বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারী ,২০১৯

Bangla Version
SHARE

মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৮, ০২:৪১:০২

নির্বাচনকে সামনে রেখে পাইকারি গুপ্তহত্যা শুরু হয়েছে-রিজভী

নির্বাচনকে সামনে রেখে পাইকারি গুপ্তহত্যা শুরু হয়েছে-রিজভী

ডেস্ক রিপোর্টঃ-রবিবার নারায়ণগঞ্জে সড়কের পাশে চার যুবক ও উত্তরায় দিয়াবাড়িতে কাশবনে দুই যুবকের লাশ উদ্ধারকে গুপ্ত হত্যা হিসেবে উল্লেখ করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে তরুণ-যুবক সমাজকে ভয় পাইয়ে দিতে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় দেশব্যাপী পাইকারি গুপ্তহত্যা শুরু হয়েছে। আর এ ক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দেয়া হয়েছে ইনডেমনিটি। কারণ একটাই, একতরফাভাবে নির্বাচন করতে তরুণ-যুবকদের কোনো যেন প্রতিরোধ না হয়। সরকার যাদের ক্ষমতার প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করবে তাদেরই লাশ ধানক্ষেত, খাল বিলে পড়ে থাকবে।
সোমবার (২২ অক্টোবর) সকালে বিএনপির নয়াপল্টনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে রিজভী বলেন, আমি পরিষ্কার বলতে চাই- যুবসমাজ, তরুণ সমাজ, ছাত্রসমাজ, কৃষক, শ্রমিক, মেহনতি জনতা আপনার দুঃশাসনের যাতাকলে পিষ্ট। তারা আপনাদের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। তাই মানুষ হত্যা করে, গ্রেপ্তার নির্যাতন করে আর রেহাই পাওয়া যাবে না। চারিদিকে এখন শুধু সরকার পতনের আওয়াজ।
রিজভী বলেন, তরুণ প্রজন্মকে দেশের সবচেয়ে বড় শক্তি আখ্যায়িত করে, তাঁদের কর্মসংস্থানে সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় আগামী নির্বাচনে তাঁদের ভোট চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এ কথা বলে কি তরুণদের উপহাস করছেন?  দুঃশাসনের বিরুদ্ধে তারুণ্যের দ্রোহাগ্নির তাপ যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য নিষ্ঠুরভাবে তরণদের দমন করেছেন যিনি তিনি এখন তরুণদের হিতাকাঙ্ক্ষি হওয়ার কথা বলছেন। বেকারত্বের অভিশাপে দেশের তরুণ সমাজ আজ হতাশ ও বিপন্ন। গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী দেশে বর্তমানে প্রায় ৫ কোটি শিক্ষিত ও কর্মক্ষম বেকার। দেশে কোন কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পারেনি সরকার বরং কল-কারখানা প্রতিদিনই বন্ধ হচ্ছে, গার্মেন্টস শিল্পকে পরিকল্পিতভাবে ধ্বংস করা হচ্ছে, এ সেক্টর এখন বাংলাদেশিদের হাত ছাড়া হয়ে গেছে, গ্যাস-বিদ্যুতের অভাবতো রয়েছে তার ওপর বর্তমান দুঃশাসনের কারণে বিদেশি বিনিয়োগ নাই, ব্যাংকগুলো হরিলুট করে ফতুর করে দেয়ায় ব্যবসায়ীরা মুখ থুবড়ে পড়ে বসে আছেন। সরকারি চাকুরিতে দলীয়করণের কারণে উচ্চ শিক্ষিত বেকার বেড়েছে। কিছুদিন আগেই আপনারা দেখেছেন কোটা আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে নামা স্কুল, কলেজের কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদের উপর সরকারি বাহিনী কি তান্ডব চালিয়েছিল। এখনও কারাগারে আছে বেশ কিছু শিক্ষার্থী, যারা জামিনে বের হয়েছেন তারা সর্বক্ষণ আতঙ্কে থাকে, যে সব শিক্ষার্থীদের ছাত্রলীগ সশস্ত্র হামলা চালিয়েছিল, পুলিশ গুলি চালিয়েছিল তাদের অনেকেই আজও সুস্থ হয়ে উঠতে পারেনি, অনেকেই পঙ্গুত্ব বরণ করেছে।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়েরসহ শিক্ষার্থীদের উপর ছাত্রলীগের হাতুড়ি ও রডের আক্রমণের কারণে অনেক শিক্ষার্থীকে ক্র্যাচে ওপর ভর করে পরীক্ষা দিতে যেতে হচ্ছে। সব ধরনের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস এখন নিত্যনৈমত্তিক ঘটনা। শিক্ষামন্ত্রী সহনীয় দুর্নীতির উপদেশ দিচ্ছেন।
তিনি বলেন, বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীকে উচ্চতর আদালত ও নিন্ম আদালতে জামিনে থাকার পরও রবিবার চট্টগ্রামে হাজিরা দিতে গেলে তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগে আইসিটি আইনে মামলা করা হয়েছে তাকে হয়রানী করার জন্য। শেখ হাসিনা বিএনপি নেতাকর্মীদের কারাগারে আটকে রাখতে চাচ্ছে শুধুমাত্র তাঁর গদি রক্ষার জন্য।
সোমবার সকালে নয়াপল্টন অফিসের সামনে থেকে মৎস্যজীবী দলের সভাপতি রফিকুল ইসলাম মাহতাবকে আটক করা হয়েছে বলেও জানান রিজভী।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নাল আবদীন, অধ্যাপক ড. সাহেদা রফিক প্রমুখ।

এই বিভাগের আরও খবর

  দেশে ধনী-গরীবের বৈষম্যে রেকর্ড

  পদ্মা সেতুর জাজিরা প্রান্তে বসলো ষষ্ঠ স্প্যান

  প্রকল্পে গতি আনতে নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক

  চালু হচ্ছে আইএমইআই ডাটাবেজঃ অবৈধ মোবাইলের দিন শেষ!

  সর্বোচ্চ সততা ও আন্তরিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

  জনগণের বিশ্বাস ও আস্থার মর্যাদা দেব-প্রধানমন্ত্রী

  স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে গিয়ে যেসব নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

  অতীতের সরকারগুলোর মদদে দেশ জঙ্গিবাদের কবলে পড়েছিল-প্রধানমন্ত্রী

  নির্বাচনী অঙ্গীকার অক্ষরে অক্ষরে পালন করবে আওয়ামী লীগ-প্রধানমন্ত্রী

  ভারত থেকে ১৩০০ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বৈষম্য কমাতে নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য পেনশন ব্যবস্থা চালুর পরামর্শ দিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর আতিউর রহমান। এটা করা হলে বৈষম্য কমবে বলে মনে করেন?