বুধবার, ১৫ আগস্ট ,২০১৮

Bangla Version
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১৮ জানুয়ারী, ২০১৮, ০৯:০০:৫৭

দেশে ফিরে রোহিঙ্গাদের সেনা আশ্রয়েই থাকতে হবে

দেশে ফিরে রোহিঙ্গাদের সেনা আশ্রয়েই থাকতে হবে

ডেস্ক রিপোর্টঃ-বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে সম্প্রতি একটি চুক্তি করেছে মিয়ানমার, যাতে সপ্তাহে ১৫০০ জন রোহিঙ্গাকে ফেরত নেবে দেশটি।
সাম্প্রতিক নিবন্ধন বলছে, বাংলাদেশে নতুন পুরনো মিলিয়ে দশ লাখ রোহিঙ্গা বাস করছে।
তবে একদিকে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের কথা বলা হলেও, এখনো মিয়ানমারে সহিংসতার খবর পাওয়া যাচ্ছে। এখন রোহিঙ্গাদের ফিরে যাওয়া কি কোন ঝুঁকি তৈরি করতে পারে?
জবাবে একটি বেসরকারি সংস্থার প্রধান মেঘনা গুহঠাকুরতা বলছেন চুক্তি অনুযায়ী স্বেচ্ছায় প্রত্যাবর্তনের কথা বলা হয়েছে কিন্তু যারা যাবে তাদের তো সেখানে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর আশ্রয়েই থাকতে হবে।
কক্সবাজারের রোহিঙ্গাদের নিয়ে গবেষণা করছেন মেঘনা গুহঠাকুরতা, যিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক।
তিনি বলেন, "ধরুন হিন্দু রোহিঙ্গারা বলছেন সরকার চাইলে তারা ফেরত যাবেন।  অনেক সরাসরি নির্যাতিত হয়নি কিন্তু অন্যরা পালিয়ে এসেছে বলে তারাও এসেছে।  এখন ফেরত নিলেও তাদের বাড়িঘর পুড়ে গেছে।  তাদের জন্য শেড করা হয়েছে। যখন তখন আবার ঘটনা ঘটতে পারে"।
মিয়ানমারের প্রতিশ্রুতিগুলোর ওপর কি আস্থা রাখা যায়? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, "অবশ্যই না।  যতক্ষণ তারা নাগরিকত্ব না পায় আর আন্তর্জাতিক সংস্থার তদারকি ছাড়া তারা যাবেনা এটাই তারা (রোহিঙ্গা) বলছে"।
কিন্তু রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে থাকার পেছনে যেসব বেসরকারি দেশী ও আন্তর্জাতিক সংস্থারও স্বার্থ আছে- এ অভিযোগের সত্যতা কতটুকু?
তিনি বলেন, "এখন যে পরিস্থিতি সেটি সরকার মোকাবেলা করতে পারবেনা। তাই আন্তর্জাতিক সংস্থার থাকা প্রয়োজন। আর আন্তর্জাতিক সংস্থা তারা চায় শরণার্থীদের যেনো পুশব্যাক না করা হয়।  এটি সত্যি যে এখানে লাভবান হওয়ার মতো অনেক পক্ষ আছে।  কিন্তু দেখতে হবে রোহিঙ্গাদের যে চাহিদা গুলো সেগুলো সঠিকভাবে ম্যানেজ করা হচ্ছে কি-না"। 

এই বিভাগের আরও খবর

  বঙ্গবন্ধুর ৪৩তম শাহাদত বার্ষিকী কাল

  ৩ হাজার ৮৮ কোটি টাকা ব্যয়ে একনেকে ৯ প্রকল্প অনুমোদন

  সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার আর নেই

  বিশ্বব্যাংক মাধ্যমিক শিক্ষার উন্নয়নে ৫২০ মিলিয়ন ডলার দেবে

  সরকারি হলো ২৭১ কলেজঃ তিন পার্বত্য জেলায় ১৩টি

  প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি নেতার সাক্ষাৎ

  সীমান্তের শূন্য রেখায় বাংলাদেশি সহায়তা বন্ধের অনুরোধ মিয়ানমারের

  ট্রাফিক সপ্তাহ আরও ৩ দিন বাড়ল

  জলবিদ্যুতের ব্যাপারে নেপালের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই

  ‘আদিবাসী’ মানুষ সম্মান ও মর্যাদা নিয়ে বাঁচতে চায়-সন্তু লারমা

  গণতন্ত্র সুসংহতকরণে কাজ করে যাচ্ছে সরকার-প্রধানমন্ত্রী

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে কাজ হচ্ছে, এখানে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। বাস্তবে তা ঘটবে বলে মনে করেন?