বুধবার, ০১ ডিসেম্বর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২১, ০২:১২:৫৬

বায়তুল মোকাররমে বিক্ষোভ, কাকরাইলে সংঘর্ষ, ঢাকার বাইরে প্রতিবাদ

বায়তুল মোকাররমে বিক্ষোভ, কাকরাইলে সংঘর্ষ, ঢাকার বাইরে প্রতিবাদ

ডেস্ক রির্পোট:- কুমিল্লার ঘটনায় সারা দেশের সব মসজিদে গতকাল জুমার নামাজে শান্তি-সম্প্রীতির প্রার্থনা করা হয়েছে। এদিকে কুমিল্লায় ‘কোরআন অবমাননার’ কথিত অভিযোগ তুলে এদিন ঢাকার বায়তুল মোকাররম মসজিদ থেকে ‘মালিবাগ মুসলিম যুব সমাজ’ ব্যানারে কয়েক শ লোক একটি মিছিল বের করে। মিছিলটি কাকরাইলের নাইটিঙ্গেল মোড়ে গেলে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে। মিছিলকারীদের একটি অংশ পুলিশের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এক পর্যায়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ বিভিন্ন গলির মুখে অবস্থান নিয়ে টিয়ার শেল ও শটগানের গুলি ছোড়ে। এ ছাড়া ঢাকার বাইরেও কয়েকটি স্থানে মুসল্লিদের ব্যানারে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ করা হয়েছে। জুমার দিনে গতকাল দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা ও শান্তির জন্য মহান সৃষ্টিকর্তা আল্লাহতায়ালার কাছে প্রার্থনা করেন মুসল্লিরা। খতিবরা ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে শান্তির পক্ষে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়ে মুসল্লিদের উদ্বুদ্ধ করেন। রাজধানীর বায়তুল মোকাররমসহ দেশের সব মসজিদে জুমার খুতবায় ও নামাজ শেষে মোনাজাতে দেশে সম্প্রীতি ও শান্তি কামনা করা হয়। অনেক মসজিদে আসন্ন পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে মহানবীর (সা.) জীবনদর্শনের ওপরও আলোচনা হয়েছে। জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে খুতবায় বলা হয়, বিশ্ব শান্তির প্রতীক হচ্ছেন হজরত মুহাম্মদ (সা.)। আল্লাহতায়ালা মহানবীকে বিশ্ব শান্তির জন্য পাঠিয়েছেন। ইসলামের শান্তির বার্তা, মহানবীর জীবনদর্শনসহ নানা বিষয়ে খুতবায় আলোচনা করা হয়েছে। মোনাজাতে সৃষ্টিকর্তার কাছে দেশে সম্প্রীতি ও শান্তির জন্য সাহায্য প্রার্থনা করা হয়েছে। এদিকে বায়তুল মোকাররম উত্তর গেট রাস্তাসংলগ্ন মেইন গেটে জুমার নামাজের আগে তালা লাগিয়ে দেন কেয়ারটেকার। একে কেন্দ্র করে একদল লোক বিক্ষোভ শুরু করেন। বিক্ষোভকারীরা কেয়ারটেকারের ওপর হামলার চেষ্টা করলে পুলিশ তাকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়। পরে বিক্ষোভকারীরা মেইন গেটের তালা ভেঙে উল্লাস করতে থাকেন। এক পর্যায়ে পুলিশ তাদের বুঝিয়ে বায়তুল মোকাররম মসজিদের ভিতরে ঢুকিয়ে দেয়। জুমার নামাজের পর ‘মালিবাগ মুসলিম যুব সমাজ’ ব্যানারে কয়েক শ লোক বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। তারা পল্টন মোড় হয়ে কাকরাইল দিয়ে নাইটিঙ্গেল মোড়ে গেলে পুলিশের বাধার মুখে পড়েন। তখন মিছিলকারীরা দুই ভাগ হয়ে একটি অংশ বিভিন্ন অলিগলিতে ঢুকে পুলিশকে লক্ষ্য করে ঢিল ছুড়তে শুরু করে। পুলিশ বিভিন্ন গলির মুখে অবস্থান নিয়ে তখন টিয়ার শেল ও শটগানের গুলি ছোড়ে। প্রায় এক ঘণ্টা ধরে এ সংঘর্ষের সময় গুলিস্তান ও পল্টন এলাকায় গাড়ি চলাচল বন্ধ থাকে। কাকরাইল ও বিজয়নগরের বিভিন্ন গলিতে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া চলে। প্রধান সড়কে পুলিশের এপিসি ও জলকামানের গাড়িও দেখা যায়। উল্লেখ্য, জুমার নামাজের আগে যে কোনো ধরনের পরিস্থিতি মোকাবিলায় পুলিশ সতর্ক অবস্থান নিয়েছিল। র‌্যাব ও বিজিবি সদস্যরাও এতে অংশ নেয়। প্রস্তুত রাখা ছিল জলকামাল ও এপিসি। ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মতিঝিল বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. আবদুল আহাদ বলেন, বিক্ষোভ মিছিলটি নাইটিঙ্গেল মোড় পর্যন্ত যেতে দেওয়া হয়। কিন্তু তারা সেখানে গিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। পরে পুলিশ লাঠিচার্জ, জলকামান ও টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাস্থল থেকে ৮ জনকে আটক করা হয়েছে। সংঘর্ষের সময় পুলিশের ৫ সদস্য আহত হয়েছেন। দাঙ্গা অশান্তি বারণ ইসলামে : জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ ইউনাইটেড ইসলামী পার্টি আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে উদ্দেশ্যমূলকভাবে কুমিল্লার ঘটনা ঘটানো হয়েছে বলে দাবি করেন সংগঠনের চেয়ারম্যান মাওলানা ইসমাইল হোসাইন। তিনি বলেন, সব ধর্মের মানুষের সঙ্গে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও ভ্রাতৃত্ববোধ বজায় রেখে একে অপরের বিপদাপদে এগিয়ে আসাই আমাদের শান্তির ধর্ম ইসলাম ও রসুলের (সা.) শিক্ষা। বিদায় হজের ভাষণে মহানবীর (সা.) সুস্পষ্ট ঘোষণা ছিল- মানুষের সঙ্গে মানুষের মাতৃতুল্য সহাবস্থান নিশ্চিত করতে হবে। কোনো প্রকার সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বা অশান্তি সৃষ্টি করতে তিনি কঠোরভাবে বারণ করে গেছেন। যাদের ইন্ধনে কুমিল্লার ঘটনা ঘটানো হয়েছে তাদের চিহ্নিত করে, অবিলম্বে আইনের আওতায় আনতে সরকারের কাছে জোর দাবি জানান মাওলানা ইসমাইল হোসাইন। অশুভ মহল সম্প্রীতি বিনষ্টের চক্রান্ত করছে : একটি অশুভ মহল দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের চক্রান্ত করছে বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী ও মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ। এক বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় আরও বলেন, দক্ষিণ এশিয়া মহাদেশে বাংলাদেশ হচ্ছে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির একটি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। এখানে সব ধর্মের লোকেরা শান্তিতে ধর্ম-কর্ম এবং বসবাস করছে। একটি অশুভ মহল এই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বন্ধনকে বিনষ্টের চক্রান্ত করছে। তারা বলেন, কুমিল্লার পূজামন্ডপে কোরআন অবমাননার ঘটনা এবং পরবর্তীতে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জসহ দেশের কিছু জায়গায় যে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে আমরা এর নিন্দা জানাচ্ছি। এসব ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি দাবি করছি। এদিকে ঢাকার বাইরে কয়েক স্থানে মুসল্লিদের ব্যানারে বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ঘটানোর খবর পাঠিয়েছেন আমাদের প্রতিনিধিরা- খুলনা : খুলনা নগরীর রূপসা মহাশ্মশান পূজামন্ডপে প্রবেশপথ থেকে গত বৃহস্পতিবার ১৮টি ককটেলসদৃশ বস্তু উদ্ধার ও কয়রার সনাতন ধর্ম মন্দিরের প্রবেশ গেটে কে বা কারা দাহ্য পদার্থ ছুড়ে মারলে পরিস্থিতি খানিকটা উত্তপ্ত হয়। পরে মন্দিরের নিরাপত্তায় কঠোর সতর্কতা অবলম্বন করা হয়। নোয়াখালী : গতকাল নোয়াখালীর চৌমুহনীতে ৬টি পূজামন্ডপ ভাঙচুর করে আগুন লাগিয়ে দেয় কতিপয় লোকজন। পুলিশ জানায়, এ সময় যতনসাহা (৪২) নামে এক হিন্দু ভক্ত স্ট্রোক করে মারা যান। এ ছাড়া বেগমগঞ্জে জুমার নামাজ শেষে কিছু মুসল্লির বের করা মিছিল থেকে হামলা করা হলে থানার ওসি কামরুজ্জামান শিকদার এবং চার পুলিশসহ কমপক্ষে ১৭ জন হয়েছেন। ৪ পুলিশসহ ৫ জনকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরে গতকাল বাদ জুমা মুসল্লিদের একটি মিছিল থেকে দুর্গাপূজায় হামলার চেষ্টা করা হলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তা রুখে দেয়। এ সময় তাদের ইটপাটকেল নিক্ষেপে সদর থানার ওসি জসীম উদ্দিন গুরুতর আহত হন। পরে এ হামলার প্রতিবাদে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শাহাদাত হোসেন শরীফ ও সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল করিম নিশানের নেতৃত্বে শহরে মিছিল করা হয়। চট্টগ্রাম : চট্টগ্রাম নগরীর জেএম সেন হলের পূজামন্ডপে হামলার প্রচেষ্টা হয়েছে। গতকাল দুপুরে জুমার নামাজের পর একদল লোক জেএম সেন হলের পূজামন্ডপের গেট ভেঙে ভিতরে প্রবেশের চেষ্টা করে। এ সময় তারা ঢিল ছোড়ে এবং পূজার ব্যানার ছিঁড়ে ফেলে। ঘটনার প্রতিবাদে প্রতিমা বিসর্জন না করার ঘোষণা দেয় মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদ। তবে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন ও প্রশাসনের শীর্ষকর্তাদের মধ্যস্থতায় বিসর্জন না করার সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন পূজা উদযাপন পরিষদের নেতারা। হামলার প্রচেষ্টার সঙ্গে জড়িত ৬৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল দুপুরে পূজামন্ডপে হামলার প্রচেষ্টার পর বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে একটি কালীমন্দির ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটানো হয়। জানা গেছে, করিমগঞ্জের গুণধর ইউনিয়নের কদিম মাইজহাটি এলাকার সেতুর কাছে নির্জন স্থানে কালীমন্দিরটি অবস্থিত। পূজারিরা যখন দুর্গাপূজা বিসর্জনের জন্য বিভিন্ন মন্দিরে প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন, তখনই কালীমন্দিরে হামলার ঘটনাটি ঘটে। হামলাকারীরা মন্দির ও প্রতিমা ভাঙচুর করে পালিয়ে যায়। সিলেট : সিলেটে বিক্ষোভ মিছিল থেকে দুটি পূজামন্ডপে হামলার চেষ্টা চালানো হয়েছে। ওই মিছিল থেকে পূজামন্ডপ লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। তবে পুলিশ সতর্ক থাকায় বড় ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়ানো সম্ভব হয়েছে। ইটপাটকেলের আঘাতে অন্তত ৫ জন আহত হয়েছেন। ভাঙচুর করা হয়েছে দুটি গাড়ি। গতকাল জুমার নামাজের পর নগরীর আখালিয়া কালীবাড়ি এলাকার দুটি মন্ডপে এ হামলার চেষ্টা চালানো হয়।বাংলাদেশ প্রতিদিন

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?