মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ৩১ জুলাই, ২০২১, ০৭:৪৫:৪৮

খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে বসানো হলো করোনা বুথ

খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে বসানো হলো করোনা বুথ

ডেস্ক রির্পোট:- করোনার ঝুঁকিতে পিছিয়ে নেই পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ি। খাগড়াছড়িবাসীকে করোনা থেকে বাঁচাতে জেলা জুড়ে বসানো হচ্ছে করোনা প্রতিরোধক বুথ। এই ধারাবাহিকতায় খাগড়াছড়ি জেলার মাহালছড়ি উপজেলায় বসানো হলো করোনা প্রতিরোধক বুথ। শনিবার (৩১ জুলাই) মহালছড়ি বাজার কমিটির উদ্যোগে বাজারের মোড়ে এই বুথটি উদ্বোধন করা হয়। এতে প্রতিদিন সকাল ৮ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত সবার জন্য থাকছে ফ্রি হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাষ্ক। বুথের বাটনে চাপ দিলেই ফ্রিতে পাওয়া যাবে করোনা প্রতিরোধক এই উপহারগুলো। মহালছড়ি বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সুনীল দাস, মহালছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, ও মহালছড়ি উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ জসিম উদ্দিন এই বুথটি উদ্বোধন করেন। এ সময় বক্তারা বলেন, এই বুথের মাধ্যমে বাজারে আসা সকলেই বিনামূল্যে মাস্ক ও স্যানিটাইজার পাবেন, যা ব্যবহারে করোনা প্রতিরোধ করা যাবে। তাই সকলকে আতংকিত না হয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ও মাস্ক পরার আহ্বান জানানো হয় বাজার কমিটির পক্ষ থেকে। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন মহালছড়ি ১ নং সদর ইউনিয়ন শাখার ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হাসানুর রহমান বাবু ও মহালছড়ি ইউনিয়নের যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।

এই বিভাগের আরও খবর

  সম্ভাবনাময় ঝরনা কেন্দ্রিক পর্যটন গড়ে তোলার জন্য প্রাকৃতিক ঝরনা রক্ষা করতে হবে

  খাগড়াছড়ির পর্যটন অর্থনীতির বিকাশ,মাসে লেনদেন ১০ কোটি টাকা

  পার্বত্য চট্টগ্রামে পর্যটনশিল্পের অমিত সম্ভাবনা

  খাগড়াছড়ি পরিবহণ সেক্টরে নৈরাজ্যে ৭২ঘন্টার আল্টিমেটাম

  খাগড়াছড়িতে পাথর বোঝাই ট্রাকের ধাক্কায় ট্রাক্টর চালকসহ আহত-৬

  খাগড়াছড়িতে জাতীয় পার্টির দ্বি-বার্ষিক মহিলা কাউন্সিল সম্পন্ন

  খাগড়াছড়ির দীঘিনালার লারমা স্কয়ারে যানজট, ভোগান্তিতে সাজেকগামীরা

  খাগড়াছড়ির গুইমারায় বাল্যবিয়ে নিয়ে দু’দিনব্যাপী কর্মশালা

  খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে মদ্যপ যুবককে ৩ মাসের কারাদন্ড

  দীঘিনালায় বাবা-মা'র সামনে মাল্টিপ্লাগে আঙুল দিয়ে শিশুর মৃত্যু

  রাঙ্গামাটি,খাগড়াছড়ি ও বান্দরবানে এখন পর্যন্ত আশানুরূপ পর্যটক আসছেন না

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?