মঙ্গলবার, ২১ মে ,২০১৯

Bangla Version
SHARE

রবিবার, ২১ এপ্রিল, ২০১৯, ০৭:১৯:২২

সিনিয়র সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ আর নেই

সিনিয়র সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ আর নেই

ডেস্ক রিপোর্টঃ-সিনিয়র সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ আর নেই। ব্যাংককের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর।
রবিবার ব্যাংককের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তিনি হৃদরোগ, কিডনি ও উচ্চ রক্তচাপজনিত বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছিলেন। 
এর আগে ১১ এপ্রিল মাহফুজ উল্লাহকে উন্নত চিকিৎসার জন্য থাইল্যান্ডের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে নেওয়া হয়। গত ২ এপ্রিল সকালে ধানমন্ডির গ্রীন রোডে মাহফুজ উল্লাহ তার নিজ বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হলে তাকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়।
পরে শারীরিক অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় মাহফুজ উল্লাহকে উন্নত চিকিৎসার জন্য থাইল্যান্ডের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
তিনি হৃদরোগ, কিডনি ও উচ্চ রক্তচাপজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন। সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ দেশের একজন প্রথিতযশা সাংবাদিক। ছাত্রজীবনে বাম রাজনীতি করা মাহফুজ উল্লাহ ষাটের দশকে ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি ছিলেন।
তিনি সাংবাদিকতা ছাড়াও খন্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেছেন। বর্তমানে তিনি ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগে শিক্ষকতায় নিয়োজিত ছিলেন।
১৯৫০ সালের ১০ মার্চ নোয়াখালীতে জন্ম গ্রহণ করেন মাহফুজ উল্লাহ।

এই বিভাগের আরও খবর

  সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বাংলাদেশ বিশ্বে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে-প্রধানমন্ত্রী

  মন্ত্রিপরিষদে পুনর্বিন্যাস করা হয়েছে-শফিউল আলম

  রোহিঙ্গাদের নিয়ে বিপজ্জনক পরিস্থিতি, ছড়িয়ে পড়ছে সারাদেশে

  রবিবার থেকে অফিস করবেন ওবায়দুল কাদের

  এত বড় দায়িত্ব নিতে হবে তা ভাবিনি, চাইওনি-প্রধানমন্ত্রী

  আজ শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস

  নতুন উদ্যমে কাজ করবেন ওবায়দুল কাদের, দেশবাসীকে কৃতজ্ঞতা

  সংবাদপত্র কর্মচারী ও প্রেস শ্রমিকরা গণমাধ্যমের গুরুত্বপূর্ণ অংশ-তথ্যমন্ত্রী

  ওবায়দুল কাদের ফিরছেন

  বৌদ্ধ পূর্ণিমায় নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা নেই-আইজিপি

  বসানো হলো ১২টি স্প্যান, দুই কিলোমিটার দৃশ্যমান হতে যাচ্ছে পদ্মা সেতু

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ভোটের পর থেকে সংসদে না যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে আসা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দলের নির্বাচিতদের শপথ নেওয়ায় সম্মতি দিয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সঠিক কাজটিই করেছেন। আপনি কি তার সঙ্গে একমত?