মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই, ২০২১, ০৭:৪৯:০১

চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্থানে পাহাড়ধস,১৬৬ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড

চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্থানে পাহাড়ধস,১৬৬ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড

ডেস্ক রির্পোট:- টানা ভারী বর্ষণের ফলে নগরের বিভিন্ন স্থানে পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটছে। তবে এতে কেউ হতাহত হননি। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত নগরের বিভিন্ন স্থানে পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটে। পাহাড়ধসের কারণে চলাচলে তৈরি হয় প্রতিবন্ধকতা। ঝুঁকিপূর্ণ ৫ পরিবারকে সরিয়ে নিয়েছে জেলা প্রশাসন। ১৪ নম্বর লালখান বাজার ওয়ার্ডের বায়তুল আমান হাউজিং সোসাইটির ২ নম্বর সড়কের গরিবুল্লাহ শাহ এলাকায় পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম মাটি সরানোর কাজ শুরু করে। এদিকে, নগরের আমবাগান ফ্লোরাপাস এলাকার বালিকা সদন এতিমখানার একে খান এলাকায়ও পাহাড়ধসে পড়ে। পরে সেখান থেকেও দুপুরের পর থেকে মাটি সরানো কাজ শুরু করে জেলা প্রশাসন। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি জানান, নগরের লালখান বাজার এলাকার গরিবুল্লাহ শাহ এলাকায় পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটেছে। এতে কেউ হতাহত হয়নি। তবে একটু দূরে ৫টি পরিবার ছিল। পাহাড়ধসের মাটি তাদের রাস্তায় পড়ে। যার কারণে চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। তাই ৫ পরিবারকে আমরা নিরাপদ স্থানে নিয়ে এসেছি। এদিকে ভারী বৃষ্টি, পাহাড়ি ঢল ও জোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে নগরের নিম্নাঞ্চল। চন্দনাইশ, সাতকানিয়া, রাউজানসহ বিভিন্ন উপজেলায়ও পাহাড়ি ঢলের পানি নামছে। কোথাও ডুবে গেছে সড়ক। নিচতলার বাসা-বাড়ি, দোকানপাটে ঢুকেছে পানি। পাহাড়ি এলাকাগুলোতে পানির সঙ্গে নেমে এসেছে প্রচুর হলদে বেলেমাটিও। সব মিলে দুর্ভোগে পড়েছেন মানুষ। পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিস বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) বিকেল ৩টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ১৬৬ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করেছে। আগ্রাবাদ সিডিএ আবাসিক, শান্তবাগ, হালিশহর, চকবাজার, বাকলিয়া, চান্দগাঁওসহ বিভিন্ন এলাকায় নিচু সড়কগুলোতে হাঁটুপানি দেখা গেছে। টিকাদানকেন্দ্র, ব্যাংক, হাসপাতাল, অফিসমুখী মানুষকে হাঁটুপানি মাড়িয়ে চলাচল কিংবা রিকশায় গন্তব্যে পৌঁছাতে দেখা গেছে। পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ উজ্জ্বল কান্তি পাল জানান, চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত এবং নদী বন্দরকে ২ নম্বর নৌ হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। সক্রিয় মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে ঢাকা, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী (৪৪-৮৮ মিমি) থেকে অতিভারী (৮৯ মিমির বেশি) বর্ষণ হতে পারে। অতি ভারী বর্ষণের কারণে চট্টগ্রাম বিভাগের পাহাড়ি এলাকার কোথাও কোথাও ভূমিধ্বসের আশঙ্কা রয়েছে। তিনি জানান, কর্ণফুলী নদীতে ভাটা শুরু হয়েছে বিকেল ৪টা ২২ মিনিটে, আবার জোয়ার শুরু হবে রাত ১১টা ৭ মিনিটে।বাঙলা নিউজ

এই বিভাগের আরও খবর

  পূর্ণিমার জোতে ইলিশের ঝাঁক, কেজি ২০০ টাকা

  কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেলের মুখে আলোক রেখা

  চট্টগ্রামে ভ্রূণ হত্যার অভিযোগে স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা

  ভোট গণনাশেষে ফেরার পথে হামলা: ম্যাজিস্ট্রেটসহ আহত ৫

  কক্সবাজারে বেড়াতে গিয়ে ‘অতিরিক্ত মদপানে’ ২ ছাত্রলীগ নেতার মৃত্যু

  চট্টগ্রামে শনিবার থেকে ফের শিক্ষার্থীদের জন্য চালু হচ্ছে বিআরটিসি বাস

  চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় সাদা বাঘের ঘরে জন্মেছে নতুন শাবক

  সবুজ চাদরে ছেয়ে গেছে গুমাই বিল

  কর্ণফুলীতে সাম্পান মাঝিদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট

  চমেক হাসপাতাল ও বিআরটিএ’র ২৮ দালাল আটক

  সীতাকুণ্ডের পাহাড়ে জ্বলে নিঃশেষ প্রাকৃতিক গ্যাস!

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?