বুধবার, ২৭ অক্টোবর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ০৭:৪১:৪৯

একজন সফল নারী উদ্দোক্তা গল্প--

একজন সফল নারী উদ্দোক্তা গল্প--

আপনার জন্ম বেড়ে উঠা,পরিবার - সংসার নিয়ে কিছু বলুন? আমার জন্ম - বরিশাল বেড়ে উঠা - ভোলা কারন আমার বাবা ভোলায় টি এন্ড টি তে চাকরী করত।আমি ভোলা সরকারি Govt girls high school থেকে SSC পাস করেছি। তার পর বিয়ে । বিয়ের পর HSC, BA, BAD করেছি। এছাড়া Computer Course Cooking Course করেছি । আমার পরিবারে আমি আমার হাজবেন্ড , এক ছেলে ও এক মেয়ে। ছেলে অর্নাস শেষ আর মেয়ে ভিকারুননেসা থেকে HSC পরীক্ষা দিবে।আমার হাজবেন্ড ম্যানিলাতে Business করেন। ২.উদ্দোক্তা হওয়ার স্বপ্ন দেখেছেন কিভাবে? আমার খুব ইচ্ছা ছিল Teaching profession যাওয়ার ইচ্ছা ছিল।কিন্তু সংসার ও ছেলে মেয়েকে সময় দিতে গিয়ে করতে পারিনি।মনের ভিতরে ছিল কিছু একটা করবো। নিজের একটা পরিচয় হবে।আমি রান্না করতে ভালোবসতাম সবাই আমার রান্নার প্রশংসা করতো তখন থেকে চিন্তা হলো এই রান্না নিয়ে কিছু করা যায়।তাই রান্নার কোর্স করলাম। প্রথমে নিজেদের অত্মীয় সজনদের মধ্যে প্রশংসা পেতে লাগলাম তারপর পরিচিতি বাড়তে লাগলো।অফ লাইনে কাজ করছি অনেক বছর । অন লাইনে এই দুই বছর হলো Foodpanda ,Cookup,WE এই প্লাটফর্ম এখন কাজ করছি।আমার অবশ্য একটা কোচিং সেন্টার ছিল ভিকারুননেসা ও আইডিয়াল এর বাচ্চাদের ভর্তি কোচিং করাতাম।পরীক্ষা পদ্ধতি উঠে গেল আমার কোচিং ও বন্ধ করে দিলাম। Nusrat kabir’s kitchen কবে শুরু করেছেন? এটা শুরু করেছি প্রায় ৮ বছর হলো প্রথমে অফ লাইনে ছিল এখন অনলাইনে করছি।অন লাইন পেইজ আরাম্ভ করেছি ২ বছর হলো এখানে Homemade Food and catering নিয়ে কাজ করছি। কিচেন থেকে কি ধরনের সার্ভিস দেয়া হয়? আমার কিচেন থেকে সব ধরনের সার্ভিস দেয়া হয় তবে আমার সিগনেচার ডিস বিরিয়ানি ও আচার।আমার কিচেনে ৪ থেকে ১০০ লোকের খাবার সার্ভিস দিয়ে থাকি । আমি সব সময় ফ্রেস খাবার পরিবেশন করি তাই ১ দিন আগে অর্ডারটা নিয়ে থাকি।সর্বোচ্চ সর্তকতা ও নিয়ম মেনে খাবার ডেলিভারী করে থাকি। কত টাকা দিয়ে শুরু করেছেন এবং এখন বাৎসরিক আয় কত? আমি শুরু করেছি ৫০০০টাকা দিয়ে এখন বাৎসরিক আয় ১ লাখ টাকা । উদ্দোক্তা হিসেবে নিজেকে কতটা সফল মনে করেন। আমি উদ্দোক্তা হিসেবে নিজেকে অনেক সফল মনে করছি।কারন আমার সংসারে বাড়তি আয়ের পাশাপাশি আমি কয়েকজন মানুষেকে কর্মসংস্হান ব্যবস্থা করতে পেরেছি। নারী উদ্দোক্তা উদ্দোক্তা হতে গিয়ে কি ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন? আমাদের সমাজে তো নারী কাজ করতে গেলে কিছু সমস্যা থাকবেই। সেটা আমার বেলাতে ও ব্যতিক্রম হয়নি।আমার পরিবার আমাকে যথেষ্ট সাহায্য করেছে।কিন্তু সমাজে নানা জন নানা কথা বলে।রান্না করে সংসার চালাচ্ছি।একজন মহিলা হয়ে কেন এগুলো করছি।অনলাইনে ব্যবসা করছি কিছু তো সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।তবে আমরা উই থেকে সম্পূর্ণ স্বাধীন ভাবে কাজ করতে পারছি।আমাদের মানেনীয় প্রধান মন্ত্রী নারী উদ্দোক্তাদের জন্য অনেক প্রকল্প হাতে নিয়েছেন এটা নারী উদ্দোক্তাদের জন্য অনেক পথ প্রসারিত করবে। সফল উদ্দোক্তা হিসেবে অনুপ্রেরনা কার ? আমি আমার পরিবারের কথা বলবো।তবে আমার ইচ্ছা শক্তি ছিল প্রবল।নিজেই চেয়েছিলাম আমর একটা পরিচয়ে পরিচিত হতে। নুতন কোন নারী উদ্দোক্তা হতে চাইলে কি পরামর্শ দিবেন? অবশ্যই চাইবো একজন নারী উদ্দোক্ত হিসেবে আসুক। নুতন নারী উদ্দেক্তার জন্য পরামর্শ হলো - ঝুঁকি নিতে হবে,পরিশ্রমি হতে হবে। নুতন কিছু উদ্ভাবনের চেষ্ট থাকতে হবে। ধৈর্য , নিষ্ঠ ও সততা সাথে কাজ করতে হবে। আমাদের সমাজে নারীদের আত্মনির্ভরশীল হওয়া খুবই জরুরী। উদ্দোক্তা হওয়ার অনেক উপায় বা পন্য আছে কিন্তু কিচেন কেন বেছে নিলেন? বাঙালি নারীদের জীবনে রান্নাবান্না একটি বিশেষ স্হান দখল করে আছে। আমিও এর ব্যতিক্রম নয়। রন্ধনে বেশ ঝোঁক ও ভালোবাসা থাকায় এটিকে ব্যবসা হিসেবে বেছে নিয়েছি। বুটিক হাউজের যাত্রা থেকে এখন অবস্থা কেমন? আমার বুটিক হাউজ দেশের বাহিরে এখান থেকে প্রডাক্ট গুলো প্রডাকশন হয় সেই প্রডাক্ট বাহিরে পাঠানো হয়।প্রথম দিকে অল্প কিছু পুঁজি নিয়ে আরাম্ভ করি আস্তে আস্তে বড় হতে থাকে। ভালোই চলছিল এখন বর্তমান পরিস্থতিতে বন্ধ আছে ১ বছর ধরে ।মাঝখানে কিছু দিনের জন্য খুলেছিল এখন আবার বন্ধ হয়ে গেছে । বর্তমানে এখন একটু সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছি। বুটিক হাউজের মাধ্যমে কি কি সার্ভিস দিয়ে থাকেন? আমাদের প্রডাক্ট হলো লেডিস টি শার্ট, ম্যানস্ টি শার্ট , টেনটপ, লেডিস শর্ট, ম্যানস শর্ট, প্যান্ট লেডিস, ম্যানস আরো জিন্স শার্ট, প্যান্ট কিচেন এবং বুটিক হাউজ কী আপনি নিজেই পরিচালনা করেন? নাকি দেখাশোনার জন্য কাউকে নিয়োগ দিয়েছেন? কিচেনের দায়িত্ব সম্পূর্ণ আমার উপর কিন্তু বুটিক হাউসটি আমার স্বামী এবং আমি একসাথে দেখাশোনা করি। কিচেন এবং বুটিক হাউজ থেকে বাৎসরিক আয় কেমন? কিচেনের বাৎসরিক আয় ১ লক্ষ টাকা।আর বুটিক হাইজের বাৎসরিক আয় ২০ লাক্ষ টাকা •আপনি একজন সফল নারী উদ্যোক্তা। এর শুরুর গল্পটা জানতে চাই। আমি আগেই বলেছি যে আমি প্রথম দিক থেকে ইচ্ছা ছিল নিজের একটা পরিচয় হোক।শুরুটা হয়েছে অনেক দিন আগে । চাকরি করার শখ ছিল সংসারে ঝামেলার করনে হয়ে ওঠেনি।তখন চিন্তা করলাম বাসা বসে কি করা যায়।রান্নার প্রশংসা সবাই করত । রান্না করতে আমি ভালোবাসতাম তখন চিন্তা করলাম এই ভালেবাসার জায়গা আমি পেশা হিসেবে নিতে পারি । রান্নার উপর কয়েকটি কোর্স করলাম। প্রথমে আত্মীয় ও বন্ধুদের বললাম আমি এই কাজ করতে চাচ্ছি।এবং তাদের পরামর্শ অনুযায়ী আরম্ভ করে দিলাম। প্রথম দিকেই সবার কাছ থেকে সাড়া পেলাম। এভাবে আত্মীয় ও বন্ধুদের মাধ্যমে ব্যবসার পরিধি বাড়তে লাগলো।এর পর আমার মেয়ের পরামর্শ অন নাইন পেজ খুলে দিল আমার ছেলে ।এভাবে চলতে থাকে ২০২০ এর এপ্রিলে WE সাথে যুক্ত হই এখান আসার পর প্রথমে অন লাইন আড্ডা , তারপর বিজনেসের উপর মাস্টারক্লাস আরাম্ভ হল একটা অসুস্থতার জন্য করতে পারি নি বাকি সব গুলো করেছি।বেকিং এর উপর কোর্স করেছি, টমি মিয়ার ওয়ার্কশপ, ফোটোগ্রাফিকের উপর ট্রিনিং ,WIFI ট্রেনিং ,BIID থেকে যত গুলো ট্রেনিং হয়েছে সব কয়টি করেছি। ডিজিটাল ওয়াল্ডের মেলাতে অংশগ্রহন করেছি।সামনে আরো অনেক WE থেকে পাবো আমি WE এর একজন সাবস্ক্রাইবার।WE এর সাথে আছি। এটাই আমার উদ্দোক্তা হওয়ার গল্প। •আপনার ব্যবসার পরিধি বর্তমানে কেমন বেড়েছে? আমি ধীরে ধীরে আমার ব্যবসাকে বৃদ্ধি করার চেষ্টা করছি। আগে কেবল আমি আমার ব্যবসা ফেসবুক পেইজে সীমাবদ্ধ ছিল এখন আমি কুকআপ, ফুডপান্ড,উই আরো বিভিন্ন গ্রুপের মাধ্যমে ও পণ্য বিক্রি করে থাকি।এছাড়া বিভিন্ন অফিসে সার্ভিস দিয়ে থাকি। •একজন নারী হয়েও সংসার, ব্যবসা সবকিছু সামাল দিচ্ছেন কীভাবে? সত্যি বলতে সংসার ও ব্যবসা একসাথে সামাল দেয়া ভীষণ কষ্টের। আমার পরিবারের সদস্যরা আমাকে সহযোগিতা করে সবসময়।আর চেষ্ট ও ধৈর্য থাকতে হবে। •আপনি প্রধানত কী কী পণ্য সার্ভিস দিয়ে থাকেন? আমি মূলত হোমমেইড ফুড ভেলিভারি দিয়ে থাকি। বিরিয়ানি, আচার, ফ্রোজেন ফুড, ডের্জাড, চাইনিজ , মোগলাই , ফাস্ট ফুড ইত্যাদি। •নারী হিসেবে ব্যবসা করতে এসে কী ধরনের প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হয়েছেন? ঘরের কাজ কর্মের পাশাপাশি একটি ব্যবসা পরিচালনা করা ভীষণ কঠিন। এছাড়া আমাদের দেশে মানুষ বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে খেতে বেশী স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন তাই শুরুতে ব্যবসাকে দাড় করানো বেশ বেগ পেতে হয়েছে। নারীরা কেন উদ্যোক্তা হবে বলে মনে করেন? এখনকার যুগে মহিলাদের আত্মনির্ভরশীল হয়া খুবই প্রয়োজন। এতে নারীদের যেমন আত্মসম্মান বৃদ্ধি পায় এবং তারা সমাজের অর্থনীতিতেও সমান ভূমিকা পালন করতে পারে। এজন্য আমি মনে করি নারীদের উদ্যোক্তা হয়া উচিত। •কিচেন এবং বুটিক হাউজে কর্মচারী সংখ্যা কত? বা উদ্যোক্তা হিসেবে কতজনের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পেরেছেন? আমার অধীনে ৬-৭ জন কর্মী কাজ করেন। এদের মধ্যে ৪ জন নারী।দেশের বাহিরে ৫ জনই নারী । •সামাজিক ব্যবস্থায় নারীরা এখনো পিছিয়ে কেন? নারীরা শুধু সংসার ও সন্তান লালন পালন করবে এটাই প্রচলিত। মহিলাদের কাজের সুযোগ, নিরাপত্তা নেই বলে আমাদের সমাজে নারীরা এখনো অনেক পিছিয়ে। •আপনার হাউজ বা অফিসের ঠিকানা? আমার আলাদা করে কোন দোকান নেই। আমি অনলাইনে আমার সম্পূর্ণ ব্যবসাটি পরিচালনা করি।আর দেশের বাহিরে আমার শোরুম আছে। •গ্রাহকরা কি কি উপায়ে আপনার পণ্য নিতে পারবে? গ্রাহকরা আমার অনলাইন পেজের মাধ্যমে আমার পণ্য গুলো বাছাই এবং ক্রয় করতে পারবেন।এছাড়াও Foodpanda , Cookup এর মাধ্যমে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?