রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ০৮ অক্টোবর, ২০১৭, ০৯:২৫:৪৯

রাষ্ট্রপতির ক্ষমতা অক্ষুন্ন রেখে বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধি-অ্যাটর্নি জেনারেল

রাষ্ট্রপতির ক্ষমতা অক্ষুন্ন রেখে বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধি-অ্যাটর্নি জেনারেল

ডেস্ক রিপোর্টঃ-রাষ্ট্রপতির ক্ষমতা অক্ষুণ্ন রেখে নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাবিধি হবে বলে জানিয়েছে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।
নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাবিধি গেজেট আকারে প্রকাশে সময় বাড়ানোর পর রবিবার (৮ অক্টোবর) নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের তিনি একথা জানান।
এর আগে, বিধিমালার গেজেট প্রকাশে রাষ্ট্রপক্ষের সময় আবেদনের প্রেক্ষিতে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞার নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির আপিল বেঞ্চ ৫ নভেম্বর পর্যন্ত সময় দেন।
পরে মাহবুবে আলম সাংবাদিকদের বলেন, আদালত বলেছেন, তারা অতি শিগগিরই এর সুরাহা চান। আমিও বলেছি হ্যাঁ, সরকারও এ ব্যপারে আন্তরিক। সংবিধানের আলোকে রাষ্ট্রপতির ক্ষমতা অক্ষুণ্ন রেখে এই শৃঙ্খলাবিধি তৈরির ব্যাপারে সরকার যা যা দরকার সবই করবে।
অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, আদালত বলেছেন- এটার নিষ্পত্তি চান। আমরাও একমত হয়েছি। হ্যাঁ, আমরাও নিষ্পত্তি চাই। তবে শৃঙ্খলাবিধি হবে, তবে সংবিধানের যে বিধিবিধান আছে সেটাকে অক্ষুণ্ন রেখে এবং এই ব্যাপারে সংবিধানে রাষ্ট্রপতির যে ক্ষমতা দেওয়া আছে, সে ক্ষমতাকে অক্ষুণ্ন রেখে বিধিবিধান তৈরি করতে হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

  কোনো ধরনের ত্রুটি থাকলে ইভিএম ব্যবহার করা হবে না-কে এম নূরুল হুদা

  রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বৈশ্বিক সমর্থন আদায়ের চেষ্টা করবে বাংলাদেশ

  নিউইয়র্কের পথে প্রধানমন্ত্রীঃ রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে জাতিসংঘে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব দেবেন

  রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যের উন্নয়নে বিশ্বব্যাংকের ৫ কোটি ডলার সহায়তা

  সমুদ্র বন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

  কারো মান অভিমান ভাঙাতে আমি যেতে চাই না-প্রধানমন্ত্রী

  প্রতিবন্ধী ও ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীকে মূলস্রোতধারায় আনতে হবে-রাশেদ খান মেনন

  বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী পাইপলাইন নির্মাণের উদ্বোধন

  ৫২৮ কোটি টাকায় চার লেন হচ্ছে চট্টগ্রাম-রাঙ্গামাটি সড়ক

  তিন ধাপে কেনা হবে দেড় লাখ ইভিএম

  ভারতকে চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহারের অনুমোদন মন্ত্রিসভায়

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

তত্ত্বাবধায়ক সরকার আমলে চালু হওয়া ‘না’ ভোট একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ সংশোধনের উদ্যোগের মধ্যে পুনঃপ্রবর্তনের প্রস্তাব করেছে নাগরিক সংগঠন সুজন। আপনি কি তা সমর্থন করেন?