বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২১, ০৭:৩৪:১৬

রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদে কাজ না করেই ৪ কোটি টাকার বিল

রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদে কাজ না করেই ৪ কোটি টাকার বিল

রাঙ্গামাটি:- কাগজ-কলমের হিসাবে রাঙ্গামাটির রাজস্থলী উপজেলায় দুটি রাস্তা বদলে দিয়েছে পাহাড়িদের ভাগ্য। এতে সরকারের বরাদ্দ ছিল ৪ কোটি টাকা। এদিকে বাস্তবে এই কাজ শেষ না হওয়ায় উন্নয়নের ওই প্রচার নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে স্থানীয় বাসিন্দারা। বিব্রত উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা। তবে প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের দাবি, রাস্তাটি নির্মাণকাজ চলমান আছে। অনুসন্ধানে জানা গেছে, গত ২০১৯-২০ অর্থ বছরে ১ নভেম্বর রাস্তার কাজের জন্য টেন্ডার বিজ্ঞাপন দেয় রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ। এর ১ নম্বরে ছিল রাবার বাগান থেকে পাইন্দং পাড়া, শ্মশানঘাট যাত্রী ছাউনি হয়ে তরগুমুখপাড়া পর্যন্ত সড়ক। তালিকার ২ নম্বরে ছিল ইসলামপুর বালুমুড়া থেকে কেচিপাড়া-কমলছড়িপাড়া পর্যন্ত পাকা রাস্তা নির্মাণ। প্রায় ২ কোটি করে দুটি রাস্তার বরাদ্দ দেওয়া হয় ৪ কোটি টাকা। রাস্তা দুটি নির্মাণকাজ পায় রফিকুল আলম লিটনের মালিকানাধীন লিটন এন্টারপ্রাইজ নামের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। এ দিকে সরেজমিন পরিদর্শনে রাবার বাগান থেকে পাইন্দং পাড়া, শ্মশান ঘাট যাত্রী ছাউনি হয়ে তরগুমুখপাড়া সড়কে কাজের কোনো নজির পাওয়া যায়নি। তরগুমুখপাড়া বাসিন্দা ইসলামপুর বাজারে ফার্মেসি ব্যবসায়ী ক্রইচিংমং মারমা জানান, ‘রাস্তা নির্মাণের কাজ শুরু করার জন্য দামি মোটরসাইকেল নিয়ে অনেকজন আসা-যাওয়া করছে। কিন্তু এখনো কোথাও কাজ শুরু করেনি।’ পাইন্দংপাড়া কার্বারি মংচখয় মারমা বলেন, ‘আমাদের গ্রামের রাস্তা তরগু ছড়ার ওপর কালভার্ট পর্যন্ত কোথাও সলিং, কোথাও পাকা রাস্তা ৩ বছরের আগে নির্মাণ করা হয়েছে। এই রাস্তাটি পাকা করার জন্য রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের অনেক লোকজন ঘুরে গেছে। এখনো নতুন কোনো রাস্তা নির্মাণকাজ হয়নি।’ ইসলামপুর বালুমুড়া থেকে কেচিপাড়া হয়ে কমলছড়ি রাস্তা পাকা নির্মাণ বিষয়ে আওয়ামী লীগ দলের সাধারণ সম্পাদক পুচিংমং মারমা বলেন, ‘আমার গ্রামের বাড়ি কমলছড়িপাড়া। এই ধরনের রাস্তা নির্মাণ হয়ে থাকলে আমি অবশ্যই জানব।’ এই রাস্তা নির্মাণ বিষয়ে তিনি কিছুই জানে না। ইসলামপুর বাজার এলাকা বাঙ্গালহালিয়া ইউপির ১ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক সদস্য মো. মোতালেব হোসেন জানান, গত কয়েক বছর আগে রাস্তা নির্মাণকাজ হয়েছিল। করোনা ভাইরাসের প্রভাবে কারণে লকডাউন আগে থেকে এখনো পর্যন্ত উন্নয়নকাজ হয়নি। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে এ বিষয়টি কথা বলতে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের উপসহকারী প্রকৌশলী মো. এরশাদুল হক মণ্ডল, নির্বাহী প্রকৌশলী বিরল বড়ুয়ার মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন করা হলেও রিসিভ করেননি। পরে মেসেজ পাঠিয়েও তাঁদের সাড়া পাওয়া যায়নি। এদিকে ওই দুই কর্মকর্তাসহ ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের মালিক লিটন এর আগে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে দাবি করেন, রাস্তা দুটি নির্মাণকাজ চলমান রয়েছে। আবার রাস্তাগুলো পাকা হওয়ায় স্থানীয় ৭-৮টি গ্রাম সুফল হয়েছে বলে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে দাবিও করছেন। নাম প্রকাশ না শর্তে উপজেলায় আওয়ামী লীগের একাধিক জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, হাজারো প্রশ্নবিদ্ধ রাস্তা নির্মাণকাজ নিয়ে বিব্রত অবস্থা মধ্যে আছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

  পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির ২৪ বছর পূর্তি উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা

  কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখার ঘটনায় ইকবাল রাঙ্গামাটির আদালতে

  রাঙ্গামাটিতে ঘরে ঢুকে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির এরিয়া কমান্ডারকে গুলি করে হত্যা

  রাঙ্গামাটিতে জেলা উন্নয়ন কমিটির সভা অনুষ্টিত

  রাঙ্গামাটি,চট্টগ্রাম,ঢাকাসহ সারাদেশে আবারও ভূমিকম্প

  সেরা করদাতা সম্মাননায় রাঙ্গামাটির বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. লোকমান হাকিম (হীরা)সহ ৪২ জন

  রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরে যৌথ বাহিনী অভিযান একে ৪৭ রাইফেলসহ বিপুল পরিমান গােলাবারুদ উদ্ধার

  রাঙ্গামাটিতে ভূমিকম্পে শহরের ঝুলুক্যা পাহাড়ের নির্মাণাধীন সংযোগ সেতু, ও মসজিদে ফাটল, আহত ৩

  রাঙ্গামাটির কাপ্তাইয়ের বিদ্যুৎ কেন্দ্র কমছে উৎপাদন

  রাঙ্গামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কের ২০টিরও অধিক বেইলি সেতু ঝুঁকিপূর্ণ

  রাঙ্গামাটির কাপ্তাইয়ে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?