Chtnews24.com
চাঁদাবাজিতে বাধা দেয়ায় বাঙ্গালী যুবককে গুলি করে হত্যা
Sunday, 09 Jun 2019 20:05 pm
Reporter :
Chtnews24.com

Chtnews24.com

খাগড়াছড়িঃ-খাগড়াছড়ির মানিকছড়ির সীমান্তবর্তী লাগোয়া ফটিকছড়ির ভুজপুরের বড়ইতলী নামক দূর্গম এলাকায় গভীর রাতে ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় আবদুল রহিম বাদশা (২৫) নামে এক যুবককে গুলি করে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা।
শনিবার (৯ জুন) গভীর রাতে এই হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটে। নিহত রহিম বাদশা বড়ইতলীর মোমিনুল হক সর্দারের ছেলে বলে জানা গেছে। এলাকায় চাঁদাবাজি করতে বাধা প্রদান করায় সন্ত্রাসীরা এই হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে বলে স্থানীয়দের ধারণা।
স্থানীয়রা জানান, ফটিকছড়ির ভুজপুর থানাধীন দাঁতমারা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের দূর্গম পাহাড়ি এলাকা বড়ইতলীতে জনৈক কালা’র বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন আব্দুল রহিম বাদশা। প্রতিদিনের মতো শনিবার রাতে রহিম ও তার সঙ্গী লিটন এবং অপর একজন ঐ ভাড়া বাসায় ঘুমাচ্ছিলেন। এসময় কয়েকজন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী বাসাটি ঘেরাও করে সন্ত্রাসীদের একজন ঘরের জানালা দিয়ে ঘুমন্ত অবস্থায় রহিম বাদশার মাথায় এক রাউন্ড গুলি করে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে তিনি মারা যান। রবিবার (৯ জুন) সকালে খবর পেয়ে ভুজপুর থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে নিয়ে আসা হয়েছে।
হাটহাজারী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মাসুম বলেন, লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে এখনো কোন মামলা হয়নি। দাঁতমারা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ জানে আলম বলেন, নিহতের পিতা মোমিনুল হক সর্দার মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
এদিকে, রামগড় বিজিবি জোনের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ তারিকুল হাকিম রবিবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এসময় তিনি বলেন, সন্ত্রাসীরা দীর্ঘদিন ধরে দূর্গম এলাকায় চাঁদাবাজিরসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। তাদের এ চাঁদাবাজি কাজে বাধা প্রদান করায় রহিম বাদশাকে তারা হত্যা করেছে বলে ধারণা। তিনি বলেন, ঐ এলাকায় সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে শীঘ্রই যৌথ অভিযান চালানো হবে বলেও জানান তিনি।