Chtnews24.com
আন্দোলনে পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীঃ রাঙ্গামাটি শহরে আবর্জনার স্তুপ, দুর্গন্ধে নাকাল পৌরবাসী
Monday, 22 Jul 2019 13:53 pm
Reporter :
Chtnews24.com

Chtnews24.com

রাঙ্গামাটিঃ-রাজস্ব খাত থেকে বেতন প্রদান ও পেনশনের দাবিতে সারাদেশে পৌরসভার কর্মচারীরা ঢাকায় অবস্থান কর্মসূচি পালন আর অন্যরা কর্মবিরতি পালন করার ফলে এক সপ্তাহের অধিক সময়ে রাঙ্গামাটি পর্যটন শহরে রাতের বেলায় জ্বলছেনা পৌর শহরের সড়ক বাতি আর শহরের প্রধান সড়ক থেকে শুরু করে অলি গলিসহ বাজারগুলোতে জমে গেছে ময়লা-আর্বজনার স্তুপ।
রাঙ্গামাটি শহরের আবাসিক এলাকার রাস্তায়, ফুটপাতে, প্রতিষ্ঠানের আনাচে-কানাচে ময়লা-আবর্জনার স্তুপ পড়ে থাকায় এই সব আর্বজনা পশুপাখি খাচ্ছে আর পথচারী ও পর্যটকরা নাকে রুমাল দিয়ে চলাফেরা করছে। আবার এইসব ময়লা-আর্বজনার স্তুপগুলো শহরে দূর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। বেড়েছে মশা-মাছির চরম উপদ্রব। এতে করে একদিকে বাড়ছে সাধারণ মানুষের জনদূর্ভোগ অন্যদিকে নাগরিক সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে পৌরবাসী।
এবিষয়ে রাঙ্গামাটি পৌর মেয়র মোঃ আকবর হোসেন চৌধুরী বলেন, পৌরসভার প্রশাসনিক কার্যক্রম এখন বন্ধ রয়েছে। সকল কর্মচারীরা এখন ঢাকায় অবস্থান করছে। রাজস্ব খাত থেকে বেতন প্রদান ও পেনশনের সুবিধা পাওয়ার কথা তা না পাওয়াতে কর্মচারীরা আন্দোলনে নেমেছে।
তিনি বলেন, পৌরসভার কর্মচারীরা আন্দোলনের কারণে পৌর শহরে নাগরিক সুযোগ সুবিধা সাময়িক বিঘিœত হচ্ছে এবং শহরের ময়লা আর্বজনা বেড়ে গেছে আর এইসব বিষয়ে চিন্তা করে আমি ও প্যানেল মেয়র জামাল উদ্দীনের উদ্যেগে রবিবার (২১ জুলাই) থেকে প্রধান সড়কে বিকল্প ব্যবস্থায় ময়লা অপসারণের কাজ শুরু করেছি। আশা করি কয়েকদিনের মধ্যে এইসব ময়লা-আর্বজনা সরিয়ে ফেলতে সক্ষম হবো।
পৌরবাসীর কষ্টের জন্য দুঃখ প্রকাশ করে রাঙ্গামাটি পৌর কর্মচারী সংসদের সাধারণ সম্পাদক সনৎ বড়ুয়া বলেন, কয়েক বছর ধরেই ধারাবাহিকভাবে আন্দোলন করে আসছি, স্বাভাবিক কাজকর্ম অব্যাহত রেখেছি দিনের পর দিন। এখন আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। আমরা বাধ্য হয়েই কঠোর ও কঠিন কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছি, যাতে সারাদেশের ৩২৮ পৌরসভার ৩২ হাজার ৫০০ কর্মচারী যোগ দিয়েছে।