Chtnews24.com
না ফেরার দেশে চলে গেলেন রাঙ্গামাটির প্রবীণ চিত্রশিল্পী বিজয় দত্ত
Saturday, 09 Feb 2019 14:53 pm
Reporter :
Chtnews24.com

Chtnews24.com

রাঙ্গামাটিঃ-রাঙ্গামাটির বিশিষ্ট চিত্র শিল্পী, শ্রী শ্রী গীতাশ্রম মন্দির পরিচালনা কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও প্রবীণ ব্যক্তিত্ব দেবাশীষ দত্তের বাবা বিজয় দত্ত শুক্রবার (৮ফেব্রুয়ারী) রাত ১০.৪০ মিনিটে পরলোক গমন করেছেন।
মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। মৃত্যুকালে তিনি ৩ ছেলে ও ৩ মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন রেখে গেছেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্য জণিত কারণে বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। আর শুক্রবার রাত ১০.৪০ মিনিটে সবার মায়া মমতা ছেড়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন।
এদিকে, তার মৃত্যুর সংবাদ শহরের ছড়িয়ে পড়লে রিজার্ভ বাজার এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। তাকে শেষ বারের মতো দেখতে তার নিজ বাড়িয়ে অগনিত মানুষ ভীড় করে। এসময় খবর পেয়ে রাঙ্গামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মুছা মাতব্বর, পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরী, রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ সাবেক সদস্য ও চিত্রশিল্পী রতিকান্ত তংচঙ্গ্যাসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা ছুটে আসেন।
উল্লেখ্য, চিত্রশিল্পী বিজয় দত্ত রিজার্ভ বাজারের গীতাশ্রম এলাকার নিজ বাসভবনেই মৃত্যুর আগ পর্যন্ত সময় পার করেছেন। চিত্রকলার উপর প্রাতিষ্ঠানিক কোন স্বীকৃতি না তাকলেও একান্ত ব্যক্তিগত ইচ্ছায় ১৯৬১ হতে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত চট্টগ্রামের জুবলী রোডের ফজলী অর্ট এ কাজ করার সুবাদে দক্ষতা অর্জন করেন তিনি।
পরবর্তীতে জন্মস্থান রাঙ্গামাটিতে এসে তিনি চিত্রশিল্পী হিসাবে পেশাগত জীবন শুরু করেন। ২০১৩ সাল পর্যন্ত একাধারে ৫২ বছর তিনি ছিলেন নিজ পেশায় সক্রিয়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ বাংলাদেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান, এইচ এম এরশাদ, তুরেস্কর প্রেসিডেন্ট সোনাই, তুর্কি নেতা কামাল আতাতুর্ক, সুদানের বাদশাহ হোসাইন সহ বিশ্বের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির পোট্টেট এঁকে ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হন। রাঙ্গামাটির কাঠের উপর খোদাই করা মানচিত্র সকলের প্রশংসা পান এই গুণি চিত্রশিল্পী।
রাঙ্গামাটি জেলা শিশু একাডমী, শিল্পকলা একাডেমী, উসাইসহ বিভন্ন প্রতিষ্ঠানে চিত্রকলার প্রশিক্ষক হিসাবে দায়িত্ব পালন করে নতুন চিত্রশিল্পী গড়ার কাজে মূল্যবান ভূমিকা পালন করেন। ১৯৬৬ সালে রাঙ্গামাটি ফোক ফেস্টিভ্যালের প্রদর্শনীতে সেরা শিল্পীর সম্মননার পাশাপাশি রাঙ্গামাটি জেলা শিল্পকলা একাডেমী, চারুকলা একাডেমীর সম্মাননা লাভ করেন।