chtnews24.com
বান্দরবানের ডিসি অসহায় শাহজাহানকে রিকশা দিলেন
Tuesday, 20 Jul 2021 13:54 pm
Reporter :
chtnews24.com

chtnews24.com

বান্দরবান:- বান্দরবানে যোগদান করেই বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড সম্পাদনের পাশাপাশি গরিব মেধাবীদের শিক্ষার জন্য আর্থিক অনুদান প্রদানসহ নানান কাজে ইতোমধ্যে প্রশংসা পেয়েছেন বান্দরবানের জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি। করোনাকালীন লকডাউনে অসহায় হয়ে পড়া বান্দরবানের এক রিকশাচালক শাহজাহানকে জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে একটি রিকশা দিয়ে তিনি ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছেন। বান্দরবান জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, বান্দরবানের এক প্রবীণ রিকশাচালক মো. শাহজাহান (৬০)। এই বৃদ্ধ বয়সে ভাড়ায়চালিত রিকশা ছিল তার জীবিকার একমাত্র অবলম্বন। অসহায় এ মানুষটির চার সন্তানের মধ্যে এক ছেলে ও এক মেয়ে মারা গেছে। বাকি দুই ছেলে-মেয়ের মধ্যে ছেলেটি বান্দরবান টেকনিক্যাল কলেজে পড়াশোনা করে এবং মেয়েটি বিবাহিত। বৃদ্ধ বয়সে সস্ত্রীক বান্দরবানের কালাঘাটায় বসবাস করেন শাহজাহান। অত্যন্ত কষ্ট করে দিনযাপন করেন এই রিকশাচালক। জেলা প্রশাসন সূত্রে আরো জানা যায়, সাম্প্রতিক সময়ে জেলা প্রশাসকের কাছে আর্থিক সাহায্য পাওয়ার জন্য একটি আবেদন করেন শাহজাহান। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে রিকশাচালক শাহজাহানের সঙ্গে কথা বলার পর তাকে আর্থিক সাহায্য না দিয়ে স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে একটি রিকশা তৈরি করে তার হাতে তুলে দেন জেলা প্রশাসক। সোমবার (১৯ জুলাই) দুপুরে বান্দরবান জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে এই প্রবীণ রিকশাচালককে নতুন একটি রিকশা উপহার দেন জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি। এসময় তাকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি ত্রাণের প্যাকেটও দেন জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা। এসময় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. কায়েসুর রহমান, সিমন সরকারসহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে করোনার এই মহামারি আর লকডাউনের মধ্যে কোরবানির ঈদের আগে নতুন রিকশা পেয়ে আনন্দে আত্মহারা শাহজাহান বলেন, আমি পরিবার চালানোর জন্য কিছু টাকা পাওয়ার আশায় জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেছিলাম, কিন্তু জেলা প্রশাসক আমাকে সারা জীবন পরিবার চালানোর জন্য একটি অবলম্বন তৈরি করে দিলেন। জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি বলেন, আর্থিক সাহায্যের চাইতে একটি রিকশা কিনে শাহজাহানকে স্থায়ী আত্মকর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পেরে আমরা প্রশাসনের কর্মকর্তারা খুশি। আমরা চাই বান্দরবানের সবাই স্বাবলম্বী হোক এবং নিজ নিজ যোগ্যতায় এগিয়ে যাক এবং তার পরিবার নিয়ে সুখী ও সুন্দরভাবে জীবনযাপন করুক।