Zoom In Zoom Out No icon

খাগড়াছড়িতে আ’লীগ একাশং ও বিএনপি’র মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় পুলিশসহ আহত ১০, আটক-৪

শনিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, ০৮:১৩:২১
খাগড়াছড়িতে আ’লীগ একাশং ও বিএনপি’র মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় পুলিশসহ আহত ১০, আটক-৪

লিটন ভট্টাচার্য্য, রানা খাগড়াছড়িঃ-খাগড়াছড়িতে আওয়ামীলীগের একাংশ ও বিএনপি’র নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় পুলিশসহ ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে জেলা বিএনপি’র সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এম এন আবছারের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে। ধাওয়া পাল্টা ধাওয়াকালে  জেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মিল্লাতসহ ৪জনকে আটক করেছে পুলিশ। সংঘর্ষ চলাকালীন সময়ে  মূহুর্তের মধ্যেই শাপলা চত্বরসহ আশপাশের সব সড়কে দোকানপাট ও যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।
খাগড়াছড়ি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মো: আবদুল হান্নান জানান, জেলা বিএনপির সভাপতি ওয়াদুদ ভূঁইয়ার নেতৃত্বে স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে আসার সময় নারিকেল বাগানস্থ আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের সামনে এসে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে উভয় দলের নেতাকর্মীরা। এসময় তারা ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ইট- পাটকেল নিক্ষেপ করলে উভয় পক্ষের ২৫ নেতা-কর্মী আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন আনতে পুলিশ ১০ রাউন্ড রাবার বুলেট ছুঁড়ে। এসময় ৪ বিএনপি নেতাকর্মীকে আটক করা হয়।
সংঘর্ষের জন্য উভয়পক্ষ পাল্টাপাল্টি অভিযোগ তুলছে। সংঘর্ষে পুলিশের এএসআই রাসেল, কনস্টেবল মাসুদ, জেলা বিএনপি’র সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এম এন আবছার, বিএনপি নেতা মোমিন আলী, রবিউল, দেলোয়ার, নাছির তালুকদার ও খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি আনিসুল আলম আহত হয়েছে। অপরদিকে আওয়ামীলীগের ৬ নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলে দাবী করেছেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল আলম। তিনি জানান, জেলা বিএনপি’র বিজয় দিবসের র‌্যালী থেকে বিনা উস্কানিতে আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ৬ নেতাকর্মীকে আহত করেছে। অপরদিকে পাল্টা অভিযোগ তুলে জেলা বিএনপি সভাপতি ও সাবেক সাংসদ ওয়াদুদ ভূইয়া জানান, আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল আলম সমর্থিতরা তাদের কার্যালয় থেকে বিএনপি’র শান্তিপূর্ণ র‌্যালীতে হামলা চালিয়ে ৮ নেতাকর্মীকে আহত করে। কিন্তু পুলিশ নীরব ভূমিকা পালন করে উল্টো লাঠিচার্জ ও আটক করে নিয়ে যায়। আটক নেতাকর্মীদের উপর হামলার নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে তাদের মুক্তির দাবী জানান তিনি।
খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা: নয়নময় ত্রিপুরা জানান, সংঘর্ষের ঘটনায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীনদের মধ্যে এম এন আবছার এর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেলে প্রেরণের করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, বিগত পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী বাছাইকে কেন্দ্র করে দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগ। জেলা আওয়ামীলীগের মূল অংশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা আর অন্য অংশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো: জাহেদুল আলম। বিএনপির নেতাকর্মীদের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়েছে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বাধীন অংশ।

এই রকম আরো খবর

সর্বশেষ সংবাদ










Archive
Prev
Year Month
Next

Mon
Tue
Wed
Thu
Fri
Sat
Sun
প্রশ্ন : বিএনপিসহ সব দল চলমান রাষ্ট্রপতির সংলাপের মধ‌্য দিয়ে গঠিতব‌্য নির্বাচন কমিশনের অধীনে জাতীয় নির্বাচনে আসবে বলে আশা করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তা হবে বলে আপনি মনে করেন?
হ্যাঁ
না
কোন মন্তব্য নাই