শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৯, ০১:৫৯:৩৭

টানা ছুটিতে আশানুরূপ পর্যটক নেইঃ অর্থনৈতিক ভাবে বিপর্যয়ে পড়বে পর্যটন শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা

টানা ছুটিতে আশানুরূপ পর্যটক নেইঃ অর্থনৈতিক ভাবে বিপর্যয়ে পড়বে পর্যটন শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা

বান্দরবানঃ-ঈদের লম্বা ছুটিতে আশানুরূপ পর্যটক না আসায় হতাশা সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা। সম্প্রতি সময় প্রাকৃতিক দুর্যোগে বন্যার ঘটনায় বান্দরবানে ধস নেমেছে পর্যটন শিল্পে। ঈদ উপলক্ষে বান্দরবানের আবাসিক হোটেল, মোটেল, রিসোর্ট এবং গেস্ট হাউজগুলোতে আশানুরূপ বুকিং হয়নি এবার। অথচ অন্যান্য বছরগুলোতে ঈদের পনের থেকে বিশদিন আগেই সবগুলো হোটেল, মোটেল, রিসোর্ট, রেস্টহাউজ এবং গেস্ট হাউজ গুলো বুকিং হয়ে যায়, কিন্তু এবার তেমনটি ঘটেনি। পর্যটকদের আশানুরুপ সাড়া না মেলায় হতাশা দেখা দিয়েছে পর্যটন ব্যবসায়ীদের মধ্যে। কারণ পাহাড়ের অন্যতম অর্থনৈতিক আয়ের খাত পর্যটন শিল্প। পর্যটকের সঙ্গে আবাসিক হোটেল-মোটেল, রেস্টুরেন্ট, পরিবহন এবং এ অঞ্চলের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীরাও জড়িয়ে পড়েছেন পর্যটন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ব্যবসায়। যার ফলে অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন ব্যবসায়ীরা। প্রতি বছর ঈদের ছুটিতে পর্যটকের ঢল নামে বান্দরবানে। আগে থেকে বুকিং হয়ে যায় হোটেল-মোটেল, গেষ্ট হাউস গুলো। কিন্তু এবার ঈদের ভিন্ন চিত্র। টানা সরকারি ছুটি থাকলেও আগাম কোন বুকিং হয়নি হোটেল-মোটেল, গেষ্ট হাউস গুলোতে। প্রাকৃতিক দৃশ্য পাহাড়ী বাঙ্গালীসহ ১১টি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর শান্তিপূর্ণ বসবাস পাহাড়ী এলাকায় অসংখ্য ঝিরি-ঝর্ণা, মেঘলার লেক, নজরকারা স্বর্ণ মন্দির, নীলাচল, নীলগিরি, শৈলপ্রপাত, চিম্বুক, বগালেক, রেমাক্রী, নাফাকুম, বড়পাথরসহ সরকারী-বেসরকারী অনেকগুলো পর্যটন কেন্দ্র রয়েছে জেলাতে। নিলাচল, নীলগিরি, মেঘলাসহ অন্যান্য পর্যটন কেন্দ্রগুলো ঘুরে দেখা গেছে তেমন পর্যটক নেই। অথচ এ সময়ে এসব জায়গায় তিল পরিমাণও ঠাঁই থাকে না। তবে গত শুক্রবার ও শনিবার বিকালে জেলা শহরের নীলাচল ও মেঘলা পর্যটন স্পটে কিছু সংঙ্গক পর্যটক দেখা গেছে।
এদিকে মেঘলার হলিডে ইন রিসোর্ট এর ব্যবস্থাপক মো: জাহিদ বলেন, এবার ঈদের আশা করছিলাম অনেক পর্যটকের সমাগম ঘটবে। কিন্তু লম্বা বন্ধ থাকা সত্ত্বেও আশানুরূপ রুম বুকিং হয়নি। শীতের মৌসুম ৩ মাস, পূজা ও ঈদের ছুটিতে পর্যটন ব্যবসা হয়। বাকী ৯মাস আমাদের তেমন কোন ব্যবসা হয় না। শুধু ঈদ আর বিশেষ কোনো দিনের আশায় আমরা ব্যবসা করতেছি। তবে পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা পর্যটক না আশার কারণ হিসেবে দেখছেন ডেঙ্গু ও বৃষ্টির এবং পাহাড়ের অস্থিতিশীল পরিবেশ। বর্তমানে চারিদিকে মানুষের মধ্যে ডেঙ্গু আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। এজন্য মানুষ কোথাও যাচ্ছে না। অনেকে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছে। তাই হয়তো সেই ভয়ে কেউ ঘুরতে আসছে না। এছাড়াও পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা বলেন, গত জুন থেকে থেকেই পর্যটন ব্যবসায় মন্দাভাব যাচ্ছে। ঈদের ছুটির এ সময়টার দিকে অনেকেই তাকিয়ে ছিলেন। কিন্তু আশানুরুপ পর্যটক নেই। যেভাবে পর্যটক আসার কথা ছিল সে তুলনায় এবার ছুটিতে পর্যটক আসেনি। বছরের কিছু সময়ে পর্যটন ব্যবসা ভালো হয়ে থাকে, বিশেষ করে বছরের শেষ তিন মাস এবং দুই ঈদের ছুটির দিকে তাকিয়ে থাকেন ব্যবসায়ীরা। ঈদে পর্যটন ব্যবসা জমে উঠবে এমন আশায় বুক বেঁধেছিল তারা। আশা নিরাশ হয়ে গেছে ব্যবসায়ীদের। যার ফলে অর্থনৈতিক ভাবে বিপর্যয়ে পড়বে এখানকার পর্যটন শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা।
’বান্দরবান হোটেল-মোটেল মালিক সমিতি’র সভাপতি অমল কান্তি দাশ বলেন, স¤প্রতি অতি বৃষ্টিতে বন্যা ও পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। পর্যটকদের মধ্যে ডেঙ্গু আতঙ্ক কাজ করছে। প্রতি বছর ঈদের আগে হোটেল-মোটেল এবং অধিকাংশ গাড়ি বুকিং হয়ে যেত, কিন্তু এবার তেমনটি ঘটেনি। যার কারনে পর্যটন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ব্যবসায়ীরা অর্থনীতিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তার মতে, এবছর ঈদে আশানুরূপ পর্যটকের আগমন ঘটেনি। এতে পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী হতাশ। আমরা আশা করছিলাম টানা বন্ধ থাকায় এবার পর্যটকদের বেশ সমাগম হবে। কিন্তু তা একেবারেই ভিন্ন পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার জানান, পর্যটকরা যাতে নিরাপদে ভ্রমন করতে পারে সে লক্ষে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। এছাড়াও টুরিস্ট পুলিশ রয়েছে, তারা সার্বক্ষণিক টহল দিচ্ছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  বান্দরবানের মেঘলা পর্যটন কেন্দ্রে দখিনা চত্বরের উদ্বোধন করলেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো: আব্দুল মান্নান

  আলীকদম পর্যটন স্পট গুলিতে দর্শনার্থীদের ভিড়ঃ ভরা বর্ষায় উন্মাতাল দামতুয়া ঝর্ণা

  পর্যটকদের পদচারণায় মুখর রাঙ্গামাটি ঘাগড়া কলা বাগানে অবস্থিত ঘাগড়া ঝর্ণা

  টানা ছুটিতে আশানুরূপ পর্যটক নেইঃ অর্থনৈতিক ভাবে বিপর্যয়ে পড়বে পর্যটন শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা

  ঈদের ছুটিতে কাপ্তাই লেকে নৌ ভ্রমণে পর্যটকদের ছিল উপচেপড়া ভীড়

  পাহাড় ধসের শঙ্কায় পর্যটকদের সাজেক ভ্রমণ না করার আহবান

  পর্যটকের পদচারণায় মুখরিত বান্দরবান

  বান্দরবানের পর্যটন স্পট রুমা উপজেলার বগালেক দেখতে প্রতিদিনই ভিড় জমাচ্ছে পর্যটকেরা

  খাগড়াছড়িতে পর্যটন কন্যা ভাইবোনছড়া মায়াবী লেকে পর্যটকদের ভিড়

  আলাউদ্দিন-লিমা দম্পতির জীবনে ঘটে যাওয়া মর্মান্তিক ঘটনার বর্ননা লাভ পয়েন্টের কোথাও নেই

  বান্দরবানের আকাশে মেঘ,পর্যটকেরা বিমোহিত

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

আওয়ামী লীগের দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকারের অনেক মন্ত্রী দুদকে হাজিরা দিচ্ছেন, আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী জেলে আছেন। তার এই বক্তব্যের সঙ্গে আপনি একমত?