আরবদের বার্তা নিয়ে ইসরায়েলে গেলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রিপোর্টার
  • আপডেট সময় বুধবার, ১০ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ৬১ দেখা হয়েছে

ডেস্ক রির্পোট:- ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে ঘন ঘন মধ্যপ্রাচ্যে সফর করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন। এখানো তিনি মধ্যপ্রাচ্যে অবস্থান করছেন। তার এবারের সফরের উদ্দেশ্য গাজা যুদ্ধ যেন মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য অঞ্চলে না ছড়িয়ে পড়ে তা নিশ্চিত করা। এই উদ্দেশ্যে এরই মধ্যে আরব বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নেতার সঙ্গে বৈঠক করেছেন তিনি। আরবদের বার্তা নিয়ে মঙ্গলবার ইসরায়েলে উড়ে গেছেন ব্লিঙ্কেন। খবর রয়টার্সের।

গত অক্টোবর থেকে চতুর্থবারের মতো মধ্যপ্রাচ্য সফরে গেছেন ব্লিঙ্কেন। অবশ্য তার অধিকাংশ সফরই গাজায় যুদ্ধ থামাতে ব্যর্থ হয়েছে। এরপরও তিনি বলেছেন, জর্ডান, কাতার, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও সৌদি আরবের সঙ্গে দুদিনের আলোচনায় যা উঠে এসেছে তিনি তা ইসরায়েলের কাছে পৌঁছে দেবেন।

ইসরায়েলে গিয়ে ব্লিঙ্কেন ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। এখন দেশটির যুদ্ধকালীন মন্ত্রিসভার সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাতের কথা রয়েছে তার। ৭ অক্টোবর হামাসের হামলার পর পর এই মন্ত্রিসভা গঠন করে ইসরায়েল।

গত ৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকা থেকে নজিরবিহীন হামলা চালিয়ে প্রায় ১২০০ ইসরায়েলিকে হত্যা এবং ২৫০ জনকে বন্দিকে করে গাজায় নিয়ে যায় হামাস যোদ্ধারা।
আরবদের বার্তা নিয়ে ইসরায়েলে গেলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী
গাজায় বৃহত্তম অস্ত্র কারখানা উদঘাটনের দাবি ইসরায়েলের

হামাসের হামলার জবাবে ৭ অক্টোবর থেকে গাজায় নির্বিচারে হামলা চালিয়ে আসছে ইসরায়েল। ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহতের সংখ্যা ২৩ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এ ছাড়া ঘরবাড়ি ছাড়া হয়েছেন আরও ১৯ লাখ মানুষ।

এবারের সফর শুরুর আগেই ইসরায়েলি হামলা থেকে গাজার বেসামরিক নাগরিকদের সুরক্ষা এবং সেখানে মানবিক ত্রাণসহায়তা পৌঁছানোর অনুমতি দিতে ইসরায়েল সর্বোচ্চ চাপ দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও দাবি করেছেন, গাজা থেকে কিছুসংখ্যক সেনা সরিয়ে নিতে ইসরায়েলকে নীরবে চাপ প্রয়োগ করেছে ওয়াশিংটন।

গাজা যুদ্ধের অবসানের লক্ষ্যে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাত নিরসনে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা হাতে নিয়ে আরব বিশ্বের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করছেন ব্লিঙ্কেন। আরব মিত্রদের সঙ্গে বৈঠক শেষে তিনি বলেছেন, আরবদের সঙ্গে ইসরায়েলকে একীভূত করতে চান তিনি। তবে এ জন্য ফিলিস্তিনি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার বিষয়ে বাস্তবিক রূপরেখা থাকবে হবে।

এরপর মঙ্গলবার ইসরায়েলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইসরায়েল কাটজকে তিনি বলেন, আমি মনে করি এ বিষয়ে প্রকৃত সুযোগ রয়েছে। তবে আমাদের এই চ্যালেঞ্জিং মুহূর্ত পার করতে হবে। ৭ অক্টোবরের মতো হামলার ঘটনা যেন আর না ঘটে, তা-ও নিশ্চিত করতে হবে। একই সঙ্গে অনেক ভালো ভবিষ্যৎ গড়তে কাজ করতে হবে।

পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো
© All rights reserved © 2023 Chtnews24.net
Website Design By Kidarkar It solutions