সোমবার, ১৯ আগস্ট ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ১৪ মে, ২০১৯, ০২:১১:৪৪

বসানো হলো ১২টি স্প্যান, দুই কিলোমিটার দৃশ্যমান হতে যাচ্ছে পদ্মা সেতু

বসানো হলো ১২টি স্প্যান, দুই কিলোমিটার দৃশ্যমান হতে যাচ্ছে পদ্মা সেতু

ডেস্ক রিপোর্টঃ-দ্রুতগতিতে এগুচ্ছে পদ্মা সেতু নির্মাণের কাজ। এরইমধ্যে সেতুর ১২টি স্প্যান বসানোর কাজ শেষ হয়েছে। আগামী বৃহস্পতিবার পদ্মার বুকে বসানো হচ্ছে আরও একটি স্প্যান।
এটি হবে পদ্মা সেতুর ১৩তম স্প্যান। এই স্প্যান বসানো হলে সেতুর ১৯৫০ মিটার বা প্রায় ২ কিলোমিটার দৃশ্যমান হবে।
প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ১৫০ ফুট দৈর্ঘ্যের '৩-বি' নম্বরের স্প্যানটি মাওয়া প্রান্তের ১৪ ও ১৫ নম্বর খুঁটির ওপর বসানো হবে। এখন চলছে শেষ সময়ের কর্মযজ্ঞ।
স্প্যানটিকে বর্তমানে মাওয়া প্রান্তের কুমারভোগ কনস্ট্রাকশনের স্টেক ইয়ার্ডে রাখা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে ৩৬০০ টন ওজন ক্ষমতার শক্তিশালী ক্রেনবাহী ভাসমান জাহাজ 'তিয়ান-ই' স্প্যানটিকে খুঁটির কাছে নিয়ে যাবে।
সেতু প্রকল্পের সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবীর জানান, ৪২টি খুঁটির ওপর ৪১টি স্প্যান বসানো হবে। এরপরই মাথা তুলবে ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের স্বপ্নের পদ্মা সেতু।
চলতি মাসের শেষদিকে জাজিরা প্রান্তে আরও একটি স্প্যান (১৪তম) বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে। এর আগে গত ৬ মে মাওয়া ও জাজিরা প্রান্তের মাঝামাঝি স্থানে ২০ ও ২১ নম্বর খুঁটির ওপর বসানো হয়েছে ১২তম স্প্যান।

এই বিভাগের আরও খবর

  ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ১৪৬০ জন

  ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ৫০ হাজার, বাড়ি ফিরেছেন ৮৪ শতাংশ

  জাতীয় শোক দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

  আজ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ৪৪তম শাহাদত বার্ষিকী

  ঈদের ছুটিতে অফিসে লার্ভা নিধন নজরদারিতে রাখার নির্দেশ

  সমুদ্র বন্দরসমূহে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

  যুক্তরাজ্য সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

  ডেঙ্গুর খবর বেশি প্রকাশিত হওয়ায় মানুষ আতংকিত হয়ে পড়ছে-প্রধানমন্ত্রী

  আগস্টে আরো ভয়ংকর রূপ নিয়েছে ডেঙ্গু

  যতদিন বেঁচে আছি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণে কাজ করে যাবো-প্রধানমন্ত্রী

  রাজনৈতিক সদিচ্ছার অভাবে দেশে রাষ্ট্রীয়ভাবে আদিবাসী দিবস পালন করা হয় না-সন্তু লারমা

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?