মঙ্গলবার, ২৫ জুন ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ০১ জুন, ২০১৯, ০৮:০৪:৪৭

কাজ তো করেই ফেলেছেন, এখন খালেদা জিয়াকে কারামুক্তি দেন-মোশাররফ

কাজ তো করেই ফেলেছেন, এখন খালেদা জিয়াকে কারামুক্তি দেন-মোশাররফ

ডেস্ক রিপোর্টঃ-কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ঈদের আগেই মুক্তি দেওয়ার দাবি জানিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, 'মানবিক কারণে খালেদা জিয়াকে এখন মুক্তি দিন। আর তো জেলে রাখার দরকার নেই। যে উদ্দেশ্যে জেলে রেখেছিলেন তা-তো করেই ফেলেছেন। আপনাদের কাজ তো আপনারা করেই ফেলেছেন। দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রীকে বন্দি রেখে ভোট ছাড়াই তো ক্ষমতা দখল করেছেন। এখন ঈদের আগেই বেগম জিয়াকে মুক্তি দিন। তা না হলে জনগণ যখন বিক্ষোভ করবে তখন কিন্তু এক মুহূর্তও টিকতে পারবেন না।' শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে মাওলানা আকরাম খাঁ হলে বাংলাদেশ জাতীয় দলের আয়োজনে জিয়াউর রহমানের ৩৮তম শাহাদাৎবার্ষিকী উপলক্ষে 'বহুদলীয় গণতন্ত্র ও বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদ' শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।
ড.মোশাররফ বলেন, 'কৃষকদের প্রতি ভোটারবিহীন অবৈধ সরকারের কোনও দয়ামায়া নেই। আওয়ামী লীগের ভুল পলিসির কারণে কৃষকরা তাদের মাঠের পাকা ধান পুড়িয়ে দিয়েছে। গণতন্ত্র বন্দি থাকায় আজকে সব জায়গায় এতো অনিয়ম। এই বন্দি গণতন্ত্রকে আগে মুক্ত করতে হবে। তার আগে গণতন্ত্রের মাতা বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। বেগম জিয়াকে মুক্ত করে তার নেতৃত্বে এদেশে আবারও গণতন্ত্র ফিরিয়ে সুপ্রতিষ্ঠিত করতে হবে। এজন্য জনগণের মধ্যে ইস্পাত কঠিন গণঐক্য তৈরি করতে হবে।'
তিনি আরও বলেন, 'জিয়াউর রহমানের নাম অনেক জায়গা থেকে মুছে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তাকে মানুষের মন থেকে মুছে দেওয়া সম্ভব হয়নি। কারণ এদেশের মানুষ এখনও সংঘবদ্ধ। এটা বুঝতে পেরেই একাদশ সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী গুন্ডাবাহিনী লেলিয়ে দিয়ে রাতের অন্ধকারে ভোট ডাকাতি করেছে। এটাইতো প্রমাণ করে শহীদ জিয়ার দল বিএনপি মানুষের কাছে কতটা জনপ্রিয়। আর সেই জনপ্রিয়তাকে ভয় পেয়েই বেগম জিয়াকে কারাগারে রেখে নির্বাচন করেছে আওয়ামী লীগ সরকার।'
খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে তিনি বলেন, 'আইনি লড়াইয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তি হবে না। যার প্রমাণ প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন। সম্প্রতি লন্ডনে প্রধানমন্ত্রী উনার বক্তব্যে বলেছেন, তারেককে লাফালাফি করতে নিষেধ না করলে তার মা কোনও দিন কারাগার থেকে মুক্তি পাবে না। এতেই বোঝা যায়, দেশের আইন-আদালতও এখন সরকারের কাছে জিম্মি। মনে যেন, প্রধানমন্ত্রী যেদিন চাইবেন সেই দিনই খালেদা জিয়া মুক্তি পাবেন।'
সংগঠনের চেয়ারম্যান অ্যাড. সৈয়দ এহসানুল হুদার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. এমাজউদ্দিন আহমদ, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ ইব্রাহিম বীর প্রতীক, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন ও নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমতুল্লাহ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

এই বিভাগের আরও খবর

  ষড়যন্ত্র-প্রতিকূল অবস্থা পেরিয়ে জাপা শক্তিশালী অবস্থানে-জিএম কাদের

  আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

  জাতীয় সম্মেলনের প্রস্তুতি নিচ্ছে বিএনপি-ফখরুল

  বেগম জিয়ার মুক্তির পথে বাধা তাদের বক্তব্যেই প্রমাণ-আমির খসরু

  জিয়া কখনই নিজেকে স্বাধীনতার ঘোষক দাবি করেননি-তথ্যমন্ত্রী

  বর্তমান নির্বাচন কমিশন কোমর ভাঙ্গা কমিশন-মির্জা ফখরুল

  আন্দোলন নয়, খালেদার মুক্তির জন্য আইনি পথে থাকুন-ড. হাছান মাহমুদ

  খালেদা জিয়ার কারামুক্তিতে সামনে দুই মামলার বাধা!

  খালেদা জিয়াকে আদালত জামিন দিলে সরকার হস্তক্ষেপ করবে না-কাদের

  ডিজিটাল বাংলাদেশের নামে ডিজিটাল দুর্বৃত্তপনার শেষ নেই-রিজভী

  সরকার একদিকে বাজেট দিচ্ছে, অন্যদিকে লুট করছে-আমীর খসরু

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপির সমালোচনার জবাবে দুই মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন হওয়ার বিষয়টি তুলে ধরে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এতে প্রমাণিত হয়েছে যে দেশে বিচার বিভাগ স্বাধীন। আপনি কি তার যুক্তিতে সন্তুষ্ট?