মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ২২ জুলাই, ২০১৯, ০৮:৩৯:১২

ভুল স্বীকার করলেও অনুতপ্ত নন ধর্মসেনা

ভুল স্বীকার করলেও অনুতপ্ত নন ধর্মসেনা

স্পোর্টস ডেস্কঃ-বিশ্বকাপের ফাইনালে শিরোপা জয়ী ইংল্যান্ডকে ওভার থ্রোতে ছয় রান দেয়া ‘ভুল’ ছিল বলে স্বীকার করেছেন আম্পয়ার শ্রীলঙ্কার কুমার ধর্মসেনা। তবে এ জন্য তিনি মোটেও অনুতপ্ত নন। ধর্মসেনা বলেন, ফাইনালের শেষ ওভারে পাঁচ এর পরিবর্তে ছয় রান দেয়ার সিদ্ধান্ত তার একার ছিল না। সমন্বিতভাবেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল।
তিনি জানান, লেগ আম্পায়ার মারিয়াস এরাসমাসের সঙ্গে পরামর্শ এবং ম্যাচ পরিচালনাকারী সব কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সিদ্ধান্তটা ‘ভুল’ ছিল স্বীকার করেন ধর্মসেনা। তবে এ জন্য তিনি ‘কখনো অনুতপ্ত’ বোধ করবেন না।
শ্রীলঙ্কার সানডে টাইমস পত্রিকাকে ধর্মসেনা বলেন, ‘টিভি রিপ্লে দেখার পর এ বিষয়ে মন্তব্য করাটা মানুষের জন্য সহজ। এখন টিভি রিপ্লেতে দেখার পর আমি স্বীকার করছি আমার বিচারীয় ভুল ছিল। কিন্তু মাঠে তো আমরা টিভি রিপ্লে দেখার সুযোগ পাইনি এবং যে সিদ্ধান্ত দিয়েছি আমি তার জন্য কখনোই অনুশোচনা বোধ করবো না। এ ছাড়া সে সময়ের সিদ্ধান্তের জন্য আইসিসি আমার প্রশংসা করেছে।’
ম্যাচের শেষ ওভারে ইংল্যান্ডের বেন স্টোকস দ্বিতীয় রান নেয়ার সময় তার ব্যাটে মার্টিন গাপটিলের একটি থ্রো সরাসরি লেগে বাউন্ডারি পেরিয়ে যায়। ধর্মসেনা এতে মোট ছয় রান দেন। তিন বল পর নিউজিল্যান্ডের ৮ উইকেটে করা ২৪১ রানের জবাবে নির্ধারিত ৫০ ওভারে সবক’টি উইকেট হারিয়ে সমান ২৪১ রান করে ইংল্যান্ড। ফলে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ম্যাচটি গড়ায় সুপার ওভারে। সুপার ওভারও টাই হলে বেশি বাউন্ডারি মারায় শিরোপা জিতে ইংল্যান্ড।
সাবেক বিশ্বসেরা আম্পায়ার অস্ট্রেলিয়ার সাইমন টোফেলসহ অনেকেই এ সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন। সমালোচকদের মত, যেহেতু বল থ্রো করার সময় ব্যাটসম্যান দ্বিতীয় রানের জন্য লাইন ক্রস করতে পারেনি, তাই ইংল্যান্ডকে ছয় না দিয়ে পাঁচ রান দেয়া উচিত ছিল। ফক্স স্পোর্টসকে টোফেল বলেন, যেহেতু ব্যাটসম্যানরা দ্বিতীয় রান শেষ করতে পারেননি তাই আম্পয়ারা একটি ‘পরিষ্কার ভুল’ করেছেন।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?