বুধবার, ২৭ অক্টোবর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ০৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ০৭:৫৬:০২

১০, ৫০ ও ১০০ টাকার ব্যাংক হিসাব থাকলেই মিলবে ঋণ

১০, ৫০ ও ১০০ টাকার ব্যাংক হিসাব থাকলেই মিলবে ঋণ

ডেস্ক রির্পোট:- ১০, ৫০ ও ১০০ টাকার হিসাবধারী প্রান্তিক, ভূমিহীন কৃষক, নিম্ন আয়ের পেশাজীবী, স্কুল ব্যাংকিং হিসাবধারী এবং ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের জন্য ৫০০ কোটি টাকার একটি তহবিল গঠন করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। উচ্চ শিক্ষার উপকরণ ক্রয়ের ঋণ বিতরণ করা হবে তহবিল থেকে। রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) এবিষয়ে একটি সার্কুলার জারি করে সব তফসিলি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে পাঠিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। একজন গ্রাহক সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা ঋণ পাবেন। তবে যৌথভাবে দুই থেকে পাঁচ জনের গ্রুপে নিলে একজন গ্রাহক পাবেন চার লাখ টাকা। গ্রাহক পর্যায়ে সর্বোচ্চ সাত শতাংশ সুদ আদায় করতে পারবে বিতরণকারী ব্যাংক। তবে ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে সুদেও হার কম বেশি হতে পারে। সার্কুলারে বলা হয়েছে, পাড়া, মহল্লা, গ্রাম ভিত্তিক ক্ষুদ্র, অতিক্ষুদ উদ্যোক্তা ও পেশাজীবী (যেমন: চর্মকার, স্বর্ণকার, ক্ষৌরকার, কামার, কুমার, জেলে, দর্জি, হকার, ফেরিওয়ালা, রিকশাচালক, ভ্যানচালক, ইলেকট্রিক, ইলেকট্রনিক যন্ত্র মেরামতকারী, ইলেক্ট্রিশিয়ান, কাঠমিস্ত্রি, রাজমিস্ত্রী, রংমিস্ত্রী, গ্রিলমিস্ত্রী, প্লাম্বার, আচার, পিঠা প্রস্তুতকারী, ক্ষুদ্র তাঁতী, পশু চিকিৎসক ইত্যাদি) এবং যে কোনো ধরনের আয় উৎসারী কর্মকাণ্ডে জড়িত ব্যক্তি (যেমন: মুদি ও মনোহরী পণ্যের দোকানী, ভ্রাম্যমাণ কাপড়ের দোকানী, ফ্লেক্সিলোড সেবা প্রদানকারী, মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস এজেন্ট, তথ্যসেবা প্রদানকারী, ইন্টারনেট সেবা প্রদানকারী, ভাসমান খাবারের দোকানী, চা-পান বিক্রেতা, বই, পত্রিকা, ম্যাগাজিন বিক্রেতা, ঠোঙা, মোড়ক প্রস্তুতকারী, ফুল, ফল, শাক-সবজি বিক্রেতা, হাঁস, মুরগি, কবুতর, কোয়েল পালনকারী, গরু, ছাগল, ভেঁড়া ইত্যাদি গবাদিপশু পালনকারী, চিংড়ি, মৎস্য, কাঁকড়া, কুঁচে চাষি, কেঁচো সারসহ যে কোনো জৈব সার উৎপাদনকারী, সবজি চাষি, উদ্যোক্তা- নার্সারি, বৃক্ষরোপণ, সূঁচিশিল্প, ব্লক-বাটিক, ক্ষু্দ্র, কুটির শিল্প, হস্তশিল্প, কনফেকশনারিসহ অন্যান্য খাবার প্রস্তুতকরণ ও অন্য যে কোনো সম্ভাবনাময় উদ্ভাবনী কর্মকাণ্ডে জড়িত ব্যক্তি এবং বিভিন্ন আয় উৎসারী কর্মকাণ্ড পরিচালনায় প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ভিডিপি সদস্য) এ ঋণ সুবিধা পাবেন। এছাড়াও যে কোনো দুর্যোগে (প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট) ক্ষতিগ্রস্ত (যেমন: নদীভাঙন, জলোচ্ছ্বাস, ঘূর্ণিঝড়, বন্যা, খরা, মঙ্গা, অগ্নিকাণ্ড, ভূমিকম্প, ভবনধ্স, কোভিড-১৯ এর ন্যায় অতিমারি ইত্যাদি) প্রান্তিক, ভূমিহীন কৃষক, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, নিম্ন আয়ের পেশাজীবী এবং চর ও হাওর এলাকায় বসবাসকারী স্বল্প আয়ের জনগোষ্ঠী অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এ ঋণ সুবিধা পাবে। বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ব্যক্তি ও নারী উদ্যোক্তারা যে কোনো ধরনের আয় উৎসারী কর্মকাণ্ডে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এ ঋণ সুবিধা পাবেন। স্কুল ব্যাংকিং কার্যক্রমের মাধ্যমে আর্থিক অন্তভুক্তি বাড়ানোর পাশাপাশি মানবসম্পদ উন্নয়ন ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে) সুবিধাবঞ্চিত ও অসচ্ছল স্কুল ব্যাংকিং হিসাবধারীদের (শিক্ষা জীবন থেকে ঝরে পড়া শিক্ষার্থীসহ) বৃত্তিমূলক, কারিগরী, তথ্য প্রযুক্তিসহ অন্যান্য প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলো উক্ত স্কিমের আওতায় অভিভাবকের পরিশোধ গ্যারান্টির ভিত্তিতে ঋণসুবিধা প্রদান করতে পারবে) ১৮ বছর অতিক্রান্ত হওয়ার পর স্কুল ব্যাংকিং হিসাবধারীদের আয়-উৎসারী কর্মকাণ্ডে এবং প্রশিক্ষণলব্ধ দক্ষতা ভিত্তিক পেশা ও ব্যবসা পরিচালনার জন্য উক্ত স্কিমের আওতায় ব্যাংকগুলো ঋণ বিতরণ করতে পারবে) স্কুল ব্যাংকিং হিসাব ছিল এমন শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় শিক্ষা উপকরণ ক্রয়ের জন্য অভিভাবকের পরিশোধ গ্যারান্টির ভিত্তিতে উক্ত স্কিমের আওতায় ব্যাংকগুলো ঋণ বিতরণ করতে পারবে। ৫ বছর মেয়াদী এ স্কিমের মেয়াদ প্রয়োজনে আরও বাড়ানো হবে। যাদের ১০, ৫০ ও ১০০ টাকার ব্যাংক হিসাব নেই ঋণ গ্রহণের জন্য ব্যাংক হিসাব খুলতে হবে। ছয়মাস গ্রেস পিরিয়ড পাবেন ঋণ গ্রহীতারা। ঋণ পরিশোধ করতে হবে তিন বছরের মধ্যে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?