, ঐতিহ্যবাহী চাকমা রাজবাড়ি, উপজাতীয় টেক্সটাইল মার্কেট, ডিসি বাংলো, পলওয়েল পর্যটন, বনবিথী, রাঙ্গামাটি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, ফুরমোন পাহাড়, নৌ-বাহিনীর পিকনিক স্পট, রাজস্থলী ঝুলন্ত সেতু, বনবিহার, ন-কাবা ছড়া ঝর্না, ডলুছড়ি জেতবন বিহার, রাঙ্গামাটি বেতার কেন্দ্র, টেলিভিশন উপকেন্দ্র, বেতবুনিয়া ভূ-উপগ্রহ কেন্দ্র (অনুমতি সাপেক্ষে), কাট্টলী বিল, আরণ্যিক পিকনিক স্পট, বালুখালী কৃষি ফার্ম। এই রাঙ্গামাটিতেই চিরনিদ্রায় শায়িত আছেন সাত বীরশ্রেষ্ঠদের একজন বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ। রাঙ্গামাটি শহর হতে জলপথে একঘন্টার দূরত্বে অবস্থিত বুড়িঘাটে এই সমাধি অবস্থিত। রোমাঞ্চপ্রিয় পর্যটকরা যেতে পারেন বাঘাইছড়ির সাজেক উপত্যকায়। এখানে দুর্গম পাহাড় শীর্ষে আরোহণ করার মজাই আলাদা। হাতি দেখতে হলে যেতে পারেন কাউখালী ও লংগদু। এখানে নির্জনতাপ্রিয় পর্যটকদের জন্য রয়েছে প্রায় সকল ব্যবস্থা। এমনকি আদিবাসীদের ঘরের স্টাইলে মাচাং এর উপরে কটেজ। আর ক্ষুদ্রনৃগোষ্টিদের কৃষ্টি কালচারতো রয়েছেই। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর রাঙ্গামাটিকে উপভোগ করতে হলে বর্ষাকালই ভাল সময়। প্রকৃতির সকল সবুজ যেন ঢেলে দিয়েছে এসময়ে।।

এই বিভাগের আরও খবর

  সবুজ পাহাড় সেজেছে শ্বেতশুভ্র মেঘমালায়,অতিথি বরণে মুখিয়ে আছে পাহাড়ি বিনোদন কেন্দ্রগুলো

  সাজেক ভ্রমণ।‘এখনও চোখের মাঝে পাহাড়ের বিশালতা লেগে আছে’

  সাড়ে ৪ মাস পর পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত সুন্দরবন

  সাগরের বুকে রানওয়ে সম্প্রসারণ কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে কাজে লাগিয়ে পর্যটন কেন্দ্রগুলো ঢেলে সাজাতে হবে-রাঙ্গামাটির জেলা প্রশাসক

  খুললো পাহাড়ের পর্যটনের দুয়ার

  পর্যটকদের জন্য সরকারি নির্দেশনা

  চট্টগ্রামের পর্যটন স্পট : দেড় বছরে ক্ষতি ২০ কোটি টাকা

  রাঙ্গামাটিতে করোনায় পর্যটনশিল্পে বড় ধস

  সৌন্দর্যের রাণী পার্বত্য সুন্দরী "রাঙ্গামাটি"

  ভরা মৌসুমেও খাঁ খাঁ করছে পর্যটনমুখর স্থানগুলো

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?