রবিবার, ২৫ জুলাই ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ২৫ মে, ২০২১, ১২:২০:০৭

রোহিঙ্গারা ফিরতে পারবেন না: মিয়ানমারের জান্তা প্রধান

রোহিঙ্গারা ফিরতে পারবেন না: মিয়ানমারের জান্তা প্রধান

নিউজ ডেস্ক: মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর অত্যাচারে জীবন বাঁচাতে লাখ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম বাংলাদেশে প্রবেশ করে। কিন্তু তাদের মিয়ানমারে ফেরতের বিষয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন দেশটির সামরিক জান্তা সরকারের প্রধান মিন অং হ্লেইং। রোববার চীনা ভাষার ফোয়েনিক্স টেলিভিশন চ্যানেলকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে রোহিঙ্গাদের ফেরা নিয়ে সংশয় জানান।

রোহিঙ্গা মুসলিমদের রাখাইন রাজ্যে ফেরার অনুমতি দেওয়া হবে কি-না ফোয়েনিক্স টেলিভিশনের এমন প্রশ্নের জবাবে মিন অং হ্লেইং তাতে নিজের সন্দেহের কথা জানান। ২০১৭ সালের আগস্টে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর রক্তাক্ত অভিযানের মুখে রাখাইন থেকে প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন।

ফোয়েনিক্স টেলিভিশনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মিন অং হ্লেইং বলেন, এটা যদি মিয়ানমারের আইনের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ না হয়, তাহলে বিবেচনা করার কি আছে? আমি বিশ্বাস করি না যে— বিশ্বে এমন কোনও দেশ আছে যারা শরণার্থীদের গ্রহণের জন্য নিজের দেশের আইনের বাইরে যেতে পারে।

রোহিঙ্গাদের পক্ষে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গোষ্ঠীর আবেদন ফলপ্রসূ কি-না জানতে চাইলে মাথা নাড়িয়ে ‌‌‘না’ সূচক সম্মতি জানান মিন অং হ্লেইং।

প্রায় চার বছর আগে রাখাইনে যখন অভিযান চালানো হয় তখন মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর প্রধান ছিলেন মিন অং হ্লেইং। এই অভিযানে প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন। বৌদ্ধ সংখ্যাগরিষ্ঠ মিয়ানমারের অনেকে রোহিঙ্গাদের জাতিগত গোষ্ঠী হিসেবে স্বীকার করেন না।

তিনি বলেন, ১৯৪৮ সালে ব্রিটেনের কাছ থেকে মিয়ানমারের স্বাধীনতা লাভের পর ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটির উৎপত্তি হয়। মিন অং হ্লেইং বলেন, আমাদের স্বাধীনতা লাভের পর আদমশুমারিতে ‘বাঙালি’, ‘পাকিস্তানি’ এবং ‘চট্টগ্রাম’ শব্দগুলোও নিবন্ধিত হয়েছে। কিন্তু কখনই ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটি ব্যবহৃত হয়নি। আমরা এই শব্দটিকে গ্রহণ করিনি।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?