মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১৫ জুলাই, ২০২১, ১২:৩১:১৪

মাদক খাইয়ে আমাকে বিছানায় নেয় অভিনেতা- কঙ্গনা

মাদক খাইয়ে আমাকে বিছানায় নেয় অভিনেতা- কঙ্গনা

ডেস্ক রির্পোট:- অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে এখনও সরগরম বলিউড। একের পর এক উঠে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে প্রকাশ্যে কিংবা আড়ালে উচ্চারণ হচ্ছে ইন্ডাস্ট্রির অনেক নামিদামি ও প্রভাবশালীদের নাম। সুশান্তের মৃত্যু ঘিরে মূল অভিযুক্ত হিসেবে সবচেয়ে বেশি উচ্চারিত হচ্ছে রিয়া চক্রবর্তীর নাম। ধারণা করা হচ্ছে, মাদক চক্রের সঙ্গে যোগ রয়েছে রিয়ার। এরইমধ্যে বলিউডে মাদকচক্র নিয়ে বোমা ফাটালেন কঙ্গনা রানাওয়াত। অকপটে জানালেন মাদকচক্র নিয়ে তার ব্যক্তিগত জীবনের ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথা। বরাবরই রাখঢাক না রেখেই কথা বলতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন কঙ্গনা। এমনকি নিজের ক্ষেত্রেও। এবার তার ব্যক্তিক্রম হলো। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে এই অভিনেত্রী বলেন, ‘মানালি ছাড়ার সময় আমার বয়স ১৬ বছর। চণ্ডীগড়ে একটি প্রতিযোগিতায় জিতে এক সংস্থার মাধ্যমে মুম্বাই এসেছিলাম। কেরিয়ারের শুরুর দিকে হোস্টেলে থাকতাম। তারপর আন্টির সঙ্গে থাকি। তখন এক চরিত্র অভিনেতা আমার সঙ্গে বন্ধুত্ব করে এবং বলিউডে কাজ ধরিয়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়।’ কঙ্গনা বলেন, ‘আমি যে নারীর সঙ্গে থাকতাম তার প্রতিও ওই অভিনেতা মুগ্ধ ছিলেন। তারপর আমরা তিনজনে একসঙ্গে থাকা শুরু করি। একসময় ওই অভিনেতা আন্টির সঙ্গে ঝগড়া করে তাকে বের করে দেন। আমার সব জিনিস একটা রুমে রেখে তালা লাগিয়ে দেয়। আমি তখন যাই করতাম, তাকে বলে করতে হতো। একপ্রকার গৃহবন্দি হয়ে পড়ি আমি।’ সেই ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথা স্মরণ করে তিনি বলেন, ‘ওই অভিনেতা আমায় বিভিন্ন পার্টিতে নিয়ে যেতেন। একদিন আমি নেশাগ্রস্ত বোধ করলাম, ওনার সঙ্গে ঘনিষ্ট হয়েছিলাম। সে মাদক খাইয়ে আমাকে তার বিছানায় নেয়। পরে বুঝলাম, এটা স্বেচ্ছায় হয়নি। আমার পানীয়তে কিছু মেশানো হয়েছিল। এরপর থেকে ওই অভিনেতা আমার সঙ্গে স্বামীর মতো আচরণ শুরু করে। কিছু বললেই মারধর করতো। প্রতিবাদ জানিয়ে একদিন বলেছিলাম- ‘আপনি আমার বয়ফ্রেন্ড নন’। বলতেই সে আমাকে চটি দিয়ে মেরেছিলেন।’ এই ভয়াবহ দিনগুলো এখানেই শেষ হয়নি। কঙ্গনা বলেন, ‘একটা সময় ওই অভিনেতা আমাকে দুবাইয়ের লোকদের সঙ্গে আলাপ করালেন। আমাকে বললেন, প্রবীণদের মাঝে যেন বসি, আর তিনি তখন ওই জায়গাটি ছেড়ে চলে যাবেন। আমাকে তাদের নম্বর নিতেও বলেছিলেন। আমি আতঙ্কিত হয়ে পড়ি। সন্দেহ হচ্ছিল- আমাকে দুবাই পাচার করে দেয়া হবে না তো?’ বলিউডের এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী আরও বলেন, ‘যখন আমি সিনেমায় সুযোগ পেলাম, উনি রেগে গেলেন। আমাকে ইনজেকশন দিয়ে বিদ্রুপ করে বললেন, আমি আর শ্যুটিংয়ে যেতে পারবো না। আমি পুরো ঘটনা আমার প্রথম ছবি ‘গ্যাংস্টার’র পরিচালক অনুরাগ বসুকে জানিয়েছিলাম। তখন তিনিই আমাকে আশ্রয় দিয়েছিলেন। অনুরাগ বসু রাতে আমাকে তার অফিসে থাকার ব্যবস্থা করে দেন।’

এই বিভাগের আরও খবর

  সাংবাদিক সংগঠনসমুহকে নিবন্ধনের আওতায় আনতে মন্ত্রীপরিষদে আবেদন

  'দেশের জন্য সাংবাদিকদের ঐক্য জরুরি'

  ‘ব্রিফকেসবন্দি’ ২১০টি পত্রিকা বন্ধে জেলা প্রশাসনের কাছে চিঠি

  সাগর-রুনি হত্যা মামলা,৮১ বার পেছাল তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ

  ৫৯ আইপি টিভি বন্ধ করেছে বিটিআরসি

  ২৩ সেপ্টেম্বর দেশজুড়ে সাংবা‌দিক‌দের বিক্ষোভ

  ঢালাওভাবে সাংবাদিক নেতাদের সম্পদের হিসাব চাওয়া চাপ-আতঙ্ক তৈরির কৌশল

  যাচাই-বাছাই ছাড়া অনলাইন পত্রিকা বন্ধ করা সমীচীন নয়: তথ্যমন্ত্রী

  প্রেস কাউন্সিল আইন সংশোধন হচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী

  ‘আমাদের বাঁচান’, খোলা চিঠিতে আফগান সংবাদকর্মীদের আহ্বান

  পথ দেখাচ্ছে গ্রিন ইউনিভার্সিটিতে সাংবাদিকতা বিভাগ

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?