বুধবার, ১৭ জুলাই ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ০৫ মে, ২০১৯, ০৮:১৭:০৩

কেপিএম স্কুলে ৬১তম বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

কেপিএম স্কুলে ৬১তম বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

কাজী মোশাররফ হোসেন, কাপ্তাইঃ-কাপ্তাই উপজেলার চন্দ্রঘোনায় অবস্থিত কেপিএম স্কুলের ৬১তম বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান রবিবার (৫ মে) বর্ণাঢ্য আয়োজনে স্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শান্তির প্রতিক পায়রা অবমুক্ত করে ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাষ্ট্রিজ কর্পোরেশনের (বিসিআইসি) সচিব এবং কেপিএম স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র মোঃ আসাদুর রহমান। কেপিএমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী ড. এম এম এ কাদেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কেপিএমের মহাব্যবস্থাপক (এমটিএস) স্বপন কুমার সরকার, মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) মোঃ একরাম উল্লাহ্ খন্দকার, মহাব্যবস্থাপক (হিসাব ও অর্থ) ননী গোপাল দেবনাথ, ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) কাজী জয়নাল আবেদীন সোহেল, কেপিএমের নিরাপত্তা কর্মকর্তা বাদশা আলম, সহ-প্রশাসনিক কর্মকর্তা হাবিব উল্ল্যাহ, কেপিএম শ্রমিক কর্মচারি পরিষদ (সিবিএ) সভাপতি মোঃ আবদুর রাজ্জাক, সিবিএ সাধারন সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বাচ্চু এবং কাজী মোশাররফ হোসেন। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কেপিএম স্কুলের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ রাহিমা আক্তার রোজী ও সিনিয়র শিক্ষক বেগম আফরোজা আক্তার নুর। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শুরুতে স্কুলের শিক্ষার্থীরা মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে।
প্রধান অতিথিসহ আমন্ত্রিত অতিথিরা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা উপভোগ করেন। গত ৬১ বছর ধরে কেপিএম স্কুল সুনামের সাথে লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে বিশেষ অবদান রেখে আসছে জেনে প্রধান অতিথি আসাদুর রহমান সন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন সেই ১৯৭৯ সালে কেপিএম স্কুল থেকে এসএসসি পাশ করেছি। কিন্তু এখনো স্কুল আঙ্গীনার কথা ভুলতে পারিনি। তিনি শিক্ষার্থীদের নিয়মিত লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক চর্চা করার পরামর্শ দেন। বর্তমানে অনেক প্রতিকুলতা থাকা সত্বেও সুন্দর ও সুশৃঙ্খল ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে পারায় তিনি স্কুলের শিক্ষক মন্ডলীসহ কেপিএম ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

এলডিপি সভাপতি অলি আহমদ বলেছেন, বাংলাদেশে এখন টাকা থাকলে সব রকম অন্যায় করে পার পাওয়া যায়। আপনি কি তা ঠিক মনে করেন?