chtnews24.com
খাগড়াছড়ির পানছড়িতে ইউপিডিএফ কর্মীকে গুলি করে হত্যা,নিন্দা
Sunday, 18 Jul 2021 13:45 pm
Reporter :
chtnews24.com

chtnews24.com

খাগড়াছড়ি:- খাগড়াছড়ির পানছড়িতে অস্ত্রধারীদের গুলিতে খল কুমার ত্রিপুরা ওরফে সাগর (৩৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। রোববার (১৮ জুলাই) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পানছড়ির মরাটিলা নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত অনিল ওই এলাকার পদ্মনি পাড়ার অলিন মোহন ত্রিপুরার ছেলে বলে জানা গেছে। জানা যায়, সকালে পানছড়ি-তবলছড়ি সড়কের মরাটিলা নামক এলাকায় কয়েকজন অস্ত্রধারী অনিল মোহন ত্রিপুরাকে গুলি করে পালিয়ে যান। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পরে স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে আসে। নিহত অনিল পাহাড়ের আঞ্চলিক দল ইউপিডিএফ-প্রসীত গ্রুপের সাবেক কর্মী। সূত্র জানায়, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। পানছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. দুলাল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, কে বা কারা গুলি করেছে, তা এখনো জানা যায়নি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য খাগড়াছড়ি আধুনিক জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হচ্ছে। ইউপিডিএফের নিন্দা:- ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) এর খাগড়াছড়ি জেলা ইউনিটের সংগঠক অনি চাকমা আজ ১৮ জুলাই ২০২১, রবিবার সংবাদ মাধ্যমে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে পানছড়ি উপজেলার মরাটিলায় শাসকগোষ্ঠীর একটি বিশেষ মহলের মদদপুষ্ট সন্ত্রাসী কর্তৃক খল কুমার ত্রিপুরা ওরফে সাগর (২৮) নামে ইউপিডিএফের এক সাবেক কর্মীকে গুলি করে হত্যা ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। বিবৃতিতে তিনি অভিযোগ করে বলেন, আজ রবিবার (১৮ জুলাই) সকালে খল কুমার ত্রিপুরা (সাগর) পানছড়ি বাজারে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হন। তিনি মরাটিলা দোকানের পাশের রাস্তার ধারে গাড়ির অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে ছিলেন। এমন সময় (সকাল ৯টা) পানছড়ি বাজারের দিক থেকে ১০-১২ জনের একদল অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী এসে তাকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। তিনি নিহতের পরিচয় জানিয়ে বলেন, নিহত খল কুমার ত্রিপুরা মরাটিলা গ্রামের অলি মোহন ত্রিপুরার ছেলে। তিনি এক সময় ইউপিডিএফের সাথে যুক্ত ছিলেন। তবে এক বছর আগে তিনি দলীয় কাজ থেকে ইস্তফা দিয়ে নিজেকে পারিবারিক কাজে নিয়োজিত করে সাধারণ জীবন-যাপন করছিলেন। বিবৃতিতে ইউপিডিএফ নেতা উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তিপূর্ণ পরিবেশকে বিনষ্টের জন্য শাসকগোষ্ঠী আবারো মরিয়া হয়ে উঠেছে। তারা তাদের পালিত সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়ে খুন-খারাবির মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রামে অশান্তি জিইয়ে রাখতে চায়। তিনি অবিলম্বে খল কুমার ত্রিপুরার হত্যাকারীদের গ্রেফতার এবং সন্ত্রাসীদের মদতদান ও আশ্রয়-প্রশ্রয় বন্ধ করার দাবি জানিয়েছেন।