রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

বুধবার, ০৪ আগস্ট, ২০২১, ০৪:০৩:৫৮

মৌয়ের গ্রেফতারে ‘বিব্রত’ মৌ

মৌয়ের গ্রেফতারে ‘বিব্রত’ মৌ

ডেস্ক রির্পোট:-আলোচিত কথিত মডেল মরিয়ম আক্তার মৌ গ্রেফতারের পর নামের সঙ্গে মিল থাকায় বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন দেশের জনপ্রিয় নৃত্যশিল্পী, মডেল ও অভিনেত্রী সাদিয়া ইসলাম মৌ। গত রবিবার (১ আগস্ট) রাত ১টার দিকে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বাসা থেকে মৌকে আটক করা হয়। এসময় তার বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্যও জব্দ করা হয়। মোহাম্মদপুর থানায় মৌয়ের নামে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক দুটি মামলা করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। গোয়েন্দা পুলিশ বলছে, ধনাঢ্য পরিবারের ছেলেদের সঙ্গে লেট নাইট পার্টি করে আপত্তিকর ছবি তুলে ও গোপন ক্যামেরায় ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাকমেইল করতেন মৌ। হাতিয়ে নিতের কাড়ি কাড়ি টাকা। তাদের ১০-১২ জনের এমন একটি চক্র সক্রিয় রয়েছে। কথিত মডেল মৌকে গ্রেফতারের রাত থেকে বিব্রত জানিয়ে সাদিয়া ইসলাম মৌ বলেন, ‘ঘটনার রাত থেকেই আমি বিব্রত হচ্ছি। আমার নামের সঙ্গে মিলে গেছে, এমন একজনকে পুলিশ ধরেছে। আর এতেই অনেকে আমার পরিবার, স্বজন ও বন্ধুদের নিউজ লিংক পাঠাচ্ছে। অথচ তারা দেখছে না, এটা আমি না। আমার কাছের মানুষরাও বিব্রত হচ্ছে। এটা যে আমি না, তা আমার পরিবারের লোকেরাও অন্যদের বুঝাতে পারছে না। এমন কথাও বলাবলি হচ্ছে, এদের তো অনেক কিছুই লুকানো থাকে।’ গ্রেফতার হওয়া মৌ নামের ওই নারী সত্যিই মডেল বা অভিনেত্রী কিনা, সেটা আগে যাচাই করার দাবি জানিয়েছেন সাদিয়া ইসলাম মৌ। তিনি বলেন, ‘মডেল তারাই যারা নিয়মিত স্টেজ শো করেন, ফ্যাশন শো করেন। এসব থেকে নিয়মিত সম্মানি নিচ্ছেন- তাদেরকেই মডেল বলা যায়। মডেলের খোঁজে আমরা প্রথমে পোর্টফলিও দেখি। সেখানে যাদের নাম পাওয়া যায় তাদেরকে আমরা মডেল বলবো। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে মডেলিংয়ে নেই বা তেমন কাজ করা হয়নি তার, এমন মানুষ যদি নিজেকে মডেল বলতে পছন্দ করেন তাহলে তো আর কারও কিছু করার নেই।’ মৌ বলেন, ‘অবশ্য কিছু দায়িত্ব আমাদের মতো নিয়মিত মডেল-অভিনেত্রীদেরও থাকে। যেমন ধরুন, আমি যদি সংগ্রাম করে এই যুগে ফিরে না আসতাম তাহলে এখনকার বাচ্চারা আমাকে মডেল হিসেবে চিনতো না। আমি যতই পরিচয় দেই ওদেরকে যে, আমি মডেল মৌ, এখনকার বাচ্চারা কিন্তু আমাকে চিনবে না। আমি এখনও মডেলিংয়ের কাজ করছি বলে কিছু ছেলে-মেয়ে আমাকে চেনে।’ উল্লেখ্য, আলোচিত মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা ও মরিয়ম আক্তার মৌকে মাদককাণ্ডসহ নানা অভিযোগে গেল ১ আগস্ট রাতে গ্রেফতারের পর আরও ১০-১২ জন সুন্দরী মডেলের খোঁজ পেয়েছে পুলিশ। যারা কিনা ধনাঢ্য পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে লেট নাইট পার্টি করে আপত্তিকর ছবি তুলে ও গোপন ক্যামেরায় ভিডিও ধারণ করে ব্ল্যাকমেইল করছে। হাতিয়ে নিচ্ছে কাড়ি কাড়ি টাকা। এমনকি তারা দু’একটি বিজ্ঞাপন ও ইউটিউবভিত্তিক নাটকে অভিনয় করে ব্ল্যাকমেইলিংয়ের নামে নিজেদের সামান্য পরিচিতও করে। পুলিশ বলছে, নিজেদের মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে এরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে খুবই সক্রিয়। নিজেদের মধ্যে একটি চক্র গড়ে তুলে এসব মডেলরা ব্ল্যাকমেইলিং করে ধনাঢ্য পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। মূলত পিয়াসা ও মৌকে গ্রেফতারের পর তাদের জিজ্ঞাসাবাদেই উঠে এসেছে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সূত্রে জানা যায়, এসব মডেলদের অধিকাংশই ঢাকার বাইরে নিম্ন মধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান। তারা মডেল হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে ঢাকায় এসে শুরুতে ছোটখাট কিছু বিজ্ঞাপনে কাজ করলেও নিজেদের মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেননি। আবার তাদেরই কেউ কেউ ইউটিউবভিত্তিক কয়েকটি নাটকে কাজ করে নিজেদের মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে গিয়ে ব্যর্থ হয়েছেন। এক পর্যায়ে তারা ১০-১২ জন মিলে একটি চক্র গড়ে তোলে। যে চক্রের অন্যতম সদস্য ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা ও মরিয়ম আক্তার মৌ।

এই বিভাগের আরও খবর

  ৫৯ আইপি টিভি বন্ধ করেছে বিটিআরসি

  ২৩ সেপ্টেম্বর দেশজুড়ে সাংবা‌দিক‌দের বিক্ষোভ

  ঢালাওভাবে সাংবাদিক নেতাদের সম্পদের হিসাব চাওয়া চাপ-আতঙ্ক তৈরির কৌশল

  যাচাই-বাছাই ছাড়া অনলাইন পত্রিকা বন্ধ করা সমীচীন নয়: তথ্যমন্ত্রী

  প্রেস কাউন্সিল আইন সংশোধন হচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী

  ‘আমাদের বাঁচান’, খোলা চিঠিতে আফগান সংবাদকর্মীদের আহ্বান

  পথ দেখাচ্ছে গ্রিন ইউনিভার্সিটিতে সাংবাদিকতা বিভাগ

  ‘ভূতুড়ে’ পত্রিকার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে : তথ্যমন্ত্রী

  সাগর-রুনি হত্যা: তদন্ত প্রতিবেদন ২১ সেপ্টেম্বর

  দুবাই ট্যুরে পরী টানা সাত দিন ছিলেন বুর্জ আল খলিফায়

  ৫০০’র বেশি আইপি টিভি চায় নিবন্ধন!

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?