সোমবার, ১৯ আগস্ট ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল, ২০১৯, ০৮:০২:০১

সংসদে ‘মুজিব বর্ষ’ উদযাপনের সিদ্ধান্ত

সংসদে ‘মুজিব বর্ষ’ উদযাপনের সিদ্ধান্ত

ডেস্ক রিপোর্টঃ-জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে সরকারি ও বেসরকারিভাবে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বছরব্যাপী ‘মুজিব বর্ষ’ উদযাপনের আয়োজন চলছে দেশ জুড়ে। তারই অংশ হিসেবে জাতীয় সংসদ সচিবালয়ও ‘মুজিব বর্ষ’ উদযাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ১৭ মার্চ পর্যন্ত সময়কে ‘মুজিব বর্ষ’ হিসেবে পালনের ঘোষণা দিয়েছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা, আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মুজিব বর্ষ উদযাপন উপলক্ষে আগামী ২৩ এপ্রিল ১১টায় সংসদ সচিবালয়ের কেবিনেট কক্ষে এক আলোচনা ও মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়েছে।
সভায় সভাপতিত্ব করবেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। সভায় জাতীয় কর্মসূচির সাথে সমন্বয় করে সংসদের কর্মসূচি নির্ধারণের জন্য  এ সভা অনুষ্ঠিত হবে বলে স্পিকারের দফতর সূত্রে জানা গেছে। সভায় একাদশ সংসদের সংসদীয় কমিটির সকল সভাপতি ও বিভিন্ন দফতরের প্রধানদের সভায় উপস্থিত থাকার জন্য এরমধ্যে চিঠি ইস্যু হয়েছে।
যথাযোগ্য মর্যাদায় চলতি বছর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ১৪৬০ জন

  ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ৫০ হাজার, বাড়ি ফিরেছেন ৮৪ শতাংশ

  জাতীয় শোক দিবসে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

  আজ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ৪৪তম শাহাদত বার্ষিকী

  ঈদের ছুটিতে অফিসে লার্ভা নিধন নজরদারিতে রাখার নির্দেশ

  সমুদ্র বন্দরসমূহে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

  যুক্তরাজ্য সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

  ডেঙ্গুর খবর বেশি প্রকাশিত হওয়ায় মানুষ আতংকিত হয়ে পড়ছে-প্রধানমন্ত্রী

  আগস্টে আরো ভয়ংকর রূপ নিয়েছে ডেঙ্গু

  যতদিন বেঁচে আছি বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণে কাজ করে যাবো-প্রধানমন্ত্রী

  রাজনৈতিক সদিচ্ছার অভাবে দেশে রাষ্ট্রীয়ভাবে আদিবাসী দিবস পালন করা হয় না-সন্তু লারমা

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?