মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

শুক্রবার, ৩০ জুলাই, ২০২১, ০৭:১১:০৭

পাহাড় থেকে আশ্রয়কেন্দ্রে আরও ২৫ পরিবার

পাহাড় থেকে আশ্রয়কেন্দ্রে আরও ২৫ পরিবার

ডেস্ক রির্পোট:- পাহাড় ধসে ক্ষয়ক্ষতি সামলাতে নগরীর ১৮ পাহাড়ে গতকাল বৃহস্পতিবারও অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসন। অভিযানে নতুনভাবে ঝুঁকিপূর্ণ ২৫টি পরিবারের প্রায় ১০০ লোককে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। উচ্ছেদ করা হয়েছে ঝুঁকিপূর্ণ ২৫ টি ছোট-বড় স্থাপনা। আগের দিনের মতো পাহাড় থেকে নিরাপদে সরে যেতে দিনভর মাইকিং করা হয়েছে। এতে ফায়ার সার্ভিসের আভিযানিক একটি টিমও অংশগ্রহণ করে। জেলা প্রশাসকের স্টাফ অফিসার ওমর ফারুক আজাদীকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সন্ধা পর পর্যন্ত আমাদের ৬ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিভিন্ন পাহাড়ে অভিযান পরিচালনা করেন। যেসব বসতিকে ঝুঁকিপূর্ণ মনে হয়েছে তাদেরকে (২৫ পরিবারের ১০০ লোকজন) আশ্রয়কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়গুলো হচ্ছে- লালখানবাজারের মতিঝর্ণা, বাটালি হিল, আকবরশাহয়ের ঝিল-১, ঝিল-২ ও বায়েজিদের মিয়ার পাহাড়। ঝুঁকিপূর্ণ এসব পাহাড় থেকে এ পর্যন্ত ১৩০ পরিবারের প্রায় ৫০০ লোকজনকে আমরা নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছি। তাদের মাঝে খাবার সরবরাহ করেছি। চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছি। আগের দিন বুধবারও তাদের মাঝে সকালের নাস্তা, দুপুরের খাবার, সন্ধার নাস্তা, এমনকি রাতের খাবারও সরবরাহ করেছি। ভারী বৃষ্টিপাত চলমান থাকা পর্যন্ত সচেতনতামূলক মাইকিংসহ আমাদের এ কার্যক্রম চলবে। জেলা প্রশাসকের নির্দেশে আমরা এ কাজ করছি, যোগ করেন ওমর ফারুক।আজাদী

এই বিভাগের আরও খবর

  পূর্ণিমার জোতে ইলিশের ঝাঁক, কেজি ২০০ টাকা

  কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেলের মুখে আলোক রেখা

  চট্টগ্রামে ভ্রূণ হত্যার অভিযোগে স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

  ভোট গণনাশেষে ফেরার পথে হামলা: ম্যাজিস্ট্রেটসহ আহত ৫

  কক্সবাজারে বেড়াতে গিয়ে ‘অতিরিক্ত মদপানে’ ২ ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু

  চট্টগ্রামে শনিবার থেকে ফের শিক্ষার্থীদের জন্য চালু হচ্ছে বিআরটিসি বাস

  চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় সাদা বাঘের ঘরে জন্মেছে নতুন শাবক

  সবুজ চাদরে ছেয়ে গেছে গুমাই বিল

  কর্ণফুলীতে সাম্পান মাঝিদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট

  চমেক হাসপাতাল ও বিআরটিএ’র ২৮ দালাল আটক

  সীতাকুণ্ডের পাহাড়ে জ্বলে নিঃশেষ প্রাকৃতিক গ্যাস!

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?