বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ,২০১৯

Bangla Version
  
SHARE

রবিবার, ০৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ০৮:০৩:০৩

ফুলে ফুলে সমাহিত হলেন একুশে পদক প্রাপ্ত মহালছড়ির মংছেনচীং মংছিন

ফুলে ফুলে সমাহিত হলেন একুশে পদক প্রাপ্ত মহালছড়ির মংছেনচীং মংছিন

খাগড়াছড়িঃ-ফুলে ফুলে সামহিত হলেন খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়ি’র একুশে পদকপ্রাপ্ত গবেষক ও সাহিত্যিক মংছেনচীং মংছিন। রোববার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকেল তিনটার সময় তাঁকে পারিবারিক শ্মশানে সমাহিত করা হয়। এ সময় তাঁর পরিবারের লোকজনসহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন গুণগ্রাহীরা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে সকালে প্রয়াতের মরদেহে ফুলেল শ্রদ্ধা জানান, সাবেক এমপি যতীন্দ্র লাল ত্রিপুরা, সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা’র পক্ষে পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য জুয়েল চাকমা, খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের পক্ষে মহালছড়ি জোন অধিনায়ক লে: কর্ণেল মেহেদী, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীর পক্ষে পরিষদের জন সংযোগ কর্মকর্তা চিংহ্লামং চৌধুরী, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠির সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট-এর উপ-পরিচালক জিতেন চাকমা, দৈনিক গিরিদর্পণ-এর পক্ষে সাংবাদিক প্রদীপ চৌধুরী ও সমির মল্লিকসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।  
মংছেনচীং মংছিন কক্সবাজার জেলায় রাখাইন পাড়ায় ১৯৬১ সালে জন্মগ্রহন করেন। মৃত্যুকালে সময় তাঁর বয়স ৫৮ বছর।
তিনি ২০১৬ সালে সাহিত্যে নিয়ে গবেষণা ও বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য একুশে পদক লাভ করেন। পার্বত্যাঞ্চলের একমাত্র একুশে পদক প্রাপ্ত ব্যক্তি ছিলেন তিনি। এছাড়া ও তিনি বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য অসংখ্য পুরষ্কার পান।
তার স্ত্রী বেগম রোকেয়া পদক পাওয়া শোভা রানী ত্রিপুরা ও তার কন্যা প্রিয়াংকা পুতুল বলেন, তাঁর এখনো অসংখ্য পান্ডু লিপি আছে। সে গুলো যদি সরকার প্রকাশের ব্যবস্থা করে দেন তাহলে মংছেনছীনের আত্মার শান্তি পাবে বলে তারা মনে করেন।
উল্লেখ্য, বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে দীর্ঘদিন চিকিৎসার পর ৭ সেপ্টেম্বর শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাঙ্গামাটির তবলছড়ির নিজ মেয়ের ভাড়া বাসায় সকাল ১১টায় তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুরপর তাকে মহালছড়ি নিজ বাড়ীতে আনা হয়। তিনি ফুসফুসের রোগসহ বিভিন্ন দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত ছিলেন।
মৃত্যুর সময় তিনি স্ত্রী ও দুই কন্যা সহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন ও শুভাকাঙ্খী রেখে গেছেন। তাঁর স্ত্রী শোভা রাণী ত্রিপুরাও একাধারে শিক্ষিকা ও সাহিত্যে অবদানের জন্য ২০১৭ সালে বেগম রোকেয়া পুরষ্কার প্রাপ্ত হন। তার মৃত্যুতে খাগড়াছড়ির সাংসদ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, সাবেক এমপি যতীন্দ্র লাল ত্রিপুরা, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, জেলা প্রশাসক প্রতাব চন্দ্র বিশ্বাসসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন শোক প্রকাশ করেছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

  সুশিক্ষিত ভবিষ্যৎ প্রজম্ম আগামীতে এদেশের নেতৃত্বের হাল ধরবে-কংজরী চৌধুরী

  মাদকের প্রভাব বিস্তার রোধে প্রয়োজন সামাজিক আন্দোলন ও জনসচেতনতা

  প্রায় চার বছর পর সম্মেলনের পথে খাগড়াছড়ি জেলা ছাত্রলীগ

  জীবিত এরশাদের চেয়ে মৃত এরশাদ অনেক শক্তিশালী-সোলায়মান আলম শেঠ

  জিপিএ ৫-নয় সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে-কংজরী চৌধুরী

  খাগাড়ছড়ির মানিকছড়িতে সেফটি টাংকির স্লাব ভেঙ্গে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু

  খাগড়াছড়িতে ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে মধুপূর্ণিমা উদযাপিত

  পার্বত্য অধিকার ফোরামের প্রতিষ্ঠাকালিন গঠনতন্ত্র প্রকাশ ও কেন্দ্রীয় কার্যালয় উদ্বোধন উপলক্ষে খাগড়াছড়িতে সংবাদ সম্মেলন

  দীঘিনালায় দুদক‘র গণশুনানিঃ সাত দিনের মধ্যে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার নির্দেশ-দুদক সচিব

  কুসংস্কার দুর করে নারী-পুরুষের সমন্বয়ে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে-বিমল কান্তি চাকমা

  খাগড়াছড়িতে গ্রীষ্মকালীন টমেটো উৎপাদন শীর্ষক মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির প্রেক্ষাপটে আইইডিসিআরের সাবেক পরিচালক মাহমুদুর রহমান বলছেন, মৃত্যুর ঘটনাগুলো ‘রিভিউ’ করার কোনো প্রয়োজন নেই, চিকিৎসকদের কথাই যথেষ্ট। আপনি কি তাকে সমর্থন করেন?