বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ,২০১৭

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ৩১ জুলাই, ২০১৭, ০৮:৫৬:২৭

ইসির সঙ্গে সুশীল সমাজের সংলাপ শুরু

 ইসির সঙ্গে সুশীল সমাজের সংলাপ শুরু

ডেস্ক রির্পোটঃ-জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে সুশীল সমাজের সংলাপ শুরু হয়েছে। সোমবার (৩১ জুলাই) সকাল ১১টায় নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এ সংলাপ শুরু হয়।
প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে সংলাপে অংশ নিয়েছেন অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা।
উল্লেখ্য, গত ১৬ জুলাই ইসি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে রোডম্যাপ প্রকাশ করে। এই কর্মপরিকল্পনায় সাতটি বড় বিষয়ের ওপর কার্যক্রম নেওয়ার পরিকল্পনা করে। এর মধ্যে বড় একটি বিষয় ছিল সংলাপ।
সুশীল সমাজের ৫৯ জনের তালিকায় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা, সাবেক সচিব, সাবেক রাষ্ট্রদূত, বিচারপতি, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, আইনজীবী, অর্থনীতিবিদ, বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার প্রতিনিধি, নির্বাচন পর্যবেক্ষক, মিডিয়া ব্যক্তিত্বসহ দেশের বিশিষ্ট নাগরিকরা রয়েছেন। সুশীল সমাজের সঙ্গে সংলাপের পর ইসি ধারাবাহিকভাবে রাজনৈতিক দলসহ অন্যদের সঙ্গে সংলাপ চালিয়ে যাবে।
গত ৬ ফেব্রুয়ারি কে এম নূরুল হুদার নেতৃত্বে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠিত হয়। এই নির্বাচন কমিশনের অধীনেই আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

  বিদ্যুতের দাম প্রতি ইউনিটে বাড়ল ৩৫ পয়সা, ডিসেম্বর থেকে কার্যকর

  রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে সরকার

  সমৃদ্ধির জন্য সশস্ত্র বাহিনীকে জনগণের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

  সশস্ত্র বাহিনীর শহীদদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন

  সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়নে সর্বাত্মক কার্যক্রম চালাচ্ছে সরকার-প্রধানমন্ত্রী

  রোহিঙ্গাদের ওপর নৃশংসতা মানবাধিকারের মৌলিক লঙ্ঘন

  মুক্তিযুদ্ধের প্রতিটি কথা ভাষণের মধ্যে বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু-শেখ হাসিনা

  রোহিঙ্গাদের সহায়তায় আরও ৪৭ মিলিয়ন ডলার দেবে যুক্তরাষ্ট্র

  মিয়ানমারের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ কমিটিতে প্রস্তাব পাস

  সাগরে নিম্নচাপঃ সমুদ্র বন্দরসমূহে ৩নং সতর্কতা সংকেত

  স্বাধীনতাবিরোধীদের বিজয় দিবসে অতিথি করা যাবে না-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

পুলিশের আইজিপি এ কে এম শহিদুল হক বলেছেন, ‘দেশকে জঙ্গি, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে হলে পুলিশের পাশাপাশি জনগণকে কাজ করতে হবে।’ আপনিও কি তাই মনে করেন?