রবিবার, ১৭ অক্টোবর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ০৪:৪০:২১

মিডিয়া প্রতিনিধিদের সাথে ডিজিটাল সিটিজেনশিপ শিক্ষা নিয়ে কর্মশালা

মিডিয়া প্রতিনিধিদের সাথে ডিজিটাল সিটিজেনশিপ শিক্ষা নিয়ে কর্মশালা

ডেস্ক রির্পোট:- ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)’র অর্থায়নে, ডিনেট এবং ফ্রেডরিক নওম্যান ফাউন্ডেশন ফর ফ্রিডম যৌথভাবে ‘Foster Responsible Digital Citizenship to Promote Freedom of Expression in Bangladesh’ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মকে দায়িত্বশীল ডিজিটাল সিটিজেন হতে সহায়তা করা এবং তাঁদের মাঝে গঠনমূলকভাবে স্বাধীন মত প্রকাশের চেতনা গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়ে এই প্রকল্প কাজ করে যাচ্ছে। এর অংশ হিসেবে, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২১, বৃহস্পতিবার, মাস্টার শেফ হল, রাজশাহীতে বিভিন্ন অনলাইন, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া প্রতিনিধিদের সাথে ডিজিটাল সিটিজেনশিপ শিক্ষা নিয়ে একটি ফলপ্রসূ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নাটোর, নওগাঁ ও বগুড়ার পঁচিশজন উদ্যমী মিডিয়া প্রতিনিধি যারা তরুণদের উন্নয়নের জন্য কাজ করতে বদ্ধ পরিকর। কর্মশালাটি পরিচালনা করার দায়িত্ব পালন করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. রবিউল ইসলাম এবং সহযোগী অধ্যাপক মশিহুর রহমান। ইসলাম। কর্মশালাতে আরও বক্তব্য রাখেন ফ্রেডরিক নওম্যান ফাউন্ডেশন ফর ফ্রিডম থেকে সালওয়া জাহান। কর্মশালাটিতে সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করেন ডিনেটের পক্ষ থেকে আসিফ আহমেদ তন্ময়। কর্মশালাটি আয়োজনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন মাছরাঙা টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার গোলাম রাব্বানী। কর্মশালাতে শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেট সচেতনতা, ইন্টারনেটে সুরক্ষা, দায়িত্বশীলতার সাথে স্বাধীন মত প্রকাশ, ডিজিটাল আইন, ডিজিটাল অপরাধ, অনলাইনে ব্যক্তি পরিচয়, মিথ্যাচার ও ভুল খবর প্রচার এবং এ সংক্রান্ত আরও অনেক বিষয়ে আলোচনা করা হয়। সবশেষে মিডিয়া প্রতিনিধিরা এই উদ্যোগকে সফল করতে ও সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রে ডিজিটাল সিটিজেন শিক্ষার বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে ব্যক্তিগতভাবে নানাবিধ অঙ্গীকার করেন। তাঁরা ডিজিটাল সিটিজেনশিপ শিক্ষার ধারণাকে সকলের কাছে পৌঁছে দেবার জন্য নিজ মাধ্যমে আরও সোচ্চার হবেন বলে জানান। কর্মশালাতে মশিহুর রহমান বলেন- সংবাদ কর্মীদের ডিজিটাল যুগে হতে হবে আরও তৎপর ও নজর দিতে হবে ফ্যাক্ট চেকিং করার দিকে। সেই সাথে তাঁদের উচিত তরুণদের জন্য ডিজিটাল দুনিয়াকে আরও নিরাপদ করতে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করা। কর্মশালাটির পাশাপাশি প্রকল্পের অংশ হিসেবে ডিনেট, ঢাকাতে একইভাবে মিডিয়া প্রতিনিধিদের সাথে আরও দুইটি কর্মশালার আয়োজন করবে। এছাড়াও ঢাকা ও রাজশাহী জেলার পাঁচটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিজিটাল সিটিজেনশিপ শিক্ষা বিষয়ক লার্নিং ও পিয়ার লার্নিং-এর ব্যবস্থা করেছে ডিনেট। শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়মিতভাবে এই কার্যক্রম চলবে আগামী কয়েক মাস জুড়ে। এসকল কার্যক্রমের সাথেই চলবে ডিজিটাল সিটিজেনশিপ চ্যালেঞ্জ, ২০২২। শিক্ষার্থীরা এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন প্রকল্পের ওয়েবসাইট https://www.digitalcitizenbd.com/-এ। এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে তাঁরা জিতে নিতে পারবেন আকর্ষণীয় বিভিন্ন পুরস্কার। এই শিক্ষার্থীবান্ধব উদ্যোগগুলো থেকে শিক্ষার্থীরা ডিজিটাল সিটিজেনশিপ ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ে বিভিন্ন শিক্ষণীয় বিষয় জানতে পারবেন এবং একটি গঠনমূলক আলোচনার মাধ্যমে বিশ্লেষণধর্মী চিন্তা চর্চার পদ্ধতি সম্পর্কে জানবেন। যা তাঁদের ডিজিটাল দুনিয়ায় বিচরণের ক্ষেত্রে আচরণগত পরিবর্তন এনে একজন গর্বিত ডিজিটাল নাগরিকে পরিণত হতে সহায়তা করবে।প্রেস রিলিজ

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?