মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ,২০১৭

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৭, ০৮:১৩:৪৪

সহায়ক সরকারের অধীনে আওয়ামী লীগ বিজয়ী হলেও গ্রহণ করব-নজরুল ইসলাম খান

সহায়ক সরকারের অধীনে আওয়ামী লীগ বিজয়ী হলেও গ্রহণ করব-নজরুল ইসলাম খান

ডেস্ক রিপোর্টঃ-বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, বিএনপির সমাবেশে সরকার সকল ধরনের যানবাহন বন্ধ করে দিয়ে সরকার নিজেরাই আক্রোশের পরিচয় দিয়েছে। তবুও জনগণ পায়ে হেঁটে জনসভায় অংশগ্রহণ করেছেন। এটা ঐতিহাসিক জনসভা হয়েছে।
তিনি বলেন, নিরপেক্ষ সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন, সেই নির্বাচনে যদি আওয়ামী লীগও বিজয়ী হয়, আমরা তাদের গ্রহণ করব। কিন্তু তারা জানে তাদের কোনো সম্ভাবনা নেই। এ জন্য তারা দলীয় সরকারের অধীনেই নির্বাচন করতে চায়। কিন্তু বিএনপি চায় আলোচনার মাধ্যমে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন।
সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে জাতীয়তাবাদী প্রজন্ম ৭১ আয়োজিত ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস, জিয়াউর রহমানের ভূমিকা’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
সংগঠনের সভাপতি আমিনুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, জাতীয় পার্টি (জাফর) প্রেসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবিব লিঙ্কন, বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. আব্দুস সালাম আজাদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার প্রমুখ।
নজরুল ইসলাম খান বলেন, আমরা দেখলাম, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন শেখ হাসিনার ওপর নাকি খালেদা জিয়ার অন্ধ আক্রোশ। রাজনৈতিক বক্তব্যকে রাজনৈতিকভাবে নিতে হয়। শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে খালেদা জিয়া ব্যক্তিগত কোনো অভিযোগ করেননি। খালেদা জিয়া বলেছেন, শেখ হাসিনা বা তাঁর সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনে বাংলাদেশের জনগণ যাবে না। এটা রাজনৈতিক বক্তব্য, এখানে আক্রোশের কোনো ব্যাপার নেই। খালেদা জিয়া দু’টি চ্যালেঞ্জ করেছেন- কোনো বাধা না দিয়ে আপনারাও জনসভা করেন, দেখেন কোন জনসভায় বেশি মানুষ আসে।
অভিযোগ করে নজরুল ইসলাম খান বলেন, বিএনপির জনসভাকে ব্যর্থ করার জন্য সড়ক পরিবহন, নৌপরিবহন বাধাগ্রস্ত করা হয়েছে। ঢাকার আশপাশের কোনো জেলা থেকে কোনো বাস আসতে দেওয়া হয়নি। তারপরেও সরকারের আচরণে ক্ষুব্ধ, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি এবং গুম, খুন, নানা ধরনের নিপীড়নে-নির্যাতনে অতিষ্ঠ জনগণ হেঁটে কষ্ট করে জনসভায় এসেছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

  সরকার সমঝোতায় না এলে রাজপথে আন্দোলন-মওদুদ আহমেদ

  দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত বিএনপির

  রংপুরে সহিংসতা হলে ভোট বন্ধ-সিইসি

  নির্বাচন হতে হলে সংসদকে ভেঙ্গে দিতে হবে-মির্জা ফখরুল

  এদেশে ভোটারবিহীন নির্বাচন আর হবে না-রিজভী

  বিএনপি বিপজ্জনক রাজনৈতিক সংগঠন-তথ্যমন্ত্রী

  মামলায় যত জর্জরিত হচ্ছি, তত মানুষের সহানুভূতি পাচ্ছি-খালেদা জিয়া

  শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে যাবে না ২০ দলীয় জোট

  শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন করতে দেব না-মোশাররফ

  নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি-সিইসি

  যারা বেশি দুর্নীতি করে তারাই বেশি নীতির কথা বলে-সেতুমন্ত্রী

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

পুলিশের আইজিপি এ কে এম শহিদুল হক বলেছেন, ‘দেশকে জঙ্গি, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে হলে পুলিশের পাশাপাশি জনগণকে কাজ করতে হবে।’ আপনিও কি তাই মনে করেন?