সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২১, ০৬:০৪:৫৬

খাগড়াছড়িতে ব্যবসায়ী নিখোঁজ, ৪ দিনেও মেলেনি সন্ধান

খাগড়াছড়িতে ব্যবসায়ী নিখোঁজ, ৪ দিনেও মেলেনি সন্ধান

খাগড়াছড়ি:- খাগড়াছড়ির গুইমারায় ব্যবসায়িক কাজে বের হওয়ার চার দিন পরেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ব্যবসায়ীর। পরিবারের দাবি, অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা তাকে অপহরণ করে মুক্তিপণ হিসেবে ৫০ হাজার টাকা দাবি করেছে। নিখোঁজ ব্যবসায়ীর নাম মো. শানু মিয়া। তিনি খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার জালিয়াপাড়া এলাকার বাসিন্দা। পেশায় ভাঙড়ি ব্যবসায়ী শানু গুইমারা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক। শানু মিয়ার স্ত্রী মোমেনা বেগম জানান, বুধবার সকালে ভাঙাড়ি সামগ্রী কেনার জন্য বেরিয়ে যান শানু মিয়া। রাতে একাধিকবার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলেও খোঁজ মেলেনি তার। আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িসহ বিভিন্ন জায়গায় খোঁজা হয়েছে। পরে গত ১৫ অক্টোবর গুইমারা থানায় একটা সাধারণ ডায়েরি দায়ের করা হয়েছে। একটা অজ্ঞাত নম্বর থেকে পরিবারকে ফোন করে ৫০ হাজার টাকা চাওয়া হয়েছিল। এরপর আর কোনও যোগাযোগ হয়নি। খাগড়াছড়ির গুইমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান জানান, বুধবার (১৩ অক্টোবর) থেকে তিনি নিখোঁজ রয়েছেন। শানু মিয়াকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

এই বিভাগের আরও খবর

  খাগড়াছড়ির দীঘিনালা ও মহালছড়ির ৭ইউপি নির্বাচনে বিজয়ী যারা

  পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ খাগড়াছড়ির ১৫ সদস্যের নতুন কমিটি গঠন,নেতৃত্বে নরেশ-শান্ত

  খাগড়াছড়ির রামগড়ে প্রশ্নপত্র ফাঁস,বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল

  খাগড়াছড়িতে মাহমুদা বেগম লাকী নৌকা প্রতীকের একমাত্র নারী প্রার্থী

  খাগড়াছড়ির ৩উপজেলার ৮ইউপিতে নৌকার মাঝি যারা

  খাগড়াছড়ি সাংবাদিক ফোরাম পুনর্গঠিত: সভাপতি-ইব্রাহিম, সেক্রেটারী-আব্দুল্লাহ আল মামুন

  খাগড়াছড়ির রামগড়ে অবৈধ ভাটায় পুড়ছে বনের গাছ

  খাগড়াছড়ির বাজারে আদার ঝাঁজ নেই

  খাগড়াছড়ির গুইমারায় প্রায় ১৮ লাখ টাকার অবৈধ ভারতীয় ওষুধ উদ্ধার

  খাগড়াছড়ির রামগড়ে আমনের ভালো ফলন

  খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী,সদস্য প্রার্থীর ভরসা ভোটার

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেছেন, পুলিশের ওপর নির্বাচন কমিশনের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?